‘জনগণের আস্থা হারিয়ে যন্ত্রে ভর করেছে সরকার’
প্রকাশ : ৩০ আগস্ট ২০১৮, ১৪:২১
‘জনগণের আস্থা হারিয়ে যন্ত্রে ভর করেছে সরকার’
বিবার্তা প্রতিবেদক
প্রিন্ট অ-অ+

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, সরকার জনগণের ওপর আস্থা হারিয়ে যন্ত্রের ওপর ভর করেছে। জাতীয় নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহারের পরিকল্পনা সরকার ও নির্বাচন কমিশনের একটি অশুভ পার্টনারশিপ।


তিনি ইভিএম মেশিন কেনার উদ্যোগ বাদ দিয়ে এই খাতের চার হাজার কোটি টাকা দিয়ে আগামী নির্বাচনের ৪৪ হাজার ভোটকেন্দ্রে সিসিটিভি ক্যামেরা স্থাপনের দাবি জানান।


রাজধানীর গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে বৃহস্পতিবার এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ মন্তব্য করেন।


ফখরুল বলেন, ২০১২ সালে যখন ইভিএম ব্যবহারের কথা ওঠেছিল আমরা বিরোধীতা করেছিলাম। বর্তমান ইসি দায়িত্ব নেয়ার পর বলেছিলেন ইভিএম ব্যবহার করা হবে না। কিন্তু হঠাৎ করে কি এমন ঘটলো, কি কারণে, কার নির্দেশে চার হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে ১ লাখ ইভিএম মেশিন গোপনে কেনার জন্য ওঠে পড়ে লেগেছেন।


নির্বাচন কমিশনকে আহবান জানিয়ে তিনি বলেন, আমরা ইসিকে দৃঢ়ভাবে বলতে চাই এ ডিজিটাল কারচুপির পথ থেকে সরে আসুন। অন্যথায় ষড়যন্ত্রকারীদের প্রত্যেককে ব্যক্তিগতভাবে এ অপতৎপরতার জন্য মূল্য দিতে হবে।


তিনি আরো বলেন, দেশের জনগণ যে কোনো মূল্যে আগামী নির্বাচনে ইসির ইভিএম পদ্ধতি ব্যবহারের অপতৎপরতা প্রতিহত করবে।


ফখরুল বলেন, দলবাজ ও দুর্নীতিপরায়ণ কর্মকর্তা হেলালুদ্দীনকে ইসির সচিব পদে বসানো হয়েছে। এ সচিবই গণমাধ্যমে বলেছে আরপিও সংশোধন করা হবে না। তাহলে কেন আরপিও সংশোধন করে ইভিএম ব্যবহারের উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে? কারা এর নেপথ্যে কলকাঠি নাড়ছে?


ইভিএম দিয়ে ভোটের ফলাফল পাল্টে দেয়া এবং এক টিপে পাঁচটি ভোট দেয়া সম্ভম বলেও দাবি করেন ফখরুল।


ইভিএমের পোল কার্ডে ভোটারদের সব তথ্য সংরক্ষিত থাকে উল্লেখ করে তিনি বলেন, এই পোল কার্ডের মাধ্যমে ভোটের ফলাফল গণনা করা হয়। যেখানে একটি ডুপ্লিকেট পোল কার্ডও থাকে, ফলে আগে থেকে ডুপ্লিকেট পোল কার্ডে ভোটের ফলাফল সেট করে ভোট গণনার সময় তা ব্যবহার করে ফলাফল পাল্টে দেয়া সম্ভব।


বিএনপির চলমান ইস্যুকে ভিন্নখাতে প্রভাবিত করার জন্য ইভিএম বিষয়টি সামনে নিয়ে আসা হয়েছে কিনা এমন এক প্রশ্নের জবাবে ফখরুল বলেন, আমি সেটা বলবো না। সামনে তো একটা নির্বাচন হবেই। বর্তমান সংবিধান অনুযায়ী আমরা সেটা গ্রহণ করি না করি সেটা মেটারিয়াল ইস্যু না। তবে নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহার করা জনগণের সিদ্ধান্ত নয়।


সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, লেফটেন্যান্ট জেনারেল (অব.) মাহবুবুর রহমান, ড. আব্দুল মঈন খান, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী ও সাংগঠনিক সম্পাদক শামা ওবায়েদ।


বিবার্তা/জাকিয়া

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com