‘সবুজ পরিবেশ আন্দোলন’-এর আত্মপ্রকাশ
প্রকাশ : ২০ মার্চ ২০১৮, ১৬:৪৭
‘সবুজ পরিবেশ আন্দোলন’-এর আত্মপ্রকাশ
ঢাবি প্রতিনিধি
প্রিন্ট অ-অ+

আত্মপ্রকাশ করলো পরিবেশবাদী অরাজনৈতিক ও স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ‘সবুজ পরিবেশ আন্দোলন’। মঙ্গলবার দুপুর ১টার দিকে জাতীয় গ্রন্থাগার অধিদফতরের শওকত ওসমান মিলনায়তনে এ উপলক্ষে এক আত্মপ্রকাশ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।


বেলুন ও পায়রা উড়িয়ে এ আত্মপ্রকাশ অনুষ্ঠানটির উদ্বোধন করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য (শিক্ষা) অধ্যাপক ড. নাসরিন আহমাদ।


উদ্বোধনের পরে সবুজ পরিবেশ আন্দোলনের উপর প্রামাণ্যচিত্র প্রদর্শন, নৃত্য পরিবেশন ও বিভিন্ন ধর্ম গ্রন্থ থেকে তেলাওয়াতপূর্বক এক আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়।


আলোচনাসভায় আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন অধ্যাপক ড. এ কে আজাদ চৌধুরী, ড. আতিউর রহমান, সেলিনা হোসেন, মঞ্জুরুল আহসান বুলবুল, ইকবাল হাবিব, কামরুল ইসলাম চৌধুরী, মাশরাফি বিন মর্তুজা, অপি করিম, সৈয়দ শুকুর আলী শুভ প্রমুখ।অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন সবুজ পরিবেশ আন্দোলনের সমন্বয়ক দেলোয়ার হোসেন।



উদ্বোধনী বক্তব্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. নাসরিন আহমাদ বলেন, পরিবেশ আমাদের বাঁচিয়ে রাখে, পরিবেশের ধ্বংস মানে আমাদের ধ্বংস। দেশকে ভালোবাসতে হলে অবশ্যই পরিবেশকে ভালোবাসতে হবে।


তিনি আরো বলেন, সবুজ পরিবেশ আন্দোলন শুধু দেশে নয়, বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে দিতে হবে। পৃথিবীকে বাসযোগ্য করে তুলতে পরিবেশ রক্ষায় সবাইকে এগিয়ে আসার উদাত্ত আহবান জানান ঢাবির এ শিক্ষিকা।


ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক ড. এ কে আজাদ চৌধুরী তাঁর বক্তব্যে বলেন, পরিবেশ রক্ষায় বলিষ্ঠ ভূমিকা রাখায় ২০১৫ সালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ‘চ্যাম্পিয়ান অব দ্যা আর্থ’ উপাধি দেয়া হয়। এটা আমাদের দেশের জন্য অনেক বড় প্রাপ্তি, অনেক গর্বের।


তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি এজন্য যে, তিনি আওয়ামী লীগের পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক এমন একজনকে বানিয়েছেন যিনি আগে থেকে পরিবেশ রক্ষায় কাজ করতেন। আর তিনি হলেন সবুজ পরিবেশ আন্দোলনের সভাপতি ও আজকের আয়োজনের সমন্বয়ক দেলোয়ার হোসেন।


তিনি আরো বলেন, সুনামগঞ্জের হাওর ভেঙ্গে যাওয়ার পেছনে পরিবেশের ভারসাম্যহীনতায় দায়ী। আর এ কারণে আমাদের সকলকে পরিবেশ রক্ষায় ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করতে হবে।


বিদ্যুৎ উৎপাদন বৃদ্ধি পাওয়ায় এ বক্তা বলেন, গতকালকে আমাদের ১০ হাজার মেগাওয়াটের ও বেশি বিদ্যুৎ উৎপাদিত হয়েছে,যা আমাদের জন্য রেকর্ড। উৎপাদন বেশি হলেও আমাদেরকে সাশ্রয় করে চলতে হবে। বিদ্যুৎতের যৌক্তিক ব্যবহার নিশ্চিত করতে হবে। অন্যথায় দেশের ভোগান্তির পাশাপাশি পরিবেশেরও ক্ষতি হবে।


বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর ড. আতিউর রহমান বলেন, শেখ হাসিনা শুধু এদেশের নেত্রী নন, তিনি বিশ্বনাগরিক। বিশ্বপরিবেশ রক্ষায় কাজ করে তিনি চ্যাম্পিয়ান অব দ্যা আর্থ উপাধিতে ভূষিত হয়েছেন। এদেশের পরিবেশ রক্ষায় আমাদেরকে অবশ্যই শেখ হাসিনাকে সহযোগিতা করতে হবে।



উপস্থিত তারুণ্যের উদ্দেশ্যে আতিউর রহমান বলেন, পরিবেশ রক্ষায় তোমাদেরকে সবচেয়ে বেশি ভূমিকা পালন করতে হবে। মানুষকে সচেতন করতে হবে। নিজেরাও সাবধান থাকতে হবে।


বাংলাদেশ ওয়ানডে ক্রিকেট দলের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা সবুজ আন্দোলনের কর্মীদের উদ্দেশ্যে বলেন, ভালো কাজ করতে গেলে একটু সমালোচনা আসবে। তাই বলে আপনাদের পিছু হটলে চলবে না। আপনারা যখন পরিবেশ রক্ষার্থে ময়লা-আবর্জনা কুঁড়াবেন, তখন আপনাদেরকে অনেকে পাগল বলবে। তুচ্ছ-তাচ্ছিল্য করবে। তাই বলে থেমে থাকলে চলবে না। একদিন সমালোচনাকারীরা নিজের ভুল বুঝতে পেরে আপনাদেরকে সহযোগিতা করবে।



আলোচনা সভার পরে বাংলাদেশ ওয়ানডে ক্রিকেট দলের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তুজা ও বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর ড. আতিউর রহমান যৌথভাবে সবুজ পরিবেশ আন্দেলনের ওয়েবসাইট উদ্বোধন করেন।


উল্লেখ্য, সবুজ পরিবেশ আন্দোলনের এ আত্মপ্রকাশ অনুষ্ঠানে সংগঠনটির সারাদেশের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।


বিবার্তা/রাসেল/সোহান

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com