বিপদজনক ভাইরাস ডেঙ্গু, দ্বিতীয়বার হলে করণীয়
প্রকাশ : ১৯ আগস্ট ২০১৯, ০৯:৪৪
বিপদজনক ভাইরাস ডেঙ্গু, দ্বিতীয়বার হলে করণীয়
বিবার্তা ডেস্ক
প্রিন্ট অ-অ+

ডেঙ্গু জ্বরের প্রকোপ চলছে সারা দেশে। ভয়াবহ এক আতঙ্ক তৈরি করেছে এ ভাইরাস। প্রতিদিনই কারো না কারো মৃত্যুর খবর আসছে গণমাধ্যমে।


এবার অন্য বারের তুলনায় অনেক বেশি। চিকিৎসক ও গবেষকরা আশঙ্কা করছেন- ডেঙ্গুর প্রকোপ অক্টোবর পর্যন্ত থাকবে। সেজন্য সবাইকে সচেতন থাকার আহ্বানও জানিয়েছেন তারা।


তারা জানিয়েছেন, ডেঙ্গু একাধিকবার হতে পারে। তবে প্রথমবারের তুলনায় দ্বিতীয়বার ডেঙ্গু একটু বেশি বিপদজনক। তবে চিকিৎসকদের পরামর্শ অনুযায়ী চললে ডেঙ্গু নিয়ে ভয়ের কোনো কারণ নেই। সবচেয়ে বড় কথা মশার হাত থেকে নিজেকে বাঁচিয়ে চলতে হবে।


ডেঙ্গু দ্বিতীয়বার হলে করণীয়


১. ডেঙ্গু ভাইরাস হলো সিঙ্গেল স্ট্রেন্ড আর এ এন এ (RNA) ভাইরাস এবং এটি চার রকমের হয়ে থাকে। ডেঙ্গু ভাইরাস ১ থেকে ডেঙ্গু ভাইরাস ৪ (DENV 1-4)। এর মধ্যে ডেঙ্গু ভাইরাস ৩ বেশি বিপদজনক কারণ এর আক্রমণে হেমোরেজিক কমপ্লিকেশন বেশি হয়।


২. প্রথমবার ডেঙ্গু আক্রান্তের লক্ষণগুলো মোটামুটি টিপিক্যাল হয়ে থাকে। অস্বাভাবিক মাত্রার জ্বর, গা ব্যথা, পেট ব্যথা, বমি, লুজ মোশন, দুর্বলতা। কিন্তু সেই রোগী যদি দ্বিতীয়বার আবার অন্য টাইপের ডেঙ্গু ভাইরাস দ্বারা আক্রান্ত হন, তখন তার প্রেসেন্টেশন পুরোপুরি টিপিক্যাল নাও হতে পারে। সেটা অবশ্য বড় কথা নয়।


৩. দ্বিতীয়বার ডেঙ্গু আক্রমণে ডেঙ্গু ফিভারের চেয়ে ভয়ানক বিপদজনক ডেঙ্গু হেমোরেজিক ফিভারের আশংকা বেশি। আর এতে ইন্টারনাল ব্লিডিং হয়ে রোগীর হাইপোভলউমিয়া হয় এবং রোগী মারা যেতে পারে কোনো লক্ষণ ছাড়াই।


৪. ডেঙ্গুতে ব্লিডিং হয় রক্তনালির মাইক্রোলিকেজ হয়ে। ডেঙ্গু ভাইরাসের আক্রমণে রক্ত কোষ থেকে নির্গত হয় নানা ইনফ্ল্যামেটরি মেডিয়েটর। যেমন টিউমার নেক্রোসিস ফ্যাক্টর-আলফা, ইন্টারলিউকেন- ৬-৮, গামা-ইন্টারফেরন, অক্সিজেন রেডিকেল, ইলাসটেজ, ডেঙ্গু ভাইরাস নন স্ট্রাকচারাল এন্টিজেন -১ (DENV NS-1)। এই ইনফ্লামেটরি মেডিয়েটরগুলো রক্তনালির অন্তর্গাতে মাইক্রোলিকেজ তৈরি করে যার মাধ্যমে রক্তের রক্তরস (প্লাজমা) বের হয়ে যায়।
৫. ডেঙ্গু জ্বরে কেবল প্যারাসিটামল ওষুধ খেতে হয়। আর ডেঙ্গু হেমোরেজিক ফিভার সন্দেহ হলে অবশ্যই হাসপাতালে ভর্তি হতে হবে। কারণ শরীর থেকে মাইক্রোলিকেজের মাধ্যমে ব্লাড বেরিয়ে যাওয়ার কারণে রোগীকে স্যালাইন বা রক্ত দেয়ার প্রয়োজন পড়ে।


৬. বেশি বেশি তরলজাতীয় খাবার গ্রহণ ও পূর্ণ বিশ্রাম করতে হবে। এতে কার্পণ্যের কোনো সুযোগ নেই।


৭. ডেঙ্গু ভাইরাসের টিকা আবিষ্কার হয়েছে। তবে সেটা যারা একবার ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়েছে কেবল তাদেরই দেয়া যেতে পারে।


বিবার্তা/রবি

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

ময়মনসিংহ রোড, শাহবাগ, ঢাকা-১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com