‘সরকারের অধীনে কোনো নির্বাচনকে বিশ্বাসযোগ্য মনে করে না জনগণ’
প্রকাশ : ১৯ মার্চ ২০১৯, ১৬:১১
‘সরকারের অধীনে কোনো নির্বাচনকে বিশ্বাসযোগ্য মনে করে না জনগণ’
বিবার্তা প্রতিবেদক
প্রিন্ট অ-অ+

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, ভোটারবিহীন উপজেলা নির্বাচনে দখলদারিত্ব নিয়ে ক্ষমতাসীন দলের লোকেরা নিজেরাই খুনখারাবিতে লিপ্ত হয়ে পড়েছে।


তিনি বলেন, গণতন্ত্রহীনতা ও অবাধ, সুষ্ঠু নির্বাচনের অনুপস্থিতির কারণেই নির্বাচনে দুর্বৃত্তদের দৌরাত্ম্য বেড়েই চলেছে। সরকার হুমকি ও আতঙ্ক সৃষ্টি করেই ক্ষমতায় টিকে থাকতে চায়।


বিএনপির কেন্দ্রীয় সহ-দফতর সম্পাদক তাইফুল ইসলাম টিপু স্বাক্ষরিত এক বিবৃতিতে মঙ্গলবার তিনি এসব কথা বলেন।


দ্বিতীয় দফা উপজেলা নির্বাচনে রাঙামাটি জেলার বাঘাইছড়ি উপজেলায় নির্বাচন শেষে অজ্ঞাত বন্দুকধারীদের ব্রাশফায়ারে সাতজন নিহতের ঘটনায় নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান বিএনপি মহাসচিব।


মির্জা ফখরুল বলেন, একতরফা উপজেলা নির্বাচনে জনগণ কোনো সাড়া দেয়নি। কারণ বর্তমান সরকারের অধীনে কোনো নির্বাচনকে জনগণ বিশ্বাসযোগ্য মনে করে না। তারা জনগণের আস্থা থেকে অনেক দূরে সরে গেছে।


তিনি বলেন, বিরোধী দলহীন একদলীয় শাসনই এই সরকারের টিকে থাকা একমাত্র ভরসা। তাই দেশকে বিরোধী দলহীন করার জন্য সরকার তার সরকারযন্ত্রকে যত্রতত্রভাবে ব্যবহার করছে। বিএনপিসহ বিরোধী দল নিশ্চিহ্নকরণের যাবতীয় উদ্যোগ আয়োজনে কোনো কমতি নেই।


মির্জা ফখরুল দাবি করেন, সংসদ নির্বাচনে মধ্যরাতে ব্যালট বাক্স ভর্তি করে ক্ষমতা দখলের প্রক্রিয়ায় উদ্বুদ্ধ হয়েছে স্থানীয় পর্যায়ের দুর্বৃত্তরা। জনগণের কাছে জবাবদিহি নেই বলেই ক্ষমতাসীন নেতারা স্থানীয় ক্ষমতা দখল করতে প্রতিহিংসার প্রতিযোগিতায় রক্ত ঝরাচ্ছে।


বাঘাইছড়িতে নির্বাচনি দায়িত্বে নিয়োজিত ব্যক্তিদের ওপর সুপরিকল্পিত আক্রমণ হয়েছে মন্তব্য করে তিনি বলেন, এই সন্ত্রাসী ঘটনার সাথে জড়িতদের খুঁজে বের করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির জোর দাবি জানাচ্ছি।


এদিকে মির্জা ফখরুল বলেছেন, বিএনপির কারাবন্দি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া খুবই অসুস্থ। ঠিকমতো হুইল চেয়ারে বসতে পারছেন না এবং মাথাটা সোজাও রাখতে পারছেন না। আদালতে হুইল চেয়ারে বসতে কষ্ট হচ্ছে খালেদা জিয়ার। তার হাতে ও হাঁটুতে খুবই ব্যথা। ঠিকমতো ডাক্তারের চেকআপ করা হচ্ছে না।


পুরাতন কেন্দ্রীয় কারাগারে অস্থায়ীভাবে স্থাপিত ঢাকার ৯ নম্বর বিশেষ জজ আদালতে মঙ্গলবার খালেদা জিয়াসহ অন্যান্য আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন শুনানি হয়। শুনানি শেষে বিচারক ১ এপ্রিল পরবর্তী দিন ধার্য করেন।


এ সময় আদালেত মির্জা ফখরুল উপস্থিত ছিলেন। আদালতের কার্যক্রম শেষে তিনি সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন।


বিবার্তা/জাকিয়া

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: bbartanational@gmail.com, info@bbarta24.net

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com