বিএনপি নির্বাচনে অংশ নিলেই সরকারের মধ্যে অস্থিরতা শুরু হয়: প্রিন্স
প্রকাশ : ২৬ অক্টোবর ২০২০, ১৩:২৩
বিএনপি নির্বাচনে অংশ নিলেই সরকারের মধ্যে অস্থিরতা শুরু হয়: প্রিন্স
বিবার্তা প্রতিবেদক
প্রিন্ট অ-অ+

বিএনপির দফতরের দায়িত্বপ্রাপ্ত সাংগঠনিক সম্পাদক ইমরান সালেহ প্রিন্স বলেছেন, আওয়ামী দুঃশাসন বিরোধী গণতন্ত্র পুন:রুদ্ধারের আন্দোলনের অংশ হিসেবে বিএনপি আসন্ন এই উপ-নির্বাচনে অংশ নিচ্ছে। বিএনপি নির্বাচনে অংশ নিলেই যেন সরকার ও আওয়ামী লীগের মধ্যে অস্থিরতা শুরু হয়। তারা বিএনপিকে যেমন ভয় পায় তেমনি জনগণের অংশগ্রহণে উৎসবমুখর পরিবেশে অবাধ, নিরপেক্ষ, সুষ্ঠু ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচনকেও ভয় পায়।


সোমবার (২৬ অক্টোবর) বিএনপির নয়াপল্টন কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।


প্রিন্স বলেন, তারা (সরকার) জানে অবাধ, সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ এবং গ্রহণযোগ্য ও অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন অনুষ্ঠিত হলে তাদের ভরাডুবি সুনিশ্চিত। সেজন্য নির্বাচন প্রক্রিয়া শুরু হওয়া মাত্রই আওয়ামী লীগ নির্বাচনী বিধি-বিধানকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে দলীয় ও রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাস চালিয়ে বিএনপি প্রার্থী ও তাদের কর্মী-সমর্থকদের ওপর হামলা, মামলা, হুমকি ও ভয়-ভীতি প্রদর্শনের মাধ্যমে নির্বাচনী পরিবেশকে ধ্বংস করে জনগণের ভোটাধিকার হরণ করে নির্বাচনকে ব্যর্থ করে দিতে চায়।


বিএনপির এই নেতা অভিযোগ করে বলেন, গত ২২ অক্টোবর ঢাকা-১৮ আসনে বিএনপি মনোনীত প্রার্থী জাহাঙ্গীর হোসেনের পক্ষে ৪৮নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও দক্ষিণখান থানা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আলী আকবর আলীর নেতৃত্বে দক্ষিণখান গার্লস স্কুল রোডে নুরবিলাস এপার্টমেন্টের নীচতলায় কর্মীসভা চলাকালে সেখানে আওয়ামী লীগ-যুবলীগ ও ছাত্রলীগের শতাধিক সশস্ত্র সন্ত্রাসী হামলা চালিয়ে বিএনপি নেতাকর্মীদের মারাত্মকভাবে আহত করে এবং ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি ও লুটপাট চালায়। সেখানে রক্ষিত প্রায় ১০টি গাড়ী ও মোটরসাইকেল ভাংচুর করে তারা।


তিনি বলেন, সিরাজগঞ্জ-১ আসনে বিএনপি মনোনীত প্রার্থী মো. সেলিম রেজা গত ২৩ অক্টোবর নির্বাচনী এলাকায় তার নিজ বাড়িতে গেলে স্থানীয় আওয়ামী লীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগের ক্যাডার বাহিনী তাকে বাড়িতে অবরুদ্ধ করে রাখে এবং তাকে নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণার কাজে বাড়ি থেকে বের হতে দেয়নি। এমনকি বিএনপি নেতাকর্মীদেরকেও প্রার্থীর বাড়িতে যাওয়ার পথে পথে লাঠিসোটা নিয়ে ব্যাপক প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে। এসব ঘটনা স্থানীয় প্রশাসনকে অবহিত করা হলেও কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করেনি। গতকালও একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি হয়েছে।


তিনি সরকার ও ইসির প্রতি আহবান জানিয়ে বলেন, ঢাকা-১৮ এবং সিরাজগঞ্জ-১ জাতীয় সংসদ উপ-নির্বাচনকে অবাধ, সুষ্ঠু ও কলুষমুক্ত করতে যথাযথ উদ্যোগ গ্রহণ করুন। নইলে ভোটাধিকার কেড়ে নেয়ার পরিণতি কতটা বিপজ্জনক হতে পারে তা জনগণ বুঝিয়ে দিবে।


তিনি বলেন, গতকাল রাজধানীর কলাবাগানে মিডনাইট নির্বাচনের এক সংসদ সদস্যের ছেলে ও তার সাঙ্গপাঙ্গরা সশস্ত্র বাহিনীর এক কর্মকর্তা ও তার সহধর্মীনির ওপর হামলা, তাদেরকে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত ও মারাত্মকভাবে রক্তাক্ত করেছে। আমরা এই ন্যক্কারজনক হামলার ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি এবং অবিলম্বে হামলাকারীদের গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির জোর দাবি করছি। এই সরকারের লোকদের ক্ষমতার দাপটে দেশের কোন শ্রেণী-পেশার মানুষের জীবনের নিরাপত্তা ও সম্মান নেই।


বিবার্তা/বিপ্লব/জহির

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

ময়মনসিংহ রোড, শাহবাগ, ঢাকা-১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com