সিরাজগঞ্জ ছাত্রদলের সহ-সভাপতিই ৮৮ জন!
প্রকাশ : ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১০:৫৪
সিরাজগঞ্জ ছাত্রদলের সহ-সভাপতিই ৮৮ জন!
জাহিদ বিপ্লব
প্রিন্ট অ-অ+

সিরাজগঞ্জে ৪২৫ সদস্য বিশিষ্ট একটি কমিটি অনুমোদন দিয়েছে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল। কমিটিতে সহ-সভাপতি ৮৮ জন! যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ৬৫, সহ-সাধারণ সম্পাদক ৩২, সহ-সাংগঠনিক ৫৪ এবং সদস্য ৯৪ জন।এ কমিটি অনুমোদন দিয়েছেন ছাত্রদলের সভাপতি ফজলুর রহমান খোকন ও সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন শ্যামল।


জেলা কমিটির নেতাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, ২০১৮ সালের জুলাই মাসে সিরাজগঞ্জ জেলা ছাত্রদলের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হলেও, শনিবার (২৫ সেপ্টেম্বর) তার পূর্ণাঙ্গ কমিটি দেয়া হয়।কমিটিতে মো. জুনায়েদ হোসেন সবুজকে সভাপতি এবং সেরাজুল ইসলাম সেরাজকে সাধারণ সম্পাদক করা হয়। ছাত্রদলের এই বৃহৎ কমিটি নিয়ে ছাত্রদলসহ বিএনপির নয়াপল্টন অফিসে সৃষ্টি হয়েছে কৌতূহল।



এ বিষয়ে ২০দলীয় জোটের শরিক একটি দলের চেয়ারম্যান বিবার্তাকে বলেন, ফেসবুকে ছাত্রদলের এই বৃহৎ কমিটি দেখে আমি বিস্মিত। যে কমিটিতে সহ-সভাপতিই করা হয়েছে ৮৮জনকে। তাদের গিনেস বুকে নাম লেখানো উচিত।


বৃহৎ এ কমিটি প্রসঙ্গে সিরাজগঞ্জ জেলা ছাত্রদলের সভাপতি জুনায়েদ হোসেন সবুজ বিবার্তাকে বলেন, দীর্ঘ নয় বছর পর জেলা ছাত্রদলের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয় ২০১৮ সালের জুলাই মাসে। তখন কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের দায়িত্বে ছিলেন রাজিব-আকরাম। জেলার অনেক উপজেলায় ১৫ বছরেও কমিটি হয়নি। আমরা তা করেছি। জেলার তৃণমূলে কমিটি করতে গিয়ে কিছু ক্যাটাগরীর কারণে অনেক ছাত্রদল নেতা স্থানীয় নেতৃত্ব থেকে ঝরে পড়েছেন। অথচ আন্দোলনে রয়েছে তাদের শ্রম। অনেকে একাধিকবার কারাবরণ করেছেন। তাই জেলা কমিটিতে বাধ্যকতা না থাকায় আমরা ত্যাগী অধিকাংশ নেতাকর্মীকে মূল্যায়ন করার চেষ্টা করেছি। তাই কমিটির পরিধি কিছুটা বড় করতে হয়েছে।


এ প্রসঙ্গে ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন শ্যামল বলেন, এখানে সমালোচনা করার কিছু নেই। উপজেলা পর্যায়ে অনেকের যোগ্যতা থাকা সত্বেও বিবাহিত, বয়স্কসহ বিভিন্ন কারণে ছাত্রদল নেতারা কমিটি আসতে পারে না। সেই সকল বাদ পড়া নেতাদের স্বীকৃতি দেয়ার কারণেই জেলা কমিটির পরিধি বড় করা হয়েছে।


কমিটি করা, ভাঙ্গা বা নিয়োগ-অব্যাহতি কার্যকর করার জন্য ছাত্রদলের কোনো গঠনতন্ত্র আছে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমাদের স্থায়ী কোনো গঠনতন্ত্র নেই। খসড়া গঠনতন্ত্র অনুযায়ী আমরা সংগঠন পরিচালনা করি। রাষ্ট্রের জন্য সংবিধান, সংবিধানের জন্য রাষ্ট্র নয়। সংগঠনের জন্য গঠনতন্ত্র, গঠনতন্ত্রের জন্য সংগঠন নয়। পরিবেশ, প্রেক্ষাপট ও সময়ের প্রয়োজনে অনেক সময় সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করতে হয়।



এ বিষয়ে ছাত্রদলের সভাপতি ফজলুর রহমান খোকন বিবার্তাকে বলেন, সিরাজগঞ্জ একটি বড় জেলা। সংগঠনের ত্যাগী নেতাদের মূল্যায়নের প্রয়োজনে অনেক সময় অনেক সিদ্ধান্ত নিতে হয়। ছাত্রদলের শীর্ষ পর্যায় থেকে তৃণমূল পর্যায়ে সবাই নির্যাতিত। এসব ত্যাগী নেতাদের জেলা কমিটিতে রেখে তাদের খুশি করার চেষ্টা করেছি। কারণ এসব ত্যাগী নেতা সংগঠনে অগ্রণী ভুমিকা পালন করার চেষ্টা করবেন।



বিবার্তা/বিপ্লব/আবদাল/বিদ্যুৎ

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

পদ্মা লাইফ টাওয়ার (লেভেল -১১)

১১৫, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ,

বাংলামোটর, ঢাকা- ১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2021 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com