বৃষ্টির পানিতে তলিয়ে গেছে রাজধানী, ভোগান্তি চরমে
প্রকাশ : ২০ জুলাই ২০২০, ১০:১৮
বৃষ্টির পানিতে তলিয়ে গেছে রাজধানী, ভোগান্তি চরমে
খলিলুর রহমান
প্রিন্ট অ-অ+

টানা বৃষ্টিতে তলিয়ে গেছে রাজধানী ঢাকা। অলি-গলি ও পাড়া-মহল্লাগুলোতেও বৃষ্টির পানিতে থৈই থৈই করছে। এতে করে নিচতলার অনেক বাসা-বাড়িতে বৃষ্টির পানি প্রবেশ করায় ভোগান্তিতে পড়েছেন রাজধানীবাসী।


সোমবার (২০ জুলাই) সকালে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা ঘুরে এবং বিভিন্ন এলাকার বাসিন্দাদের সাথে কথা বলে এমন তথ্য জানা গেছে।


রাজধানীর পুরান ঢাকার সিক্কাটুলী লেন, আগাসাদেক রোড, আলা উদ্দিন রোড, কাওরান বাজারের পশ্চিম তেজতুরী বাজার, বসুন্ধরা সপিং মলের পেছনের গলি, পূর্ব তেজতুরী বাজার, নাখাল পাড়ার বেশ কিছু এলাকা, মালিবাগের কয়েকটি গলি, রামপুরা এলাকায় বিভিন্ন গলি, মিরপুরের বিভিন্ন এলাকা বৃষ্টির পানিতে তলিয়ে গেছে। ওইসব এলাকায় বাসা-বাড়িতেও পানি প্রবেশ করেছে।


পশ্চিম তেজতুরী বাজারে বাসিন্দা সাবানা আক্তার বিবার্তাকে জানান, তাদের এলাকায় থেমে থেমে বৃষ্টি হচ্ছে। আর এই বৃষ্টিতে তাদের মহল্লায় পানি মজে গেছে। বাসা বাড়িতেও পানি প্রবেশ করেছে।



অল্প বৃষ্টিতে তাদের মহল্লায় পানি জমে যায় জানিয়ে তিনি বলেন, ভোরে আমার বাসায় পানি প্রবেশ করেছে। বৃষ্টি কমলে পানিও চলে যায়। তবে ময়লা পানি বাসায় প্রবেশ করায় দুর্গন্ধ ছড়িয়ে পড়েছে। এছাড়াও বাসা পরিষ্কার করতেও অনেক কষ্ট হচ্ছে।


তিনি আরো বলেন, বৃষ্টি ও পানির কারণে তার পরিবারের কেউই বাসা থেকে বের হতে পারছেন না। বের হলে রিকশা যোগে বের হতে হচ্ছে।


সাবানার মত রাজধানীতে আরো অনেকেই ভাগান্তিতে রয়েছে। তবে ঢাকা শহরে এটা নতুন কিছু নয়। বৃষ্টি হলেও প্রায় এলাকাই জলাবদ্ধতা দেখা দেয়।


রাজধানীর ফার্মগেট, কাওরানবাজার, মগবাজার, বাংলামটর, তেজতুরী বাজার, ধানমন্ডি, পূর্ব নাখালপাড়া, তেজগাঁও এলাকা ঘুরে দেখা গেছে, বৃষ্টির পানিতে ওইসব এলাকায় জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়েছে। এতে স্থানীরা ভোগান্তি পোহাচ্ছেন।


পশ্চিম তেজতুরী বাজার হালিম কমিউনিটি সেন্টার ও একই এলাকাস্থ বসুন্ধারা সিটির পিছনের একটি গলিতে গিয়ে দেখা গেছে, বৃষ্টির পানিতে রাস্তায় হাটু পানি। রাস্তার পাশে অনেক দোকান ও বাসা-বাড়িতে পানি প্রবেশ করেছে। তবে ওইসব এলাকার বাসিন্দাদের জন্য রিকশা চালকরা ২০ টাকা করে পানি পার করছেন।



স্থানীয়রা জানান, বৃষ্টি হলেই ওই রাস্তায় জলাবদ্ধতা দেখা দেয়। এসময় সুবিধাভোগী কিছু রিকশা চালাক সেখানে অবস্থান করে এবং পানি পারাপারের জন্য জনপ্রতি ১০ থেকে ২০ টাকা নেয়।


একই অবস্থা পুরান ঢাকার সিক্কাটুলী লেন, আগাসাদেক রোড, আলা উদ্দিন রোড এলাকায়ও।


সিক্কাটুলী লেন ও আগাসাদেক রোড এলাকায় গিয়ে দেখা গেছে, রাস্তায় পানি জমে আছে। সেই এলাকায় অনেক বাসা ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে পানি প্রবেশ করেছে। ওইসব এলাকার বাসিন্দাদের চলাচলেও সমস্যা হচ্ছে। তাদের কাছ থেকে বাড়তি ভাড়া আদায় করে নিচ্ছে রিকশা ও সিএনজি চালকরা।


সিক্কাটুলী লেনের বাসিন্দা সাদিক মিয়া বিবার্তাকে বলেন, অল্প বৃষ্টি হলেই তাদের এলাকায় রাস্তাগুলোতে পানি জমে যায়। তবে সোমবার ভারি বৃষ্টি হয়েছিল। তাই পানির পরিমাণটা বেশি। এতে অনেক দোকানে পানি প্রবেশ করেছে।


তিনি আরো বলেন, বৃষ্টি হলেই রিকশা চালকরা ভাড়া বাড়িয়ে দেয়। ২০ টাকার ভাড়া তখন ৫০ টাকা হয়ে যায়। ভাড়া বৃদ্ধি হওয়ার কারণে অনেকেই প্রয়োজন থাকলেও বাসা থেকে বের হয় না।


বিবার্তা/খলিল/জহির

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

ময়মনসিংহ রোড, শাহবাগ, ঢাকা-১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com