ন্যাশনাল ইয়ুথ লিডারশীপ সামিট ২০১৯-এ অংশগ্রহণের সুযোগ
প্রকাশ : ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১৬:১৭
ন্যাশনাল ইয়ুথ লিডারশীপ সামিট ২০১৯-এ অংশগ্রহণের সুযোগ
বিবার্তা প্রতিবেদক
প্রিন্ট অ-অ+

তরুণ সমাজকে সঠিক নেতৃত্বের গুণাবলীর শিক্ষাদান ও নেতৃত্ব প্রদানের চ্যালেঞ্জ গ্রহণ করার মানসিকতা সম্পন্ন করে তুলতে ইয়ুথ ক্লাব অব বাংলাদেশ আয়োজন করছে ‘ন্যাশনাল ইয়ুথ লিডারশীপ সামিট-২০১৯’।


আগামী ২২ মার্চ এই সামিট ঢাকার ফার্মগেটের খামারবাড়ি রোডে এ কে এম গিয়াসুদ্দীন মিলকী অডিটোরিয়ামে অনুষ্ঠিত হবে।


১৬ থেকে ৩৫ বছর বয়সী যে কোনো তরুণই রেজিস্ট্রেশনের মাধ্যমে এতে অংশগ্রহণ করতে পারবেন। এটি তরুণ সমাজের জন্য নতুন কিছু জানার দ্বার উম্মোচন করবে বলে আশা করা হচ্ছে।


রেজিস্ট্রেশন করতে যেতে হবে: http://nyls.youthclubofbangladesh.org/index.html এ লিংকে।


আয়োজকরা বলেন, তরুণ সমাজই শান্তিপূর্ণ রাষ্ট্র গঠনের জন্য অগ্রণী ভূমিকা পালন করতে পারে। এই সামিট সে সকল তরুণদের জন্য, যারা সত্যিকারার্থে শান্তি প্রতিষ্ঠা করতে বদ্ধপরিকর, শান্তিপূর্ণ রাষ্ট্র গঠনে অবদান রাখতে উদ্যোমী ও নিবেদিত এবং সক্রিয় নেতৃত্বের গুণাবলীসম্পন্ন, সর্বোপরি যারা জাতিসংঘ কর্তৃক গৃহীত টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্য অর্জনে কাজ করতে আগ্রহী। মূলত ন্যাশনাল ইয়ুথ লিডারশীপ সামিট হলো- শান্তি প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে কাজ করে যাওয়া তরুণদের জন্য এমন একটি প্ল্যাটফর্ম, যেখানে তারা পরস্পর শান্তি প্রতিষ্ঠায় করণীয় সম্বন্ধে তাদের বিভিন্ন দৃষ্টিভঙ্গি, চিন্তাধারা, ও অভিজ্ঞতা বর্ণনা করবে। পাশাপাশি শান্তি প্রতিষ্ঠা করতে ও টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে তরুণদের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা কি হতে পারে সে বিষয়টি নিয়েও এতে আলোচনা করা হবে।


আয়োজকরা আরো জানান, সংগঠনটির এ সামিটের লক্ষ্য ও উদ্দেশই হলো উদ্যোমী ও উদ্যোক্তা তরুণদের একত্রিত করে তাদের অনুপ্রাণিত করা, শান্তি প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে তাদের নেতৃত্বের গুণাবলীকে ত্বরান্বিত করা, তরুণদের সাথে মতবিনিময়, এ ব্যাপারে তাদের কার্যক্রম কি হওয়া উচিৎ সে সম্পর্কে ধারণা দেয়া, আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের সাথে সংযুক্ত হয়ে কাজ করার উপায়সমূহ কি কি হতে পারে তা পরিষ্কারভাবে তুলে ধরা ইত্যাদি।


এই লিডারশীপ সামিটের মূল থিম সম্পর্কে আয়োজকরা বলেন, শান্তি প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে তরুণ প্রজন্মকে নেতৃত্বের শিক্ষা প্রদান করা, যার দ্বারা তারা নিজেরা সমাজ থেকে সব ধরনের উগ্রতা, সহিংসতা ইত্যাদি শান্তি বিঘ্নিত হবার উপাদানগুলোকে উচ্ছেদ করতে নেতৃত্ব দেবে। শুধু তাই নয়, বরং তারা সহিংসতা প্রতিরোধে ভুমিকা রাখার পাশাপাশি এই ধারণা পোষণ করবে যে সন্ত্রাসবাদ ও সহিংসতার কোনো বর্ণ, বর্ণ, ধর্ম, জাতি, অঞ্চল এবং ধর্মের সাথে কোনো সম্পর্ক নেই। পাশাপাশি সামাজিক শান্তি ও ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠায়ও তরুণদের এগিয়ে আসার শিক্ষা প্রদান করা। সমাজে মানবাধিকার, নারী অধিকার, সমতা বিধান ইত্যাদি ধারণাগুলোকে প্রতিষ্ঠিত করার চেষ্টা তরুণদেরই করতে হবে।


উল্লেখ্য, তারুণ্যের শক্তিকে কাজে লাগিয়ে সমাজ পরিবর্তনের জন্য ইয়ুথ ক্লাবের কার্যক্রম ২০১৩ সাল থেকেই দৃষ্টিগোচর হচ্ছে। এরই ধারাবাহিকতায় এবার তারা আয়োজন করতে যাচ্ছে “ন্যাশনাল ইয়ুথ লিডারশীপ সামিট-২০১৯।’’


বিবার্তা/রাসেল/জহির

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

ময়মনসিংহ রোড, শাহবাগ, ঢাকা-১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com