আরো কঠিন হবে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পাওয়া
প্রকাশ : ২৮ জানুয়ারি ২০১৮, ১৯:৪৫
আরো কঠিন হবে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পাওয়া
তৌফিক ওরিন
প্রিন্ট অ-অ+

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের বাকি আর কয়েকটা মাস। তবে এখন থেকে বইতে শুরু করেছে নির্বাচনী হাওয়া। ক্ষমতাসীন দলসহ সব দলই নির্বাচনী প্রস্তুতি শুরু করেছে। প্রতিটা সংসদীয় আসনেই প্রত্যেক দলের একাধিক প্রার্থী দলীয় মনোনয়ন পেতে কাজ করে যাচ্ছেন। তবে পর পর দু'বার রাষ্ট্রক্ষমতায় থাকার কারণে আওয়ামী লীগের মনোনয়নপ্রত্যাশীদের তালিকা অন্যান্য দল অপেক্ষা দীর্ঘ।


দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগেও একই চিত্র দেখা গিয়েছিল ক্ষমতাসীনদের ক্ষেত্রে। সেবার কিছু কিছু আসনে ১০ জনেরও বেশি মনোনয়নপ্রত্যাশী মনোনয়ন ফর্ম সংগ্রহ করেছিলেন। এবার সেই তালিকা আরো দীর্ঘ হতে পারে বলে ধারণা করছেন কেউ কেউ। তবে এবার আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেতে আরো কঠিন পরীক্ষার সম্মুখীন হতে হবে প্রত্যাশীদের।


এদিকে টানা তৃতীয় মেয়াদে সরকার গঠন করতে মরিয়া আওয়ামী লীগ এবার কোনো রকম রাজ‌নৈ‌তিক ঝুঁকি নিতে চায় না। এ জন্যই নির্বাচনের বেশ আ‌গেই জয়ী হওয়ার সম্ভাবনা আছে - এমন প্রার্থীদের খোঁজে মাঠে নেমেছে আওয়ামী লীগের ১৫টি টিম। দেশব্যাপী সাংগঠনিক সফরের সময় প্রত্যেক আসনের সম্ভাব্য প্রার্থীদের জনপ্রিয়তা যাচাইয়ের কাজটাও করবেন তারা। আগামী নির্বাচনে মনোনয়ন দেয়ার ক্ষেত্রে তাদের এ জরিপই মনোনয়ন পাওয়া-না-পাওয়ার সূচক হিসেবে কাজ করবে।


আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদ ও প্রেসিডিয়াম সদস্যদের নেতৃত্বে এই জরিপ পরিচালিত হবে। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার আগমুহূর্ত পর্যন্ত সংগঠনের জেলা, মহানগর, উপজেলা, থানা পর্যায়ে সাংগঠনিক সফরে যাবেন নেতারা। স্থানীয় আওয়ামী লীগ আয়োজিত বিভিন্ন রাজনৈতিক কর্মসূচিতেও অংশ নেবেন। একইসাথে দলের তৃণমূল নেতাকর্মীদের সাথে বসে দলের সাংগঠনিক অবস্থা যাচাই করবেন তারা।


আওয়ামী লীগের মনোনয়ন বোর্ডের এক শীর্ষ নেতা জানিয়েছেন, ব্যক্তিগত ইমেজ, জনপ্রিয়তা, দলের প্রতি ত্যাগ, আনুগত্য, নেতাকর্মীদের সঙ্গে সম্পর্ক, দুর্নীতি, সাংগঠনিক রিপোর্ট, কর্মসূচিতে সক্রিয়তা প্রভৃতি মাপকাঠির ভিত্তিতে মনোনয়নপ্রত্যাশীদের যোগ্যতা যাচাই করা হবে। এই কঠিন পরীক্ষায় সর্বোচ্চ নম্বরধারী ব্যক্তিই আওয়ামী লীগের নির্বাচনী টিকিট জিতবেন।


২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপিসহ অনেক দল নির্বাচন বর্জন করেছিল। ফলে জাতীয় সংসদের ১৫৪ জন সদস্য বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছিল। এবার বিএনপিসহ বিভিন্ন দল নির্বাচনে এলে জমজমাট লড়াই হবে বলে মনে করছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা। তাই প্রার্থী বাছাইয়ের ক্ষেত্রে কোনোভাবেই গাফলতি করবে না ক্ষমতাসীনরা।


আগামী নির্বাচ‌নে আওয়ামী লী‌গের সম্ভব্য প্রার্থী‌দের বিষ‌য়ে এখন থে‌কে খোঁজখবর নেয়া হ‌চ্ছে ব‌লে গত শনিবার নাটোরের এক কর্মীসভায় ই‌ঙ্গিত দে‌ন আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য মুহাম্মদ ফারুক খান।‌ তি‌নি ব‌লেন, প্রতিটি আসনের সম্ভাব্য প্রার্থীদের দলীয় অবস্থান, কর্মকাণ্ড, ব্যক্তি ইমেজ পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে। আর নির্বাচনের আগে তৃণমূল কর্মীদের মতামত ও মাঠ জরিপের সমন্বয়ে চূড়ান্তভাবে প্রার্থী মনোনয়ন দেবেন দলীয় সভানেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।


এ বিষ‌য়ে আ‌ওয়ামী লী‌গের সাংগঠনিক সম্পাদক এনামুল হক শামীম বিবার্তাকে বলেন, আমি ইতিমধ্যেই দু'টি সাংগঠনিক সফর সম্পন্ন করেছি। সেখানে আমরা জননেত্রী শেখ হাসিনা সরকারের উন্নয়নমুলক কর্মকাণ্ড জনগণের কাছে পৌছে দিচ্ছি। একই সাথে আমরা তৃণমূল থেকে সম্ভব্য প্রার্থীদের বিষয়ে খোঁজখবর নিচ্ছি। সেগুলো আমরা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে পৌছে দেব।


বিবার্তা/ওরিন/মৌসুমী/হুমায়ুন

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com