হঠাৎ খলিল (পর্ব- ১৪)
প্রকাশ : ২৬ জানুয়ারি ২০১৭, ১৬:২৫
হঠাৎ খলিল (পর্ব- ১৪)
পলাশ মাহবুব
প্রিন্ট অ-অ+

কেঁচো খুঁড়তে সাপ বের হয়।কাশি খুঁড়ে ক্যান্সার আনলো খলিল।

 

ডাক্তার রিপোর্টগুলো কয়েকবার করে দেখলেন। চশমা চোখে দেখলেন, চশমা খুলেও।

 

এক্সরের রিপোর্ট দেখতে আলো জ্বালালেন।নিভিয়েও দেখলেন কয়েকবার। তার কপালের ভাঁজ বড় হয়।একবার রিপোর্টের দিকে আরেকবার খলিলের দিকে তাকান তিনি।

 

খলিলের খুব -একটা ভাবান্তর হয় না। তার কল্পনাতেও নেই কি সংবাদ অপেক্ষা করছে তার জন্য।

 

অফিস থেকে সোজা হাসপাতালে এসেছে সে। সেজন্য একটু আগে বের হতে হয়েছে। আগে অফিসে দেরি করে যাওয়ার অভিযোগ ছিল। এখন মনে হয় আগে বেরোবার বদনামও যোগ হবে।

 

বের হবার সময় হাসতে হাসতে কথাটা নুপূরকে বলেছিল খলিল।

 

সমস্যা কি। একদিন বেশি সময় অফিস করে পুষিয়ে দেবেন, ব্যস!

 

শুধু একদিন না। একদম হিসেব করে সব পুষিয়ে দেব।

 

আচ্ছা, দিয়েন। এখন তাড়াতাড়ি যান।

 

আসার আগে ইদ্রিসের বানানো চাও খেয়েছে এক কাপ।ইদ্রিস ইদানিং তাকে পছন্দ করতে শুরু করেছে। কারণে-অকারণে চা নিয়ে হাজির হয়।রহস্য কি বুঝতে পারছে না। তার অসুস্থতাজনিত কারণেও হতে পারে। কিন্তু তার অসুস্থতা তো নতুন কিছু না।

 

বেশ কিছুটা সময় খলিলের দিকে তাকিয়ে থাকেন ডাক্তার। চশমাটা খুলে টেবিলের ওপর রাখেন।

 

আচ্ছা খলিল সাহেব, হাসপাতালে  আপনার সাথে আর কেউ কি এসেছেন? আই মিন, আপনার রিলেটিভ বা কাছের কেউ? একটু কথা বলা দরকার।

 

না স্যার। কেউ আসে নাই। আমার তো আর হাত-পা ভাঙ্গে নাই যে ধইরা আনবো।

 

হুমম। এখানে আপনার আপন কেউ নেই?

 

খলিল মাথা নাড়ে, এইখানে ক্যান, পুরা দুনিয়াতেই আমার আপন কেউ নাই। আমিই আমার একমাত্র আপন।

 

ওহ। আই সি!

 

টেবিলে রাখা চশমা আবার চোখে দেন ডাক্তার। রিপোর্টগুলো আরেকবার দেখেন।

 

ক্যান স্যার, কি হইছে? আমারেই কন। অসুবিধা নাই।

 

উঁকি দিয়ে রিপোর্ট দেখার চেষ্টা করে খলিল।

 

হুমম। বলতে তো হবেই। বাট কিভাবে যে কথাটা বলি। আসলে . . .

 

সমস্যা নাই স্যার, কন। আমার জীবনডা এমুনই।

 

আসলে আপনার সমস্যাটা যতটুকু ধারণা করেছিলাম তার চাইতে অনেকগুণ বেশি। আই মিন  সিরিয়াস পর্যায়ের বেশি।

 

ডাক্তার সাহেব একটু থামেন। সময় নেন।

 

কি হইছে স্যার আমার! খারাপ কিছু?

 

যেহেতু আপনার কাছের কেউ নেই, তাই আপনাকে কথাটা বলতে হচ্ছে। টেস্টের রিপোর্ট অনুযায়ী আপনার আসলে . . .

 

অজানা আশংকা নিয়ে ডাক্তারের মুখের দিকে তাকিয়ে আছে খলিল।

 

আসলে খলিল সাহেব, আপনার... আপনার ক্যান্সার হয়েছে।

 

ক্যান্সার! কি কন স্যার! ক্যান্সার! আমার ক্যান্সার হইবো ক্যা . . .!

 

মুহূর্তেই খলিলের মাথা শূন্য হয়ে যায়। সে কিছু ভাবতে পারে না। তার শুধু মনে হয় সে আর বাঁচবে না।

 

আমি তো স্যার বিড়ি-সিগারেট কিছুই খাই না স্যার। ও আল্লা, আমার ক্যান্সার হইবো ক্যা। ওরে আল্লারে . . . হাউমাউ কান্না শুরু করে খলিল।     

 

চেয়ার ছেড়ে উঠে আসেন ডাক্তার সাহেব। খলিলের পিঠে হাত রাখেন, খলিল সাহেব, শান্ত হোন। মনকে শক্ত করুন। আসলে আপনি অনেক দেরি করে ফেলেছেন। এখন আর আমাদের খুব বেশি কিছু করার নেই। অলরেডি ইউ আর ইন লাস্ট স্টেজ। মেডিক্যাল সায়েন্সের মতে আপনি আর বড়জোর এক থেকে দেড় মাস বাঁচবেন। দিন যত যাবে আস্তে আস্তে আপনার জীবনীশক্তি কমে আসবে। আপনি নিজেই বিষয়টা টের পাবেন।

 

ডাক্তারের কথা খলিল শুনছে কিনা বোঝা যায় না। ফ্যালফ্যাল করে তাকিয়ে থাকে সে। কান্নার আওয়াজ কমে এলেও তার দুচোখ গড়িয়ে পানি পড়ে।

 

স্যার, আমি বাঁচতে চাই। আমি বাঁচতে চাই স্যার। আমারে বাঁচান আপনে।

 

আচ্ছা ঠিকাছে। আপনি শান্ত হোন।

 

ডাক্তার সাহেব খলিলের পাশের চেয়ারে বসেন, সবই আসলে ওপরওয়ালার ইচ্ছা। জীবন-মৃত্যু তো আমাদের হাতে নেই। আমি-আপনি কিন্তু এখানে এখনই মরে যেতে পারি। এক সেকেন্ডের মধ্যে। কত মানুষ হুট করেই মরে যাচ্ছে। কি, যাচ্ছে না? আপনি তো সেক্ষেত্রে কিছুটা হলেও ভাগ্যবান। কিছুটা সময় তো অন্তত পাচ্ছেন। গুরুত্বপূর্ণ কাজ করা আর শখ পূরণের জন্য। বিষয়টাকে এভাবেই দেখুন না। প্লিজ, ভেঙ্গে পড়বেন না। তাহলে আপনার স্বাস্থ্য আরও খারাপ হয়ে পড়বে।

 

খলিলের কান্না থামে। হাত দিয়ে চোখ মোছে সে।

 

আর একটা কথা। আপনি চাইলে এই টেস্টগুলো আবার করিয়ে দেখতে পারেন। সেক্ষেত্রে লাভ কতটুকু হবে জানি না। তবে মেন্টাল সেটিসফেকশনের জন্য . . .

ডাক্তার সাহেব তার কথা শেষ করার আগেই চেয়ার ছেড়ে উঠে দাঁড়ায় খলিল। রিপোর্টটা নিয়ে রুম থেকে আস্তে আস্তে বের হয়ে যায় সে। তার মাথায় ঘুরছে ডাক্তারের কথা, আপনি আর বড়জোর এক থেকে দেড় মাস বাঁচবেন। (চলবে )

 

বিবার্তা/মৌসুমী/হুমায়ুন

 

>>হঠাৎ খলিল (পর্ব- ১৩)

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com