‘নির্বাচন নির্বাচনের মতোই হবে’
প্রকাশ : ১২ জুলাই ২০১৮, ১৭:৩৯
‘নির্বাচন নির্বাচনের মতোই হবে’
বিবার্তা প্রতিবেদক
প্রিন্ট অ-অ+

বিএনপি যতই রঙিন খোয়াব দেখুক না কেন আগামী নির্বাচনকে সামনে রেখে ২০০১ সালের মতো নীল নকশার নির্বাচন বাংলাদেশে আর হবে না; নির্বাচন নির্বাচনের মতোই হবে বলে মন্তব্য করেছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।


বৃহস্পতিবার সকালে চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কে নির্মাণাধীন পটিয়া বাইপাস সড়কের কাজের অগ্রগতি পরিদর্শনের পর সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এসব কথা বলেন তিনি।


মন্ত্রী জানান, চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়ক চার লেন করার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। ইতিমধ্যে ডিপিপি জমা দেয়া হয়েছে পরিকল্পনা কমিশনে। আমরা বিদেশি সংস্থা খুঁজছি। প্রধানমন্ত্রীর অনুরোধে জাইকা রাজি হয়েছে। আশা করছি, এই প্রকল্পটি আমরা শুরু করতে পারব।


আগামী জাতীয় নির্বাচনে সব দলকে আনতে সরকারের কোনো উদ্যোগ আছে কিনা সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, নির্বাচন হবে সংবিধান অনুযায়ী। নির্বাচনের উদ্যোগ নেবে নির্বাচন কমিশন। তফসিল ঘোষণার পর লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড তৈরি করাসহ সব নির্বাচনী কাজ করবে নির্বাচন কমিশন। নির্বাচন পরিচালনা নিয়ে সরকারের করণীয় কিছু নেই। নির্বাচন কমিশন কোনো সহযোগিতা চাইলে সরকার শুধু সেই সহযোগিতা দেবে।


নির্বাচনের আগে আওয়ামী লীগ-বিএনপির ভারত সফর প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন, নির্বাচন নিয়ে আমরা ভারত সফর করিনি। আমার নেতৃত্বে যে টিম ভারতে গিয়েছিল, আমরা বিজেপির সেক্রেটারি জেনারেল রামমাধব সাহেবের আমন্ত্রণে গিয়েছিলাম। বিএনপি তো কোনো আমন্ত্রণে যায়নি। তারা নিজেরা নিজেরা গেছে।


তিনি বলেন, ভারতে গিয়ে আমরা পার্টি টু পার্টি, পিপল টু পিপল কন্ট্যাক্টের কথা বলেছি। আমাদের সঙ্গে মোদি সাহেবেরও দেখা হয়েছে। সেখানেও আমরা নির্বাচন নিয়ে কোনো কথা বলিনি। আমরা আমাদের ইন্টারেস্ট নিয়ে কথা বলেছি। রোহিঙ্গাদের নিয়ে কথা বলেছি। তিস্তা নিয়ে কথা বলেছি।


মন্ত্রী জানান, ২০১৯ সালের জানুয়ারিতে পটিয়া বাইপাস সড়কের কাজ শেষ হবে। ইতিমধ্যে বেশির ভাগ কাজ শেষের দিকে। শাহ আমানত সেতুর দুই পাশে নির্মাণাধীন একটি ছয় লেন ও আরেকটি চার লেনের সড়কের কাজের অগ্রগতি প্রসঙ্গেও তিনি কথা বলেন। চট্টগ্রামে ছয় লেনের সড়ক এটি প্রথম। এটা করা হচ্ছে কুয়েত ফান্ডের টাকায়।


উল্লেখ্য, ২০০১ সালে অনুষ্ঠিত সংসদ নির্বাচনে দুই-তৃতীয়াংশ আসনে জয়ী হয়ে সরকার গঠন করেছিল বিএনপি-জামায়াতের নেতৃত্বাধীন চারদলীয় জোট সরকার। পরাজয়ের পর সেই নির্বাচনে ‘স্থূল কারচুপির’ অভিযোগ এনেছিল আওয়ামী লীগ।


অন্যদিকে আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন মহাজোট সরকার দুই মেয়াদে সরকারে রয়েছে। চলতি বছরের ডিসেম্বরে নির্বাচন হওয়ার কথা রয়েছে।


বিবার্তা/তৌহিদ/সোহান

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com