সুগার নিয়ন্ত্রণে ম্যাজিকের মতো কাজ করবে এই আয়ুর্বেদ টোটকা
প্রকাশ : ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১৩:৫৭
সুগার নিয়ন্ত্রণে ম্যাজিকের মতো কাজ করবে এই আয়ুর্বেদ টোটকা
অনামিকা রায়
প্রিন্ট অ-অ+

নেট জীবনের ঘরে ঘরে অনুপ্রবেশ ঘটিয়েছে সুগার বা ডায়াবিটিস। আয়ুর্বেদের মতে, ডায়াবিটিসের চিকিৎসা ব্যক্তির দেহের প্রকৃতির উপর নির্ভর করে। আজকের সময়ে, স্বাস্থ্যকর জীবনধারা-সহ সঠিক ডায়েট এবং সঠিক চিকিত্সা নেয়া প্রয়োজন।


নেট জীবনের ঘরে ঘরে অনুপ্রবেশ ঘটিয়েছে সুগার বা ডায়াবিটিস। বয়সের কোনও বাছবিচার নেই। আট থেকে আশি, সকলেই ভুগছেন এই রোগে। চিকিৎসকের পরামর্শে এটি নিয়ন্ত্রণে এলেও নিষ্কৃতি পাওয়া প্রায় অসম্ভব। রক্তে শর্করার মাত্রা সামলাতে পরিবর্তন ঘটাতে হয় রোজের ডায়েটে।


ডায়াবিটিসে শরীরে চিনির মাত্রা বেড়ে যায়। এলোমেলো জীবনযাত্রা এবং অস্বাস্থ্যকর খাদ্যাভাস এই রোগের জন্য মূলত দায়ী। সঠিক সময়ে যদি এই রোগটি নিয়ন্ত্রণ না করা হয় তবে বিভিন্ন রোগ হতে পারে। তাই এটি নিরব ঘাতক হিসাবে বিবেচিত হয়। আয়ুর্বেদের মতে, ডায়াবিটিসের চিকিৎসা ব্যক্তির দেহের প্রকৃতির উপর নির্ভর করে। আজকের সময়ে, স্বাস্থ্যকর জীবনধারা-সহ সঠিক ডায়েট এবং সঠিক চিকিৎসা নেওয়া প্রয়োজন। আমাদের চারপাশে উপস্থিত ডায়াবেটিস থেকে মুক্তি পেতে কিছু প্রাকৃতিক বিষয়ও আয়ুর্বেদে স্বীকৃত। এই প্রাকৃতিক জিনিসগুলিই নিয়ন্ত্রণে আনতে পারে সুগার।


ডায়াবেটিসের প্রধান লক্ষণগুলি


ডায়াবেটিসের প্রধান লক্ষণগুলি হলো ঘন ঘন প্রস্রাব এবং তৃষ্ণার্ত হওয়া, ক্লান্তি এবং ক্ষুধার্ত অনুভূতি, ক্ষত দেরীতে নিরাময়, চূড়ায় ব্যথা এবং ত্বকের অন্ধকার প্যাচ, উচ্চ রক্তচাপ, কোলেস্টেরল বৃদ্ধি, ওজন বৃদ্ধি হওয়া। আপনি যদি দীর্ঘকাল ধরে এই রোগের কবলে থাকেন তবে হৃদরোগ, কিডনি, চোখ এবং ত্বকের রোগগুলিও আপনাকে ঘিরে রাখে।


বেরি


গ্লুকোজ ভেঙে তাকে শক্তিতে পরিণত করার ক্ষমতা রয়েছে বেরির। ফলে রক্তে গ্লুকোজের মাত্রা কমে। পাশাপাশি রেরির মধ্যে থাকা একটি উপাদান ইনসুলিন ক্ষরণেও সাহা‌য্য করে। ফলে দেহে ইনসুলিন ক্ষরণ স্বাভাবিক রাখে। এটি একটি মৌসুমী ফল যার কার্নেল পাউডার ইনসুলিনের মাধ্যমে রক্তে শর্করাকে হ্রাস করতে সহায়তা করে। এর গুঁড়ো জল দিয়ে নেওয়া যেতে পারে। আপনি যদি রক্তে শর্করাকে নিয়ন্ত্রণ করতে চান তবে এটি করুন।


ত্রিকাটু


এটি তিনটি জিনিসের মিশ্রণ - পিপুল, শুকনো আদা এবং কালো মরিচ। এটি ডায়াবেটিস রোগীদের যকৃত, কিডনি, চোখ এবং নিউরাল সিস্টেম সম্পর্কিত সমস্যাগুলিতে ভাল প্রভাব দেখানো হয়েছে। এটি বাড়িতেও তৈরি করা যায়। এটি মধু মিশ্রিত করা যেতে পারে বা জল দিয়ে নেওয়া যেতে পারে।


ইন্ডিয়ান বারবেরি


এটি অ্যান্টি-ডায়াবেটিক এবং এটি একটি ভাল অ্যান্টিঅক্সিড্যান্টও। গ্লুকোজোজেনেসিস হ্রাস করে গ্লুকোজ হোমিওস্টেসিস নিয়ন্ত্রণে এটি খুব কার্যকর। এর কাটা তৈরি করা হয় এবং মধু দিয়ে নেওয়া হয়।


হরিদ্রা


হরিদ্রা মানে হলুদ। বহু শতাব্দী ধরে হলুদের উদ্ভিদ ভারতে একটি ঐতিহ্যবাহী ওষধ হিসাবে ব্যবহৃত হয়। এটি কফ এবং ডায়াবেটিসের লক্ষণগুলি নিয়ন্ত্রণ করে। আপনি সাধারণত এটি খাবারে মশলা হিসাবে গ্রহণ করেন এবং এটি দুধে যোগ করে পান করেন।


করোলা


এটি সাধারণত সবজি হিসাবে ব্যবহৃত হয়। তবে এর রসও খুব উপকারি। এর ওষধি গুণগুলি রক্তে শর্করার বৃদ্ধি রোধ করে। এটি গ্লাইসেমিক নিয়ন্ত্রণেও কার্যকর।


মেথি


হাইড্রোক্সিসিলুসিন অ্যামিনো অ্যাসিড এবং ফাইবার সমৃদ্ধ। মেথি টাইপ -২ ডায়াবেটিসের সঙ্গে যুক্ত। এটি বিপাক উন্নত করতে সহায়তা করে এবং রক্তে শর্করাকে নিয়ন্ত্রণে রাখে। তবে এটি সীমিত পরিমাণে গ্রহণ করার পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে।


এটিও মাথায় রাখুন


আয়ুর্বেদে ডায়াবেটিস সম্পর্কিত সমস্ত সমস্যার চিকিৎসার বর্ণনা দেওয়া হয়েছে। আয়ুর্বেদিক চিকিৎসার পাশাপাশি জীবনযাত্রার পরিবর্তনগুলিও প্রয়োজনীয়। এর মধ্যে রয়েছে স্বাস্থ্যকর ডায়েট, ব্যায়াম, পর্যাপ্ত বিশ্রাম এবং ঘুম, যা দ্রুত নিয়ন্ত্রণ করতে সহায়তা করবে এবং প্রতিরোধ ক্ষমতা জোরদার করবে।


বিবার্তা/এসএ

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

ময়মনসিংহ রোড, শাহবাগ, ঢাকা-১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2021 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com