কোন সংকেতের মানে কী বার্তা বহন করে?
প্রকাশ : ০৩ মে ২০১৯, ০৬:৫৭
কোন সংকেতের মানে কী বার্তা বহন করে?
বিবার্তা ডেস্ক
প্রিন্ট অ-অ+

বছরের এপ্রিল এবং মে—এই সময় বঙ্গোপসাগরে ঘূর্ণিঝড় সৃষ্টি হওয়াকে স্বাভাবিক নিয়ম ধরে নিয়ে বেশ নির্ভর ছিল আবহাওয়া অফিস। বঙ্গোপসাগরে সৃষ্টি হওয়া নিম্নচাপটি গত শনিবার যখন ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নেয় তখনো এর ভয়াবহতা কেমন হতে পারে তা আঁচ করতে পারেননি আবহাওয়াবিদরা।


সময় যত গড়িয়েছে, ঘূর্ণিঝড় ফণি তত শক্তি সঞ্চয় করে এখন উপকূলে আছড়ে পড়ার অপেক্ষায়। ফণি এখন আর ঘূর্ণিঝড়ের মধ্যে (ঘণ্টায় বাতাসের গতিবেগ ৬২-৮৮ কিলোমিটার) সীমাবদ্ধ নেই। এক্সট্রেমলি সিভিয়ার সাইক্লোনিক স্ট্রম বা অতি প্রবল ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হয়েছে। যেখানে ঘণ্টায় বাতাসের গতিবেগ থাকে ১১৮ থেকে ২১৯ কিলোমিটারের মধ্যে।


বাংলাদেশ ও ভারতের আবহাওয়া অফিসের তথ্যমতে, ব্যাপক শক্তি সঞ্চয় করে ফণী আজ শুক্রবার বিকেলে ভারতের ওড়িশা উপকূলে আছড়ে পড়তে পারে। তখন বাতাসের গতিবেগ থাকবে ১৬০ থেকে ১৮০ কিলোমিটারের মধ্যে। এরপর এটি ওড়িশা থেকে পশ্চিমবঙ্গ হয়ে আজ সন্ধ্যা ৬টার দিকে বাংলাদেশের খুলনা ও সাতক্ষীরা অঞ্চলে আঘাত হানবে। এরপর সেটি সারারাত বাংলাদেশের ওপর দিয়ে বয়ে যাবে।


ওড়িশা ও পশ্চিমবঙ্গে আছড়ে পড়ার কারণে ঘূর্ণিঝড়টির শক্তি কিছুটা ক্ষয় হবে। বাংলাদেশে যখন আঘাত করবে তখন এর বাতাসের গতিবেগ থাকবে ১০০ থেকে ১২০ কিলোমিটারের মধ্যে।


আবহাওয়া অফিসের পরিচালক সামছুদ্দিন আহমেদ বলেন, শুক্রবার সন্ধ্যা নাগাদ ফণি খুলনা ও সাতক্ষীরা অঞ্চলে আঘাত করবে। তখন দমকা ঝোড়ো হাওয়া বইবে। ফণি’র প্রভাবে ব্যাপক বৃষ্টি হবে। আজ শুক্রবার সকাল থেকেই বৃষ্টি ও ঝোড়ো হাওয়া বইতে থাকবে অনেক এলাকায়।


ঝড়ের সময় আবহাওয়া অধিদফতরের দেয়া সমুদ্রের ক্ষেত্রে ১১ এবং নদীবন্দরের ক্ষেত্রে ৪টি সংকেত নির্ধারিত আছে। এ সংকেতগুলো সমুদ্রবন্দর ও নদীবন্দরের ক্ষেত্রে ভিন্ন বার্তা বহন করে।


সমুদ্রবন্দরের জন্য ১১টি সংকেত


১ নং দূরবর্তী সতর্ক সংকেত


জাহাজ ছেড়ে যাওয়ার পর দুযোগপূর্ণ আবহাওয়া সম্মুখীন হতে পারে। দূরবর্তী এলাকায় একটি ঝড়ো হাওয়ার অঞ্চল রয়েছে, যেখানে বাতাসের গতিবেগ ঘণ্টায় ৬১ কিলোমিটার, যা সামদ্রিক ঝড়ে পরিণত হতে পারে।


২ নং দূরবর্তী হুঁশিয়ারি সংকেত


দূরে গভীর সাগরে একটি ঝড় সৃষ্টি হয়েছে। যেখানে বাতাসের একটানা গতিবেগ ঘণ্টায় ৬২-৮৮ কিমি। বন্দর এখনই ঝড়ে কবলিত হবে না। তবে বন্দর ত্যাগকারী জাহাজ পথিমধ্যে বিপদে পড়তে পারে।


৩ নং স্থানীয় সতর্ক সংকেত


বন্দর ও বন্দরে নোঙ্গর করা জাহাজগুলো দুর্যোগ কবলিত হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। বন্দরে ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে এবং ঘূর্ণি বাতাসের একটানা গতিবেগ ৪০-৫০ কি.মি. হতে পারে।


৪ নং স্থানীয় হুঁশিয়ারি সংকেত


বন্দর ঘূর্ণিঝড় কবলিত। বাতাসের সম্ভাব্য গতিবেগ ঘণ্টায় ৫১-৬১ কি.মি.। তবে ঘূর্ণিঝড়ের চূড়ান্ত প্রস্তুতি নেওয়ার মত তেমন বিপদজনক অবস্থা এখনও আসেনি।


৫ নং বিপদ সংকেত


বন্দর ছোট বা মাঝারি তীব্রতার ঝঞ্জাবহুল এক সামুদ্রিক ঝড়ের কবলে নিপতিত। ঝড়ে বাতাসের সর্বোচ্চ একটানা গতিবেগ ঘণ্টায় ৬২-৮৮ কিমি। ঝড়টি বন্দরকে বাম দিক রেখে উপকূল অতিক্রম করতে পারে।


৬ নং বিপদ সংকেত


বন্দর ছোট বা মাঝারি তীব্রতার ঝঞ্জাবহুল এক সামুদ্রিক ঝড়ের কবলে নিপতিত। ঝড়ে বাতাসের সর্বোচ্চ একটানা গতিবেগ ঘণ্টায় ৬২-৮৮ কিমি। ঝড়টি বন্দরকে ডান দিক রেখে উপকূল অতিক্রম করতে পারে।


৭ নং বিপদ সংকেত


বন্দর ছোট বা মাঝারি তীব্রতার ঝঞ্জাবহুল এক সামুদ্রিক ঝড়ের কবলে নিপতিত। ঝড়ে বাতাসের সর্বোচ্চ একটানা গতিবেগ ঘণ্টায় ৬২-৮৮ কিমি। ঝড়টি বন্দরকে উপর বা নিকট দিয়ে উপকূল অতিক্রম করতে পারে।


৮ নং মহাবিপদ সংকেত


বন্দর প্রচণ্ড বা সর্বোচ্চ তীব্রতার ঝঞ্জাবিক্ষুব্ধ ঘূর্ণিঝড়ের কবলে পড়তে পারে। ঝড়ো বাতাসের একটানা গতিবেগ ঘণ্টায় ৮৯ কিমি বা তার ঊর্ধ্বে হতে পারে। প্রচণ্ড ঝড়টি বন্দরকে বাম দিকে রেখে উপকূল অতিক্রম করবে।


৯ নং মহাবিপদ সংকেত


বন্দর প্রচণ্ড বা সর্বোচ্চ তীব্রতার ঝঞ্জাবিক্ষুব্ধ ঘূর্ণিঝড়ের কবলে পড়তে পারে। ঝড়ো বাতাসের একটানা গতিবেগ ঘণ্টায় ৮৯ কিমি বা তার ঊর্ধ্বে হতে পারে। প্রচণ্ড ঝড়টি বন্দরকে ডান দিকে রেখে উপকূল অতিক্রম করবে।


১০ নম্বর মহাবিপদ সংকেত


বন্দর প্রচণ্ড বা সর্বোচ্চ তীব্রতার ঝঞ্জাবহুল ঘূর্ণিঝড়ের কবলে পড়তে পারে। ঝড়ো বাতাসের একটানা গতিবেগ ঘণ্টায় ৮৯ কিমি বা তার ঊর্ধ্বে হতে পারে। প্রচণ্ড ঝড়টি বন্দরের উপর বা নিকট দিয়ে উপকূল অতিক্রম করবে।


১১ নং যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন সংকেত


আবহাওয়া বিপদ সংকেত প্রদানকারী কেন্দ্রের সাথে সকল যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে এবং স্থানীয় কর্মকর্তা আবহাওয়া অত্যন্ত দুযোগপূর্ণ বলে মনে করেন।


নদীবন্দরের জন্য ৪টি সংকেত


১ নং নৌ সতর্কতা সংকেত


বন্দর এলাকা ক্ষণস্থায়ী ঝড়ো আবহাওয়ার কবলে নিপতিত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। ঘণ্টায় সর্বোচ্চ ৬০ কিমি গতিবেগের কালবৈশাখী ক্ষেত্রেও এই সংকেত প্রদর্শিত হয়। এ সংকেত আবহাওয়ার চলতি অবস্থার উপর সতর্ক নজর রাখারও তাগিদ দেয়।


২ নং নৌ হুঁশিয়ারি সংকেত


বন্দর এলাকা নিম্নচাপের সমতূল্য তীব্রতার একটি ঝড়, যার গতিবেগ ঘণ্টায় অনূর্ধ্ব ৬১ কিমি. বা একটি কালবৈশাখী ঝড়, যার বাতাসের গতিবেগ ৬১ কিমি. বা তদুর্ধ্ব। নৌযান এদের যে কোনটির কবলে নিপতিত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। ৬৫ ফুট বা তার কম দৈর্ঘ বিশিষ্ট নৌযানকে দ্র্রুত নিরাপদ আশ্রয়ে যেতে হবে।


৩ নং নৌ বিপদ সংকেত


বন্দর এলাকা ঝড়ে কবলিত। ঘণ্টায় সর্বোচ্চ একটানা ৬২-৮৮ কিমি. পর্যন্ত গতিবেগের একটি সামুদ্রিক ঝড় সহসাই বন্দর এলাকায় আঘাত হানতে পারে। সব নৌযানকে অবিলম্বে নিরাপদ আশ্রয় গ্রহণ করতে হবে।


৪ নং নৌ-মহাবিপদ সংকেত


বন্দর এলাকা একটি প্রচণ্ড বা সর্বোচ্চ তীব্রতার সামুদ্রিক ঝড়ে কবলিত এবং সহসাই বন্দর এলঅকায় আঘাত হানবে। ঝড়ে বাতাসের সর্বোচ্চ একটানা গতিবেগ ঘণ্টায় ৮৯ কিমি. বা তদুর্ধ্ব। সব প্রকার নৌযানকে নিরাপদ আশ্রয়ে থাকতে হবে।


বিবার্তা/শারমিন

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: bbartanational@gmail.com, info@bbarta24.net

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com