আইনে থাকলে তারেকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা: ইসি
প্রকাশ : ১৮ নভেম্বর ২০১৮, ২০:১৬
আইনে থাকলে তারেকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা: ইসি
বিবার্তা প্রতিবেদক
প্রিন্ট অ-অ+

দণ্ডিত আসামি হয়ে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশীদের সাক্ষাৎকার গ্রহণের ব্যাপারে আইনের মধ্যে যদি কিছু থাকে তাহলে তারেক রহমানের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানিয়েছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)।


একজন দণ্ডিত আসামি হয়ে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান লন্ডন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে দলের মনোনয়নপত্রের তালিকা যাচাই-বাছাই করতে পারেন কিনা- সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে একথা জানান নির্বাচন কমিশনার মো. রফিকুল ইসলাম।


রবিবার রাজধানীর নির্বাচন ভবনে ইসি কমিশনার বলেন, ‘আমাদের কাছে এখন পর্যন্ত এ ধরনের কোনো কিছু মনিটরিংয়ে নিজস্ব ক্যাপাসিটি নাই। যদি কেউ তথ্য-প্রমাণসহ আমাদের কাছে এ বিষয়ে অভিযোগ করেন তাহলে আমরা আইনের মধ্যে যদি কিছু থাকে, তাহলে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য যথাযথ কর্তৃপক্ষকে বলব।’


তিনি জানান, ‘যদি আইনের ভেতর কিছু না থাকে তাহলে আমরা নিজেরা বসে কী করতে পারি, সেটা পর্যালোচনা করে দেখে তারপর এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেব।’


রফিকুল ইসলাম বলেন, ‘যদি কেউ দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি হন, তাহলে অবশ্যই তাকে জেলে বা পলাতক থাকার কথা। কেউ জেলে থাকলে এ ধরনের কাজ করার কথা নয়। জেল থেকে যদি উনি জামিনে আসতেন, তাহলে করলে কোনো অসুবিধা ছিল না। কিন্তু ক্ষেত্রটা সম্পূর্ণ ভিন্ন। আইনের কাভারেজে কতটুকু কী আছে সেগুলো দেখে আমরা একটি সিদ্ধান্ত নিতে পারব।’


‘গ্রেপ্তার বন্ধে নির্দেশ দেবে ইসি’


তফসিল ঘোষণার পরও নেতাকর্মীদের গ্রেপ্তার ও মামলার আসামি করা হচ্ছে—এমন একটি তালিকা ইসিতে দিয়েছে বিএনপি। রবিবার সকালে আগারগাঁওয়ের নির্বাচন কমিশনে প্রধান নির্বাচন কমিশনারের (সিইসি) কাছে এই তালিকা জমা দেয় বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের মামলা ও তথ্য সংরক্ষণ কর্মকর্তা মো. সালাহ উদ্দিন খানের নেতৃত্বে দুই সদস্যের প্রতিনিধিদল।


এ বিষয়ে ইসি কমিশনার রফিকুল ইসলাম বলেন, 'সত্যিকারার্থে যদি কোনো হয়রানিমূলক মামলা হয়ে থাকে, তাহলে আমরা অবশ্যই পুলিশ প্রশাসনকে নির্দেশনা দেব, যেন হয়রানিমূলক মামলা না করে। কারণ হয়রানিমূলক মামলা করলে নির্বাচনের পরিবেশ কিছুটা হলেও বিনষ্ট হবে। সুতরাং, কমিশন নির্দেশনা দেবে এই ধরনের কাজ থেকে বিরত থাকার জন্য।’


প্রিসাইডিং ও সহকারী প্রিসাইডিং কর্মকর্তাদের ফোন নিয়ে হরয়ানির বিষয়ে জানতে চাইলে নির্বাচন কমিশনার বলেন, ‘কমিশন থেকে এ ধরনের কোনো সিদ্ধান্ত দেওয়া হয়নি। যদি কেউ এ ধরনের কাজ করেন, তাহলে অতি উৎসাহী হয়ে করছেন। নির্বাচন কমিশন এর প্রমাণ পেলে ব্যবস্থা নেবে।’


নির্বাচনী প্রচার সম্পর্কে রফিকুল ইসলাম বলেন, ‘রবিবারের মধ্যে আগাম সব ধরনের নির্বাচনী প্রচার সরিয়ে ফেলতে হবে। যদি কেউ সরিয়ে না ফেলেন, তাহলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’


বিবার্তা/হাসান/কামরুল


আরও পড়ুন- ভিডিও কনফারেন্সে সাক্ষাৎকার নিচ্ছেন তারেক


-তারেকের কার্যক্রমে ইসির দৃষ্টি আকর্ষণ কাদেরের


সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: bbartanational@gmail.com, info@bbarta24.net

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com