ভারতে আরও একটি ‘টয় ট্রেন’ রুট
প্রকাশ : ২৭ জুন ২০১৮, ১৮:৪৩
ভারতে আরও একটি ‘টয় ট্রেন’ রুট
বিবার্তা ডেস্ক
প্রিন্ট অ-অ+

‘টয় ট্রেন’ বললেই আমাদের মনের চোখে ভেসে ওঠে ভারতের দার্জিলিং রাজ্যের সেই ট্রেনের ছবি, যেগুলো চলে পাহাড়ি পথে, অল্প ক'টি বগি নিয়ে, খুব ধীরে। পর্যটকরা এ ফাঁকে দু'পাশের নয়নাভিরাম প্রকৃতি দেখে নেন প্রাণভরে।


ভারতের পার্বত্য অঞ্চলের রেলপথের এরকম তিনটি রুট ইতিমধ্যে স্থান করে নিয়েছে ইউনেস্কোর ‘বিশ্ব ঐতিহ্য’ তালিকায়। যার মধ্যে সব থেকে জনপ্রিয় দার্জিলিং-হিমালয়ান রেলওয়ে। অন্য দু’টি হচ্ছে নীলগিরি মাউন্টেন রেলওয়েজ ও কাল্কা-সিমলা রেলওয়ে।


তবে ভারতের সেন্ট্রাল রেলওয়ের অন্তর্গত ‘মাথেরান হিল রেলওয়ে’ (এমএইচআর) চতুর্থ রেলপথ, যা এখনও অপেক্ষায় রয়েছে ‘বিশ্ব ঐতিহ্য’ তালিকায় জায়গা করে নেয়ার।


১৯০৭ সালে শুরু হয় মাথেরান-নেরাল ‘লাইট রেলওয়ে’, যাকে স্থানীয়রা ‘ফুল রানি’ বলে থাকে। ১৯০০ সালে ডিজাইন প্রস্তুত হলেও এ রেলপথ নির্মাণের কাজ শুরু হয় ১৯০৪ সালে। প্রধান নির্মাতা ছিলেন আবদুল পিরভয়।


পশ্চিম ঘাট পর্বতমালার প্রাকৃতিক সৌন্দর্য দেখতে দেখতে ঘমাত-দুইয়ের এই রেল সফরের তুলনাই হয় না। এই চার কামরার ‘টয়’ ট্রেনের গতি খুব বেশি হলে হয় ২০ কিলোমিটার, কোথাও আবার তা নেমে আসে মাত্র পাঁচ কিলোমিটার। বেশ কয়েকটি লেভেল ক্রসিং পড়ে ২১ কিলোমিটারের এই সফরে।


১৯৮০ পর্যন্ত বর্ষার সময় বন্ধ রাখা হতো নেরাল-মাথেরান রেল রুট। ধসের কারণে। কিন্তু এখন সারা বছরই পর্যটকরা উপভোগ করতে পারেন এই সুখকর যাত্রা।


১১১ বছরের ঐতিহ্যবাহী এ রেলপথে এতদিন এক অভিনব উপায়ে থামানো হতো ট্রেনটি। প্রত্যেকটি বগির জন্য আলাদা করে লোক থাকত ব্রেক মারার জন্য। সম্প্রতি সেই ব্রেক ও ট্রেনের ইঞ্জিন ‘আপগ্রেড’ করা হয়েছে। ফলে সেই ‘ব্রেক পোর্টার’দের প্রয়োজন ফুরিয়েছে।


গত জানুয়ারি মাসে নতুন রূপে প্রস্তুত করা হয়েছে নেরাল-মাথেরান ট্রেন। প্রথম শ্রেণীর একটি কামরা, দ্বিতীয় শ্রেণীর তিনটি ও একটি জেনারেল কামরায় রয়েছে ১২০ জনের সিট। রয়েছে একটি গার্ড সেকশনও।



প্রাকৃতিক শোভার পাশাপাশি, নেরাল-মাথেরান রেল রুটের বেশ কয়েকটি উল্লেখযোগ্য ‘পয়েন্ট’ রয়েছে। যেমন, হার্ডাল হিল স্টেশন, ভেকড়া কুণ্ড, ওয়াটার পাইপ স্টেশন ও প্যানোরামা পয়েন্ট।


এছাড়া নেরাল-মাথেরান রুটে রয়েছে একটিই টানেল, নাম ‘'ওয়ান কিস টানেল'’। অর্থাৎ একটি চুমু খেতে যা সময় লাগে, ততটুকুই সময় লাগে এই টানেল পেরতে। সূত্র : ভারতীয় পত্রিকা


বিবার্তা/হুমায়ুন/কাফী

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com