ব্যানবেইস বার্ষিক শিক্ষা জরিপের কর্মশালা অনুষ্ঠিত
প্রকাশ : ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১৯:১০
ব্যানবেইস বার্ষিক শিক্ষা জরিপের কর্মশালা অনুষ্ঠিত
বিবার্তা প্রতিবেদক
প্রিন্ট অ-অ+

বাংলাদেশ শিক্ষাতথ্য ও পরিসংখ্যান ব্যুরোর (ব্যানবেইস) বার্ষিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান জরিপের কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে।


বুধবার (১১ সেপ্টেম্বর) বিকালে ব্যানবেইস কনফারেন্স কক্ষে এ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়।


কর্মশালার শুরুতে তথ্যছক উপস্থাপন করেন ব্যানবেইস পরিসংখ্যান স্পেশালিস্ট শেখ মো. আলমগীর।


তথ্যছক উপস্থাপনে বলা হয়, পোস্ট-প্রাইমারি স্তরের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে মান সম্পন্ন ও সময়োপযোগী তথ্য সংগ্রহ করে শক্তিশালী শিক্ষাতথ্য ভাণ্ডার তৈরি করা এবং নতুন প্রতিষ্ঠানের তথ্য সংযোজন করে বিদ্যামান তথ্যভাণ্ডার হালনাগাদ করা এ জরিপের উদ্দেশ্য। এসডিজি লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে শিক্ষার অগ্রগতি মনিটরিংয়ের জন্য প্রয়োজনীয় শিক্ষাতথ্য যোগান দেয়া এ জরিপের অন্যতম উদ্দেশ্য বলে জানানো হয়।


আগামী অক্টোবর মাসের ১ তারিখ থেকে ১০ তারিখ পর্যন্ত মোট ১০দিন এ জরিপ করা হবে বলে কর্মশালায় জানানো হয়।


তথ্যছক উপস্থাপনের পর শুরু হয় উন্মুক্ত আলোচনা।আর এতে শিক্ষা জরিপ নিয়ে বিভিন্ন মতামত উঠে আসে।


কর্মশালায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সিনিয়র সচিব মো. সোহরাব হোসেন বলেন, পরিসংখ্যান অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।অনেক সিদ্ধান্ত নেয়ার ক্ষেত্রে এটির দরকার হয়।তবে সেটি অবশ্যই গ্রহণযোগ্য হতে হবে।


তিনি বলেন, শিক্ষা নিয়ে কাজ করার সুবাদে অনেক সময় দেখেছি, জরিপে কিছু মিথ্যা তথ্যও থাকে। আর এসবের কারণে আমাদের বিভ্রান্তিতে পড়তে হয়েছে। আর এতে আমাদের অনেক ক্ষতি হয়ে যায়। জরিপ যেন শুধু করার জন্য করা, না হয়।


ব্যানবেইসের উদ্দেশে তিনি বলেন, কিভাবে যথাযথ তথ্য পাওয়া যায়, সেব্যাপারে আপনাদের ভাবতে হবে। তারপর পরিকল্পনা করতে হবে। আর সে অনুযায়ী কাজ করতে হবে। জরিপে যেসব তথ্যগুলো অপরিবর্তনশীল সেগুলোকে ডাটায় সংগ্রহ করে রাখলে, এগুলো নিয়ে আর কাজ করা লাগবে না। তখন শুধু পরিবর্তনশীল তথ্য নিয়ে কাজ করলে দ্রুত একাজ সম্পাদন করা যাবে।


বিশেষ অতিথির বক্তব্যে কারিগরি ও মাদরাসা শিক্ষা বিভাগের সচিব মো. মুনসী শাহাবুদ্দীন আহমেদ বলেন, জরিপের মাধ্যমে তথ্য উপস্থাপন করা অনেক বড় কাজ। আমরা কোন অবস্থায় আছি, সেটা জানতে এ জরিপ গুরুত্বপূর্ণ। এটা ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা নির্ধারণ করতে কাজে লাগে। সরকারের শিক্ষার উন্নয়নের লক্ষ্য বাস্তবায়ন করতে এ জরিপ ভূমিকা রাখবে।


তিনি বলেন, আমি বলবো জরিপে এক্সটা কারিকুলামের কলাম, বিদ্যালয়ের ছবি এড করা যায় কিনা সেব্যাপারে ভাবা যেতে পারে। এছাড়া প্রত্যেক বিদ্যালয়ের সফল ছাত্রদের ডাটাবেজ তৈরি করলে, সেসব বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা তাদের সফল সিনিয়রদের মাধ্যমে উপকৃত হবেন।


কর্মশালায় সভাপতির বক্তব্যে ব্যানবেইসের মহাপরিচালক মো. ফসিউল্লাহ বলেন, কর্মশালার মাধ্যমে যেসব গুরুত্বপূর্ণ মতামত বেরিয়ে এসেছে , আমরা গুরুত্বের সাথে সেগুলোকে গ্রহণ করবো। তথ্যের বিভ্রাট এড়াতে এবার থেকে জরিপে কঠোর সতর্কতা অবলম্বন করা হবে। কোনো জরিপে যথাযথভাবে কলামগুলোকে পূরণ না করলে সেটিকে গ্রহণ করা হবে না।


কর্মশালায় শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে কাজ করা সচিব, উচ্চপদস্ত কর্মকর্তা, বিভিন্ন শিক্ষা -প্রতিষ্ঠানের প্রধানসহ মিডিয়া কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।


বিবার্তা/রাসেল/জাই

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

ময়মনসিংহ রোড, শাহবাগ, ঢাকা-১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com