লবণ নিয়ে দেশজুড়ে লংকাকাণ্ড!
প্রকাশ : ১৯ নভেম্বর ২০১৯, ১৭:৫৯
লবণ নিয়ে দেশজুড়ে লংকাকাণ্ড!
বিবার্তা প্রতিবেদক
প্রিন্ট অ-অ+

লবণ নিয়ে রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে লঙকাণ্ড শুরু হয়েছে।পেঁয়াজ ঝাঁজ বেড়ে আবার কমতির দিকে যাবার সংবাদে যখন সাধারণ ক্রেতারা একটু স্বস্তির নি:শ্বাস ফেলছিল ঠিক এই মুহূর্তে লবণ নিয়ে অস্বস্তি দেখা দিয়েছে বাজারে।


মঙ্গলবার দুপুর ১২টার পর থেকে দেশের বিভিন্ন হাট বাজারে ছোট বড় মুদি দোকানে মানুষের ভির দেখা যায়। বিষয়টি এলাকায় জন মানুষের মধ্যে পেঁয়াজের মতই আতঙ্ক সৃষ্টি করে।


দিনাজপুরে হঠাৎ বেড়ে গেছে লবণের দাম।গুজবে জেলাজুড়ে লবণ নিয়ে চলছে লংকাকাণ্ড।মূল্যবৃদ্ধি ও মজুত রেখে ক্রেতাকে না দেয়ায় ক্রেতা-বিক্রেতাদের মধ্যে বাক-বিতণ্ডা, সংঘর্ষ ও ভাঙচুরের ঘটনাও ঘটেছে।


১৫ টাকার খোলা লবণের কেজি ৫০ টাকা এবং প্যাকেটজাত ৩৫ টাকার লবণ ১০০ থেকে ১৫০ টাকা কেজি দরেও বিক্রি হয়েছে।প্রয়োজনের চাইতে অনেক বেশি লবণ মজুত করেছে কোনো কোনো পরিবার।৫ থেকে ১০ কেজি লবণ ক্রয় করেছে কেউ কেউ।


বিভিন্ন দোকানে লবণ ক্রয় করতে উপচে পড়া ভিড় দেখা গেছে।ভিড়ের কারণে যানজট লেগে ছিল শহরের বিভিন্ন রাস্তায়।


এগুজব এড়াতে জেলা প্রশাসন মাইকে প্রচারের পাশাপাশি বাজার মনিটরিং সেল গঠন করেছে।অতিরিক্ত মূল্যে লবণ বিক্রির অভিযোগে ৬ জনকে আটক করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন জেলা প্রশাসক মো. মাহমুদুল আলম।


ঠাকুরগাঁওয়ের রাণীশংকৈলে হঠাৎ করে লবণ শূন্য হয়ে পড়েছে খুচরা দোকানগুলো।লবণের দাম কেজি প্রতি আঁশি থেকে দুইশ টাকায় বিক্রি হচ্ছে-এমন গুজবে ক্রেতারা হুমড়ি খেয়ে পড়েন লবণ কিনতে। ফলে এমন অবস্থায় ক্রেতাদের সামাল দিতে দোকানিদের বেগ পেতে হয়।


অভিযোগ রয়েছে, বিভিন্ন এলাকাভিত্তিক ছোট ছোট দোকানগুলোর ব্যবসায়ীরা অতিরিক্ত মুনাফার লোভে লবণ বিক্রি বন্ধ করে দেন। এতে করে গুজব আরো ডানা মেলে।


সরেজমিনে দেখা যায়, একেকজন ২ থেকে ৫ কেজি করে লবণ কিনে নিয়েছেন। মাত্র আধাঘণ্টার ব্যবধানে বেশ কিছু দোকানের সকল লবণ শেষ হয়ে যায়। পূর্বনির্ধারিত ৩৫ টাকা দামে লবন বিক্রি করেছি বলে তারা জানান। গুজব এমন ডালপালা মেলেছে, শিক্ষিত, অর্ধশিক্ষিত সকল শ্রেণির মানুষ লবণ কিনতে ভিড় করছেন। অনেকে মোটরসাইকেল কিংবা অটোরিকসা করে দূর দূরান্ত থেকে এসে লবণ কিনছেন। একের পর এক ক্রেতা লবণ কিনতে লাইনে দাঁড়িয়ে আছেন।


এদিকে উপজেলার শিবদিঘী রোডে লবণের দামের গুজবে চিনির বস্তায় লবণ নিয়ে যাওয়ার সময় সাধারণ মানুষ ১০ বস্তা লবণ আটক করে পুলিশের হাতে তুলে দেয়।


লবণের দাম বেড়েছে এমন গুজবে টাঙ্গাইলের বিভিন্ন হাট বাজারে লাইন ধরে লবণ কিনতে দেখা যায়। প্রতি কেজি লবণের দাম ১০০ থেকে ১২০ টাকা হয়েছে এমন গুজব ছড়াচ্ছে একটি অসাধু চক্র। এটি একটি গুজব বলে জানিয়েছেন টাঙ্গাইলের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রোকুনুজ্জামান।


মঙ্গলবার সকালে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রোকুনুজ্জামানের নেতৃত্বে অভিযান পরিচালনা করা হয়।


নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট বলেন, লবণের দাম বাড়ানোর কোনো কারণ নেই। লবেণের দাম বৃদ্ধির বিষয়টি সম্পুর্ণ গুজব। এ ধরনের গুজব ছড়িয়ে কেউ বিভ্রান্তি ছড়ানোর চেষ্টা করলে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে। একটি সিন্ডিকেট মানুষকে বিভ্রান্ত করার জন্য অপপ্রচার চালাচ্ছে। এ ব্যাপারে আমরা তৎপর রয়েছি। তাই গুজবে কান না দিয়ে সবাইকে সচেতন থাকার আহবান জানান তিনি।


জানা যায়, কেজিতে লবণ ১০০থেকে ১২০ টাকা এমন গুজবে বিভ্রান্ত হয়ে বেশি মুনাফা লোভে বিভিন্ন বাজারে অনেক দোকানে লবন বিক্রি করা বন্ধ করে দিয়েছে এক শ্রেনীর ব্যবসায়ীরা। এতে সাধারণ মানুষের মধ্যে বিরুপ প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে। লবণের দাম বেড়ে যাচ্ছে, এমন গুজবে সাধারণ মানুষ লবণ কিনতে ভিড় করছেন বিভিন্ন বাজারে।


এদিকে, দেশে বর্তমানে সাড়ে ৬ লাখ মেট্রিক টনের বেশি ভোজ্য লবণ মজুদ রয়েছে। এর মধ্যে কক্সবাজার ও চট্টগ্রামের লবণ চাষিদের কাছে ৪ লাখ ৫ হাজার মেট্রিক টন এবং বিভিন্ন লবণ মিলের গুদামে ২ লাখ ৪৫ হাজার মেট্রিক টন লবণ মজুদ রয়েছে।


এছাড়া সারাদেশে বিভিন্ন লবণ কোম্পানির ডিলার, পাইকারি ও খুচরা বিক্রেতাদের কাছে পর্যাপ্ত পরিমাণে লবণ মজুদ রয়েছে। পাশাপাশি চলতি নভেম্বর মাস থেকে লবণের উৎপাদন মওসুম শুরু হয়েছে।ইতোমধ্যে কক্সবাজার জেলার কুতুবদিয়া ও মহেশখালী উপজেলায় উৎপাদিত নতুন লবণও বাজারে আসতে শুরু করেছে।


দেশে প্রতি মাসে ভোজ্য লবণের চাহিদা কম-বেশি ১ লাখ মেট্রিক টন। অন্যদিকে লবণের মজুদ আছে সাড়ে ৬ লাখ মেট্রিক টন।সে হিসাবে লবণের কোনো ধরণের ঘাটতি বা সংকট হবার প্রশ্নই ওঠে না।


একটি স্বার্থান্বেষী মহল লবণের সংকট রয়েছে মর্মে গুজব রটনা করে অধিক মুনাফা লাভের আশায় লবণের দাম অস্থিতিশীল করার অপচেষ্টা চালাচ্ছে বলে প্রতীয়মান হচ্ছে। এ ধরণের গুজবে বিভ্রান্ত না হওয়ার জন্য শিল্প মন্ত্রণালয় সকলের দৃষ্টি আকর্ষণ করছে।


উল্লেখ্য, লবণ সংক্রান্ত বিষয়ে তদারকির জন্য শিল্প মন্ত্রণালয়ের নির্দেশে বাংলাদেশ ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প কর্পোরেশন (বিসিক) প্রধান কার্যালয়ে ইতোমধ্যে একটি কন্ট্রোল রুম খোলা হয়েছে। এর নম্বর হচ্ছে: ০২-৯৫৭৩৫০৫ (ল্যান্ড ফোন), ০১৭১৫-২২৩৯৪৯ (সেল ফোন)।


লবণ সংক্রান্ত যে কোনো তথ্যের প্রয়োজনে কন্ট্রোল রুমের সাথে যোগাযোগের জন্য অনুরোধ করা হলো।


বিবার্তা/জাই

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

ময়মনসিংহ রোড, শাহবাগ, ঢাকা-১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com