কমলাপুরে টিকিট প্রত্যাশীদের উপচেপড়া ভিড়
প্রকাশ : ২৪ মে ২০১৯, ১৩:২৫
কমলাপুরে টিকিট প্রত্যাশীদের উপচেপড়া ভিড়
বিবার্তা প্রতিবেদক
প্রিন্ট অ-অ+

ট্রেনের আগাম টিকিট কিনতে তৃতীয় দিনেও কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনে উপচেপড়া ভিড় জমেছে। টিকিটের প্রত্যাশায় দীর্ঘ সময় লাইনে দাঁড়িয়ে অপেক্ষা করছেন ঈদুল ফিতরউপলক্ষে ঘরমুখো মানুষ। ট্রেনের এই আগাম টিকিট বিক্রি শুরু হয়েছে গত বুধবার থেকে, চলবে ১২ আগস্ট পর্যন্ত।


টিকিট বিক্রির প্রথম দিন বুধবার কমলাপুর স্টেশনে ছিল টিকিট প্রত্যাশীদের দীর্ঘ সারি। দ্বিতীয় দিন বৃহস্পতিবার ভিড় আরো বেড়েছে। আজ শুক্রবার ভোর থেকেই অনেকে এসে লাইনে দাঁড়াতে দেখা গেছে টিকিট প্রত্যাশীদের।


টিকিট বিক্রি কেন্দ্র ঘুরে দেখা যায়, ভোরে আসা টিকিট ক্রেতাদের কেউ কেউ পত্রিকা বিছিয়ে মেঝেতেই ঝিমুচ্ছেন। কেউ আবার সকাল থেকে লাইনে দাঁড়িয়ে ক্লান্ত হয়ে হুটহাট লাইনের পাশেই মেঝেতে বসে যাচ্ছেন।


প্রতিটি কাউন্টারের সামনে থেকে টিকিট প্রত্যাশীদের দীর্ঘ লাইন গিয়ে ঠেকেছে স্টেশনের বাইরে। সব মিলিয়ে ঈদের অগ্রিম টিকিট সংগ্রহ করতে আসা মানুষের ভিড় অন্যান্যবারের মতোই।


শুক্রবার সকাল আটটা থেকে ২৬টি কাউন্টার থেকে টিকিট দেয়া হচ্ছে। ঢাকা ও চট্টগ্রাম স্টেশন থেকে টিকিট দেয়া হচ্ছে। বুধবার দেয়া হয় ১৭ আগস্টের টিকিট। আজ শুক্রবার দেয়া হচ্ছে ১৯ আগস্টের টিকিট। ১০ আগস্ট ১৯ আগস্টের, ১১ আগস্ট ২০ আগস্টের এবং ১২ আগস্ট ২১ আগস্টের অগ্রিম টিকিট দেয়া হবে।


একইভাবে ১৫ আগস্ট থেকে শুরু হবে ঈদ ফেরত যাত্রীদের জন্য ট্রেনের আগাম টিকিট বিক্রি। ঈদ ফেরত অগ্রিম টিকিট রাজশাহী, খুলনা, রংপুর, দিনাজপুর ও লালমনিরহাট স্টেশন থেকে বিশেষ ব্যবস্থাপনায় সকাল ৮টায় বিক্রি শুরু হবে। ২৪ আগস্টের ফিরতি টিকিট দেয়া হবে ১৫ আগস্ট। একইভাবে ১৬, ১৭, ১৮ ও ১৯ আগস্ট যথাক্রমে পাওয়া যাবে ২৫, ২৬, ২৭ ও ২৮ আগস্টের টিকিট।


ভোর পৌনে ৬টায় মিরপুর ১ নম্বর থেকে টিকিটের জন্য বিমানবন্দর আসেন মঈন খান। তিনি লাইনে দাঁড়িয়েও অ্যাপের মাধ্যমে টিকিট কেনার চেষ্টা করছিলেন। কিন্তু সেই চেষ্টা করেও অ্যাপের মাধ্যমে টিকিট জোটেনি তার ভাগ্যে।


এদিকে, আসন্ন ঈদুল ফিতরউপলক্ষে ঘরমুখো মানুষের জন্য দূরপাল্লার বাসের আগাম টিকিট বিক্রি মঙ্গলবার থেকে শুরু হয়েছে। বাসের আগাম টিকিট বিক্রির দিন ধার্য ছিল গত রোববার। কিন্তু দূরপাল্লার বাস চলাচল বন্ধ থাকায় বাংলাদেশ বাস-ট্রাক ওনার্স অ্যাসোসিয়েশন টিকিট বিক্রির সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করে।


বাংলাদেশ রেলওয়ের ওয়েবসাইট থেকে ট্রেনের টিকিট কাটার চেষ্টা করছিলেন সাইদ আসলাম। তিনি বলেন, ‘ওয়েবসাইট থেকে টিকিট কাটার চেষ্টা করছি। সিকিউরিটি কোড পর্যন্ত যেতে গেলে ‘কনফার্ম ফরম রিসাবমিশন’ দেখায়। আর কাজ করে না।’


বিমানবন্দর স্টেশনের কর্তব্যরত স্টেশন মাস্টার মাহমুদুল হাসান বলেন, আজকে যাত্রীদের যে ভিড় দেখা যাচ্ছে, সেটা স্বাভাবিক ভিড়ের মতোই।


যাত্রীরা অ্যাপের মাধ্যমে টিকিট কাটতে পারছে না, এ বিষয়ে তিনি বলেন, অ্যাপের হিসাব আমাদের কাছে না। আমাদের জন্য যে টিকিট বরাদ্দ আছে, সব যাত্রীদের দেয়া হচ্ছে।


যাত্রীরা এক জায়গাতেই অনেকক্ষণ দাঁড়িয়ে আছে। ধীরগতিতে টিকিট বিক্রি হচ্ছে- এমন অভিযোগের বিষয়ে কর্তব্যরত স্টেশন মাস্টার বলেন, টিকিট বিক্রির সময় যাত্রীদের রেজিস্ট্রেশন করানো হচ্ছে। যাদের রেজিস্ট্রেশন করা আছে, তাদের রেজিস্ট্রেশন করতে হচ্ছে না। রেজিস্ট্রেশন করার সময় মোবাইল নম্বর, জাতীয় পরিচয়পত্রের নম্বরসহ যাত্রীর বেশকিছু তথ্য লাগছে। এসব কারণে সময় একটু বেশি লাগছে।


বিবার্তা/খলিল/শারমিন

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

ময়মনসিংহ রোড, শাহবাগ, ঢাকা-১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com