‘আগামী অধিবেশনেই সড়ক পরিবহন আইন পাস হবে’
প্রকাশ : ০৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১৮:৪০
‘আগামী অধিবেশনেই সড়ক পরিবহন আইন পাস হবে’
বিবার্তা প্রতিবেদক
প্রিন্ট অ-অ+

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, সংসদে আগামী অধিবেশনেই এই সরকারের শেষ অধিবেশন হবে। এ অধিবেশনেই পাস হবে ‘সড়ক-পরিবহন আইন-২০১৮’।


আজ মঙ্গলবার বিকেলে সড়ক পরিবহন মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে সড়কে শৃঙ্খলা ফেরানোর বিষয়ে বিশেষজ্ঞ এবং সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে মতবিনিময় সভা শেষে তিনি এ কথা বলেন।


আগামী ৯ সেপ্টেম্বর বসছে জাতীয় সংসদের ২২তম অধিবেশন। এটাই বর্তমান সরকারের শেষ অধিবেশন।


ওবায়দুল কাদের বলেন, আইনটি পাস হওয়ার আগে পরীক্ষা-নীরিক্ষার জন্য সংসদীয় স্থায়ী কমিটির কাছে যাবে। তখন আপনারা (সড়ক সংশ্লিষ্ট বিষেজ্ঞরা) চাইলে সংশোধন, পরামর্শ দিতে পারবেন। সংশোধন করা যাবে।


শিক্ষার্থীদের নিরাপদ সড়কের দাবিতে আন্দোলনের মধ্যে গত ৬ আগস্ট ‘সড়ক পরিবহন আইন, ২০১৮’ এর খসড়া চূড়ান্ত অনুমোদন দেয় মন্ত্রিসভা। কলামিস্ট ও লেখক সৈয়দ আবুল মকসুদ ও নিরাপদ সড়ক চাই (নিসচা) আন্দোলনের চেয়ারম্যান ও চিত্রনায়ক ইলিয়াস কাঞ্চন খসড়া নিরাপদ সড়ক চাই আন্দোলনের কিছু কিছু বিষয় সংশোধনের দাবি জানান।


এই দাবির প্রেক্ষিতে সেতুমন্ত্রী বলেন, নিরাপদ সড়কের দাবিতে ছাত্র-ছাত্রীরা যে আন্দোলন করেছে, আমাদের চোখ আঙ্গুল দিয়ে দেখিয়ে দিয়েছে, তাদের স্যালুট জানাই। তাদের কারণে আইনটি আলোর মুখ দেখেছে। আইনটি কার্যকর হলে সড়ক মহাসড়কে দুর্ঘটনা অনেক কমে আসবে। চালক, মালিক ও শ্রমিকরা আরো বেশি সচেতন হবে।


তিনি বলেন, ‘সেখানে জাতীয় পার্টি আছে অন্য দলও আছে। সংসদে এটা নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা হবে। এটা নিয়ে হতাশ হওয়ার কোনো কারণ নেই। আমরাও চাচ্ছি, দেশের মানুষের কাছে আইনটি যদি গ্রহণযোগ্য না হয়, বাস্তবানুগ না হয় তাহলে তো আইন সুফল দেবে না। সেই সুযোগ সামনে আছে, আপনারা যাবেন।’


ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘আমরা এই অধিবেশনে আইনটি পাস করার জন্যই প্রস্তুতি নিচ্ছি। এটা এই সরকারের শেষ অধিবেশন। আশা করছি, এই অধিবেশনেই আইনটি পাস হবে। আমি অপটিমিস্টিক (আশাবাদী)।’


সেতুমন্ত্রী বলেন, রাজনৈতিক নেতাদের মদদ থাকার কারণেই সড়ক ও মহাসড়ক থেকে ইজিবাইক ও ব্যাটারিচালিত যানবাহনগুলো বন্ধ করা যাচ্ছে না। সড়ক ও মহাসড়কে দুর্ঘটনার জন্য এসব থ্রি হুইলার যানবাহনও অন্যতম দায়ী।


ওবায়দুল কাদের বলেন, সংসদের ২২তম অধিবেশনই হবে দশম জাতীয় সংসদের শেষ অধিবেশন। এরপর সংসদের আর কোনো অধিবেশন বসবে না। তবে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন না হওয়া পর্যন্ত এই সংসদ ভাঙবে না। এমপিদেরও কোনো পাওয়ার থাকবে না।


মতবিনিময় অনুষ্ঠানে স্থপতি মোবাশ্বের হোসেন বলেন, সড়ক- মহাসড়ক ও পরিবহনখাতে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনতে হলে শুধু আইন করলেই হবে না। আইন মানার প্রতি সবাইকে উদ্বুদ্ধ করতে হবে। আমাদের দেশের লোকগুলোই যখন বিদেশে যায় তখন শতভাগ আইন মেনে চলে। কিন্তু দেশে আইন মানার বিষয়ে আমাদের অনেক অনীহা। কাজেই আইন প্রয়োগের উপযুক্ত পরিবেশও তৈরি করতে হবে।


নিরাপদ সড়ক চাই আন্দোলনের চেয়ারম্যান ইলিয়াস কাঞ্চন বলেন, আইনে সর্বোচ্চ সাজা ১০ বছর করলে আইনটি টেকসই হবে।’ আইনটি পাস করার আগে এটি নিয়ে আরো যাচাই বাছাই করার করার পরামর্শ দেন ইলিয়াস কাঞ্চন।


মতবিনিময় অনুষ্ঠানে সাংবাদিক ও কলামিস্ট সৈয়দ আবুল মকসুদসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ বক্তব্য দেন।


বিবার্তা/শারমিন/শাহনাজ

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: bbartanational@gmail.com, info@bbarta24.net

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com