তৃণমূলে কোন্দল নিরসনের উদ্যোগ আ.লীগের
প্রকাশ : ২৫ জানুয়ারি ২০১৮, ১৬:২২
তৃণমূলে কোন্দল নিরসনের উদ্যোগ আ.লীগের
তৌফিক ওরিন
প্রিন্ট অ-অ+

চলতি বছরের শেষ দিকে অথবা আগামী বছরের প্রথম দিকে অনুষ্ঠিত হবে একাদশ জাতীয় নির্বাচন। তাই টানা তৃতীয়বার ক্ষমতা্য় আসতে এখন থেকেই আটঘাট বেঁধে মাঠে নামছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ। আগামী ৩০ জানুয়ারী আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সিলেটে হযরত শাহজালাল (রা.) মাজার জিয়ারতের মাধ্যমে শুরু করবেন দলের আনুষ্ঠানিক নির্বাচনী প্রচারণা।


এদিকে নির্বাচনী প্রচারের পাশাপাশি তৃণমূল পর্যায়ে দলীয় কোন্দল নিরসনের জন্য দলের পক্ষ থেকে গ্রহণ করা হয়েছে ব্যাপক প্রস্তুতি। গঠন করা হয়েছে ১৫টি নির্বাচনী টিম। আগামী শুক্রবার থেকেই মাঠে নামবে এসব টিম। তাদের সফরের সময় জেলা, মহানগর, থানা ও উপজেলায় বর্ধিত সভা করা হবে। সেখানে দলের তৃণমূলের ছোটখাট কোন্দলগুলো নিরসনের জন্য জোর চেষ্টা চালানো হবে।


দলীয় সূত্রে জানা গেছে, নির্বাচনকে সামনে রেখে প্রতিটি আসনেই একাধিক মনোনয়নপ্রার্থী আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেতে জোর তৎপরতা চালাচ্ছেন। ফলে স্বাভাবিকভাবেই সেখানে প্রার্থীদের মধ্যে স্নায়ুযুদ্ধের সৃষ্টি হচ্ছে। আবার বিভিন্ন মহানগর, জেলা, উপজেলা বা ইউনিয়ন পর্যায়ের ইউনিটগুলোর সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের মধ্যে যেমন বিরোধ রয়েছে, তেমনি স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতাদের সাথে জনপ্রতিনিধিদেরও বিরোধ রয়েছে। সেসব বিরোধ নিরসনের জন্য সা্ংগঠনিক টিমগুলো কাজ করবে।


অতীতে দেখা গেছে, আওয়ামী লীগের অভ্যন্তরীণ বিবাদ বা ছোটখাট সমস্যা রূপ নিয়েছিল সংঘাতে। সেখানে ঝরতে দেখা গেছে অনেক মূল্যবান প্রাণ। লাঞ্ছিত হতে দেখা গেছে তৃণমূলের পোড় খাওয়া প্রবীণ নেতাদের। এসব ঘটনায় রীতিমত ক্ষুব্ধ দলের হাই কমান্ড। দ্রুত এসব দ্বন্দ্ব-কোন্দল মিটিয়ে দলকে সাংগঠনিকভাবে শক্তিশালী করতে হাইকমান্ডের নির্দেশেই সাংগঠনিক সফরের উদ্যোগ নিয়েছেন কেন্দ্রীয় নেতারা।


দলের অনেক কেন্দ্রীয় নেতা স্বীকার করেছেন, আগামী নির্বাচনকে সামনে রেখে দলের ভেতরে আধিপত্য বিস্তারের যে কোন্দল মাথাচাড়া দিয়ে উঠেছে সেগুলো নিরসনে হিমশিম খাচ্ছেন তারা। এসব ঘটনায় দলটির নীতিনির্ধারক মহল রীতিমতো উদ্বেগ প্রকাশ করছে। এ কারণেই শক্ত হাতে দলের হাল টেনে ধরতে এবং তৃণমূলের দলের সাংগঠনিক শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনতে দ্বন্দ্ব-কোন্দলে জর্জরিত জেলার নেতাদের বৈঠকের মাধ্যমে তা নিরসনের উদ্যোগ গ্রহণ করবেন সফররত কেন্দ্রীয় নেতারা।


কেন্দ্রীয় নেতারা মনে করছেন, নির্বাচনের আগে ছোটখাট সাংগঠনিক সমস্যাগুলোও জাতীয় নির্বাচনে দলের জন্য বিরূপ প্রভাব ফেলতে পারে। একই সাথে বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলো নির্বাচনী মাঠে সেই সুযোগগুলোকে কাজে লাগাতে পারে, যা নির্বাচনের ফলাফলে বিরূপ প্রভাব ফেলতে পারে। তাই কোনোভাবেই বিরোধী শক্তিগুলোকে সুযোগের ক্ষেত্র পেতে দেবে না দলটি।


দলের সিনিয়র নেতাদের প্রধান করে এবং বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদকদের সমন্বয়ে গঠিত হয়েছে আওয়ামী লীগের নির্বাচনী টিম। এসব টিম তৃণমূল পর্যায়ে গিয়ে জনগণের নিকট সরকারের উন্নয়ন কর্মকাণ্ড প্রচারের পাশাপাশি স্থানীয় সাংগঠনিক সমস্যা মেটানোর কাজ করবে। একই সাথে বিএনপি-জামাতের আগুন সন্ত্রাসের সেই ভয়াবহ দিনগুলোর কথা তুলে ধরা হবে।


এ প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ বিবার্তাকে বলেন, “আমাদের সাংগঠনিক সফরের মূল টার্গেট জাতীয় নির্বাচন। পাশাপাশি যেসব জায়গায় ছোটখাট সাংগঠনিক সমস্যা রয়েছে সেগুলোও নিরসনে আমরা উদ্যোগ গ্রহণ করবো। নির্বাচনকে সামনে রেখে আমাদের কর্মীদের মাঠে নামানোর পাশাপাশি তৃণমূলে আমরা আমাদের সহযোগী ও অঙ্গ সংগঠনগুলোকেও সমন্বয় করবো। জাতীয় নির্বাচনের আগ পর্যন্ত আমাদের এ প্রক্রিয়া অব্যাহত থাকবে।”


বিবার্তা/ওরিন/মৌসুমী/হুমায়ুন

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com