রেসিপি
ইফতার আয়োজনে
প্রকাশ : ১৭ মে ২০১৮, ২০:০৭
ইফতার আয়োজনে
বিবার্তা ডেস্ক
প্রিন্ট অ-অ+

সারা বিশ্বের মুসল্লিদের কাছে রমজান মাসের গুরুত্ব ও ফজিলত অনেক। যথেষ্ট ভাবগাম্ভীর্যের সঙ্গে এই মাসকে তারা পালন করে থাকেন। বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ইফতারে আয়োজন করা হয় নানা ধরনের ইফতারির। ইফতার আয়োজনে উঠে আসে সে দেশের সংস্কৃতি ও কৃষ্টি।


ছোলে ভাটুরা


ছোলা তৈরিঃ


কাবলি ছোলা সিদ্ধ ২ কাপ(সারারাত পানিতে ভিজিয়ে রেখে সিদ্ধ করা), মাঝারি টমেটোকুচি ২টি, আলু সিদ্ধ ২টি(সিদ্ধ করে ছোট কিউব করা), পেঁয়াজ কুচি ২টি, আস্ত জিরা ও সরিষা ১ চা চামচ করে, আদা ও রসুন বাটা ১ চা চামচ করে, জিরা গুঁড়া ১ চা চামচ, হলুদ গুড়া ১/২ চা চামচ, লাল মরিচ গুঁড়া ১ চা চামচ, আমচুর ১ চা চামচ বা কাচা আম কুচি বা আমের আচার ২ টেবিল চামচ, চাট মশলা বা ছোলে মাসালা ১ চা চামচ (নাপেলে চটপটি মশলা দিন), লবণ স্বাদমতো, চিনি ১চা চামচ, লেবুর রস ১ চা চামচ, ধনেপাতা কুচি ২ টেবিল চামচ, তেল ১/৪ কাপ (সরিষার তেল দিলে ভাল লাগবে)।


প্রণালী
কড়াইতে তেল দিয়ে আস্ত জিরা ও সরিষা দিন। ফুটলে পেয়াজ দিয়ে বাদামি করে ভাজুন।টমেটো কুচি দিয়ে অল্প আচে ১০ মিনিট রাখতে হবে।টমেটো গলে গেলে সব বাটা ও গুড়া মশলা, চাট মশলা, আমের আচার ও লবন দিয়ে আরো ২ মিনিট রান্না করুন।


এখন সিদ্ধ ছোলা ও আলু (আলু কিছুটা নরম হবে যাতে ভেঙে যায়) দিয়ে ভাল করে মিশিয়ে ১কাপ পানি দিন।


অল্প আচে ১৫-২০ মিনিট ঢেকে রান্না করুন।ঢাকনা খুলে চিনি , ধনেপাতা ও লেবুর রস দিয়ে আরো ২ মিনিট রান্না করে নামিয়ে নিন।
পরিবেশনের আগে টালা জিরা ও ধনেগুড়ো ছিটীয়ে দিন।


ভাটুরা তৈরি


ময়দা ৩ কাপ, সুজি ১/২ কাপ বেকিং পাউডারঃ ১/২চা চামচ, বেকিং সোডা ১/২চা চামচ, লবণ ১/২চা চামচ, চিনি ১চা চামচ, টকদইঃ ১/২ কাপ (সাথে ১ টেবিলচামচ তেল মিশিয়ে নিন), গরম পানি প্রয়োজন মতো(১ কাপের মতো), তেল (ডুবো তেলে ভাজার জন্য)।


প্রণালী
সব শুকনো উপকরন ভাল করে মিশিয়ে তার সাথে দই ও তেল ভাল করে মিশিয়ে নিন।


অল্প অল্প করে পানি দিয়ে সফট খামির বানিয়ে ভেজাকাপড় (*ভাল করে চিপে নেয়া) দিয়ে ঢেকে ২ ঘন্টা বা সারারাত গরম জায়গাতে (*রোদে বা ওভেন গরম করে বন্ধ করা বা গরম কাপড় পেচিয়ে) রেখে দিন। খামির ১০ ভাগ করুন। তেল গরম করুন।


পিড়িতে একটু তেল মাখিয়ে সাবধানে রুটি (*রুটি পাতলা করবেন না) বানিয়ে নিন। রুটিতে কোন ভাজ পরেনা যেন। টগবগে ফুটন্ত তেলে ছাড়ুন। চামচ দিয়ে চেপে চেপে রুটি পুরোপুরি ফুলতে দিন।দুপাশ বাদামি করে ভাজুন।


ছোলের সাথে গরম গরম পরিবেশন করুন।



সিম্পেল পিঁয়াজু


উপকরণ
মুসুর ডাল ১/২কাপ, খেসারি ডাল ১/২ কাপ, মিহি পেয়াজকুচি ১ কাপ, ধনেপাতা কুচি ২টেবিল চামচ, আদা বাটা ১চা চামচ, হলুদ মরিচ গুড়ো ১/২ চা চামচ করে, চালের গুরো ১/৪ কাপ, চাট মশলা বা টালা জিরা গুড়ো ১চা চামচ, লবন ও বিট লবন পরিমানমত।


প্রণালী
তেল ভাজার জন্য ডাল ধুয়ে পানিতে ৫ ঘন্টা ভিজিয়ে রাখুন। পানি ছেকে একবার দানাদান করে বেটে নিন (মিহি হবেনা ডাল)। প্যানে তেল ১/২কাপ তেল দিয়ে গরম হলে হাত দিয়ে চেপে পিয়াজুর আকারে বানিয়ে তেলে দিন।


মাঝারি আচে ভেজে তুলুন। চুলার আচ বেশি বাড়ানো যাবেনা তবে ভেতরে কাচা থাকতে পারে। গরম পরিবেশন করুন।


আলুরচপ


উপকরণ


আলু ১ কেজি (গরম পানিতে আলু সিদ্ধ করে পানি শুকিয়ে নিন), পেঁয়াজকুচি দেড় কাপ, শুকনো মরিচ ৬-৮পিস (টেলে গুড়ো করা), সরিশার তেল ১ টেবিল চামচ, টালা জিরা ও ধনে গুড়ো ১ চা চামচ, গরম মশলা গুড়ো ১চা চামচ, চাট মশলা বা চটপটির মশলা গুড় ১ চা চামচ, আচারের তেল বা গরুরমাংশ রান্না করার পর যে তেল বের হয় সেটা ২ টেবিল চামচ (স্বাদ বাড়ানোর জন্য), লবণ ও ধনেপাতা কুচি পরিমানমত


প্রণালী
আলু সিদ্ধ করে হাড়ির পানি শুকিয়ে নিন নয়ত আলুর ভেতরে পানি থাকবে। হালকা গরম থাকা অবস্থায় ভর্তা করুন নয়ত মিহি করা যাবেনা।


প্যানে সরিষার তেল দিয়ে পেঁয়াজ দিন। নেড়েচেরে ভাজুন।হাল্কা বাদামি হলে শুকনো মরিচ দিয়ে মিশিয়ে আলু ভর্তা দিন। একে একে সব মশলা দিয়ে মিশিয়ে মাঝারি আচে কয়েকমিনিট রেখে নামিয়ে নিন। (আলু একটু ভেজে নিলে অতিরিক্ত পানি শুকিয়ে যায় তবে ভাজার সময় ভেঙ্গে যাবেনা)। এখন গোল বা কাবাবের মত বা যে কোণ আকারের বানিয়ে নিন।


কোটিং তৈরি


১ম পদ্ধতিঃ


উপকরণ
বেসন ২ কাপ, রাধুনী বা আজয়িন ১ টেবিল চামচ, হলুদ, টালা জিরা ও ধনে গুড়ো ১ চা চামচ করে, শুকনো মরিচ গুড়ো ২ চা চামচ, চাট মশলা বা চটপটির মশলা গুড়া ১ চা চামচ, বেকিং পাউডার ১/২ চা চামচ, লবণ ১/২ চাচামচ।


প্রণালী
উপরের সব উপকরন একসাথে মিশিয়ে নেই। পরিমাণ মতো পানি মিশিয়ে কিছুটা ঘন ব্যাটার করে নেই যাতে ব্যাটার চপের গায়ে লেগে থাকতে পারে।


তেল গরম করে নিন। সাবধানে আলুর চপগুলো বেসনে গড়িয়ে ডুবো তেলে ছারূণ।মচমচে হলে নামিয়ে পেপার টিস্যুয় রেখে গরম পরিবেশন করুন।


২য় পদ্ধতি বা ফ্রোজেন পদ্ধতি


উপকরণ
ময়দা ১ কাপ, ডিম ফেটানো ২টি, বিস্কুটের গুড়ো বা ব্রেড ক্রাম্বস ২ কাপ।


প্রণালী
চপগুলো ময়দাতে গড়িয়ে, ডিমে চুবিয়ে ব্রেড ক্রাম্বসে ভাল করে গড়িয়ে নিন। ডিপফ্রিজে রেখে দিন। ১মাসো ভাল থাকবে এটি। ভাজার ৩০ মিনিট আগে নামিয়ে নিন। অল্প তেলে সময় নিয়ে ভাজুন।


বেগুনি


উপকরণ
ছোলার ডালের বেসন দেড় কাপ, চালের গুঁড়া আধা কাপ, মরিচ গুঁড়া আধ চা-চামচ, লম্বা বেগুন ১-২টি, হলুদ গুঁড়া আধা চা-চামচ, বেকিং পাউডার ১ চা-চামচ, পেঁয়াজ বাটা ১ চা-চামচ, রসুন বাটা আধা চা-চামচ, লবণ পরিমাণ মতো, তেল (ভাজার জন্য) পরিমাণ মতো।


প্রস্তুত প্রণালী
বেগুন ও তেল বাদে বাকি সব উপকরণ একসঙ্গে মিলিয়ে পানিতে দিয়ে থকথকে গোলা করে ১ ঘণ্টা ঢেকে রাখতে হবে। বেগুন পাতলা টুকরা করে কেটে সামান্য লবণ মাখিয়ে রাখতে হবে। কড়াইয়ে তেল গরম করে বেগুন বেসনের গোলায় ডুবিয়ে ডুবোতেলে ছাড়তে হবে। মচমচে বাদামি রং করে ভাজতে হবে। তেল থেকে উঠিয়ে কিচেন টাওয়েল অথবা কাগজের ওপর রাখতে হবে।


ডিম পাকোড়া


উপকরণ
ডিম ৩টি, বেসন ১ কাপ, আদা বাটা ১/২ চা চামচ, রসুন বাটা ১/২ চা চামচ, হলুদ গুড়া, মরিচ গুড়া সামান্য পরিমাণ, বেকিং পাউডার ১/২ চা চামচ, লবণ পরিমাণ মত, তেল ভাজার জন্য।


প্রণালী
প্রথমে ডিমগুলোকে এক এক করে অল্প তেলে পোচ করে নিন বা ভেজে নিন। একটু ঠান্ডা হলে ছুরি বা কেঁচি দিয়ে প্রতিটি ডিম কে চারভাগে কেটে নিন।


কড়াইয়ে তেল বসিয়ে গরম হতে দিন। এ ফাঁকে বেসনের সাথে বাকি সব উপকরণ মিশিয়ে পরিমাণমত পানি মিলিয়ে ডো তৈরি করে নিন।


এবার যেভাবে আলুর চপ বা বেগুনি বানান ঠিক সেভাবে ডো তে ডিমের কাটা অংশ চুবিয়ে ডুবো তেলে ভালো করে ভেজে নিন। এপিঠ ওপিঠ ভালো করে ভাজা হলেই তৈরি হয়ে যাবে মজাদার ডিম পাকোড়া।


প্রিয় মানুষগুলোকে মুগ্ধ করে দিতে পারেন মজার এই সহজ খাবার বানিয়ে। বাড়িতে ইফতার পার্টির আয়োজন করলে সেখানেও খাবারের তালিকায় রাখতে পারেন এই খাবারটি।


জিলাপি


উপকরণ
ময়দা- ২ কাপ, কর্ন ফ্লাওয়ার- ১/৪ কাপ, দই- কাই তৈরির জন্য, বেকিং সোডা- ১ চিমটি, ঘি- ১/৪ কাপ, কমলা ফুড কালার- সামান্য, তেল- ভাজার জন্য, চিনির সিরা তৈরির উপকরণ, চিনি- ২ কাপ, পানি- ২ কাপ, জাফরান- সামান্য, গোলাপ এসেন্স- কয়েক ফোঁটা, এলাচ গুঁড়া- ১/৪ চা চামচ।


প্রস্তুত প্রণালি
একটি পাত্রে ময়দা, কর্ন ফ্লাওয়ার ও বেকিং সোডা একসঙ্গে মেশান। মিশ্রণে ঘি ও ফুড কালার মেশান। দই ও পরিমাণ মতো পানি মিশিয়ে কাই তৈরি করুন। মিশ্রণটি ৮ ঘণ্টা রেখে দিন। সারারাত রেখে দিতে পারেন। পরদিন বড় চামচ দিয়ে ভালো করে নেড়ে নিন। লক্ষ রাখবেন যেন অতিরিক্ত ঘন না হয়ে যায় মিশ্রণ।


চিনির সিরা তৈরি করার জন্য একটি পাত্রে পানি গরম করে চিনি দিয়ে দিন। মৃদু আঁচে রেখে দিন যতোক্ষণ চিনি গলে না যায়।


পাইপিং ব্যাগে ময়দার কাই ভরে নিন। গরম তেলের উপর ধীরে ধীরে আড়াই প্যাঁচে ঘুরিয়ে ময়দার মিশ্রণ ছেড়ে দিন। সোনালি রং করে ভাজুন জিলাপি। তেল থেকে উঠিয়ে চিনির সিরায় ছেড়ে দিন জিলাপি। ৫ মিনিট পর সিরা থেকে তুলে গরম গরম পরিবেশন করুন জিলাপি।


বিবার্তা/শারমিন

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: bbartanational@gmail.com, info@bbarta24.net

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com