করোনায় মানবসেবা: ক্ষতিগ্রস্ত সহস্রাধিক শিক্ষার্থীদের পাশে ছাত্রলীগ
প্রকাশ : ০১ আগস্ট ২০২১, ১৮:৫১
করোনায় মানবসেবা: ক্ষতিগ্রস্ত সহস্রাধিক শিক্ষার্থীদের পাশে ছাত্রলীগ
মহিউদ্দিন রাসেল
প্রিন্ট অ-অ+

চলমান বৈশ্বিক মহামারি করোনাভাইরাসের সংক্রামণ রোধে লকডাউন ঘোষণা করা হলে টিউশনি বা পার্ট টাইম জব করে চলা শিক্ষার্থীরা পড়ে যায় বিপাকে।কোভিডের কারণে শিক্ষা-প্রতিষ্ঠান বন্ধ, লকডাউন প্রভৃতি কারণে তাদের অধিকাংশের ইনকাম সোর্স বন্ধ হয়ে যায়। ফলে নিজের খরচসহ পরিবারের হাল ধরা এসব শিক্ষার্থীরা পড়ে যান মহাসঙ্কটে।


এ প্রেক্ষিতে ক্ষতিগ্রস্ত শিক্ষার্থীদের পাশে দাঁড়িয়েছে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ। সংগঠনটি শুরু করেছে ‘ক্ষতিগ্রস্ত শিক্ষার্থীদের জন্য খাদ্য সামগ্রী উপহার’ কর্মসূচি।এ কর্মসূচির আওতায় ইতিমধ্যে দেশব্যাপী ১৫০০ ক্ষতিগ্রস্ত শিক্ষার্থীদেরকে ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে সহায়তা দেয়া হয়েছে।


জানা যায়, ক্ষতিগ্রস্ত শিক্ষার্থীদের সহায়তা করতে গত ১৪ জুলাই থেকে ফোন নম্বর সংবলিত বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে ছাত্রলীগ।‘ক্ষতিগ্রস্ত শিক্ষার্থীদের জন্য খাদ্য সামগ্রী উপহার’ এ শিরোনামের এই বিজ্ঞপ্তিটি গণমাধ্যম, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমসহ বিভিন্ন মাধ্যমে প্রচার হতে থাকে। এরপর ১৮ জুলাই থেকে ক্ষতিগ্রস্ত শিক্ষার্থীদের সহায়তা দেয়ার কার্যক্রম শুরু করে সংগঠনটি।



ছাত্রলীগ সূত্রে জানা গেছে, বিজ্ঞপ্তিতে উল্লিখিত নম্বরে দেশের যেকোনো প্রান্তের ক্ষতিগ্রস্ত শিক্ষার্থীরা ফোন কিংবা মেসেজ দিলে তাদের সহায়তা করা হচ্ছে। এক্ষেত্রে ক্ষতিগ্রস্ত শিক্ষার্থীরা ঢাকা বিভাগের হলে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ সরাসরি সহায়তা করছে। আর এর বাইরের বিভাগ হলে দায়িত্বপ্রাপ্তরা জেলা ছাত্রলীগের সাথে যোগাযোগ করে সহায়তা করছে।


আরো জানা গেছে, ‘ক্ষতিগ্রস্ত শিক্ষার্থীদের জন্য খাদ্য সামগ্রী উপহার’ কর্মসূচিতে দায়িত্বপ্রাপ্ত বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সমাজসেবা সম্পাদক শেখ স্বাধীন শাহেদ ঢাকা, ফরিদপুর, মাদারীপুর ও রাজবাড়ির দায়িত্ব পালন করছেন। এ পর্যন্ত তিনি সরেজমিনে গিয়ে ৩৫০ শিক্ষার্থীদেরকে সহায়তা দিয়েছেন।


দায়িত্বপ্রাপ্ত বাকী তিন সম্পাদক দেশের অন্যান্য বিভাগের দায়িত্ব পালন করছেন। ইতিমধ্যে তারা ১১৫০ শিক্ষার্থীদেরকে সহায়তা দিয়েছেন।


ছাত্রলীগের এ সহায়তা কার্যক্রমের মধ্যে গত ঈদের সময় চাল, পোলাও, সেমাই, দুধ, চিনি, মুরগী, গরম, মশলা, লবণ, কিসমিস, হলুদ, জিড়া, সাবান, তেল, ডালসহ যা যা ঈদের দিনে প্রয়োজন, তা ক্ষতিগ্রস্ত শিক্ষার্থীদের দ্বারে দ্বারে পৌঁছে দেয়া হয়েছে। ঈদের পর থেকে চাল, ডাল, ডিম, আলু, লবণ, তেল, চিনি, আটা, ময়দাসহ নিত্য প্রয়োজনীয় শুকনো খাবারের উপকরণ সহায়তা দেয়া হচ্ছে।



করোনার শুরু থেকে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত হওয়া কিন্ডার গার্ডেন, নন এমপিও, বেসরকারি স্কুল-কলেজের শিক্ষকদেরও সহায়তা করা হয়েছে এ কর্মসূচি আওতায়। ছাত্রলীগের সমাজসেবা সম্পাদক শেখ স্বাধীন মো. শাহেদ নিজে সরেজমিনে ঢাকা, ফরিদপুর, মাদারীপুর ও রাজবাড়ির বিভিন্ন জায়গায় গিয়ে এসব শিক্ষকদের সহায়তা করেছেন।


ছাত্রলীগের এ সমাজসেবা সম্পাদক এর আগেও মানবকল্যাণে বেশকিছু কাজ করেছেন। তার উদ্যোগে করোনাভাইরাসের শুরু থেকে মাস্ক ও স্যানিটাইজার বিতরণ, কর্মহীন মানুষের মাঝে খাদ্য বিতরণ, শিক্ষার্থীদের মেস ভাড়া ও টিউশন ফি কমানো, অসহায় শিক্ষার্থীদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ, রমজান মাসে হতদরিদ্রদের মাসব্যাপী সেহেরী ও ইফতার, ঈদ উপহার, বন্যা দুর্গতদের পাশে দাঁড়ানো, অসহায়দের জন্য আইসিইউর ব্যবস্থা, করোনায় মৃতদের লাশ দাফনসহ নানামুখী উদ্যোগ বাস্তবায়িত হয়েছে।বর্তমানে ক্ষতিগ্রস্ত শিক্ষার্থীদের খাদ্য সহায়তাসহ বিভিন্ন কার্যক্রম চলমান রয়েছে। জীবনের ঝুঁকি নিয়ে মাঠ পর্যায়ে নেমে অসহায় জনগণের পাশে দাঁড়িয়ে সহযোগিতা করা এ ছাত্রনেতা নিজে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। তবুও দমে যাননি তিনি। নিজে সুস্থ হয়ে ফের মাঠে নেমে অসহায় জনগণের জন্য নিভৃতে কাজ করে যাচ্ছেন।


এ বিষয়ে জানতে চাইলে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সমাজসেবা সম্পাদক শেখ স্বাধীন মো.শাহেদ বিবার্তাকে বলেন, দেশের যেকোনো দুর্যোগ-দুর্বিপাকে এদেশের মানুষের পাশে থাকার দীর্ঘ ইতিহাস ছাত্রলীগের রয়েছে। তারই ধারাবাহিকতায় আমরা এই করোনা মহামারীতে শিক্ষার্থীদের অগ্রাধিকার দিয়ে কাজ করছি। তবে মানবতাকে অবশ্যই আগলে রাখার দায়িত্বও আমাদের রয়েছে। সেই দায়িত্ব বোধ থেকে আমরা চেষ্টা করছি মানুষের পাশে দাঁড়াতে।


কিন্ডারগার্টেন, নন এমপিও, বেসরকারি শিক্ষকদের সহায়তা করার বিষয়ে এ ছাত্রনেতা বলেন, করোনা মহামারিতে অন্য পেশাজীবীরা বিরতিতে হলেও আয়ের সুযোগ পেয়েছে। কিন্তু এই শ্রেণীর মানুষের জীবিকা প্রায় ১৬ মাস ধরে বন্ধ! শিক্ষিত বেকার হয়ে পড়া এই শ্রেণী হাত পাততে পারেনি অন্য সবার মতো। পেশা পরিবর্তন করে নিম্ন শ্রেণীর কাজও করতে পারেনি আত্মসম্মানবোধের কারণে। সবচেয়ে বেদনাদায়ক হলো এরা তাদের অভাবের কথা মুখ ফুটে বলতেও পারছে না। তাই খোঁজ নিয়ে এমন মানুষদেরও আমি নিজে গিয়ে সহায়তা করেছি।


ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির এই সমাজসেবা সম্পাদক বিবার্তাকে আরো বলেন, সাধারণ মানুষ যাতে ছাত্রলীগকে নিরাপদ আশ্রয়, অধিকার আদায়ের মাধ্যম ভাবে সেই লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছি।করোনাকালীন ছাত্রলীগের যে মানবিক কার্যক্রম সেগুলো এ সঙ্কটে অব্যাহত থাকবে।


বিবার্তা/রাসেল/গমেজ/আবদাল

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

পদ্মা লাইফ টাওয়ার (লেভেল -১১)

১১৫, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ,

বাংলামোটর, ঢাকা- ১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2021 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com