জাবালে নূরের মালিকসহ ছয়জনের বিচার শুরু
প্রকাশ : ২৫ অক্টোবর ২০১৮, ১৩:৩৪
জাবালে নূরের মালিকসহ ছয়জনের বিচার শুরু
বিবার্তা প্রতিবেদক
প্রিন্ট অ-অ+

রাজধানীতে বাসচাপায় শহীদ রমিজ উদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট কলেজের দুই শিক্ষার্থী মৃত্যুর ঘটনায় দায়ের মামলায় ছয়জনের বিচার শুরুর আদেশ দিয়েছে আদালত।


মামলার আসামিদের অব্যাহতির আবেদন নামঞ্জুর করে চার্জ গঠন করে আদালত সাক্ষ্যগ্রহণ শুরুর জন্য ১ নভেম্বর দিন ধার্য করে।


ঢাকার মহানগর দায়রা জজ কে এম ইমরুল কায়েসের আদালতে বৃহস্পতিবার উভয়পক্ষের শুনানি শেষে এই আদেশ দেয়া হয়।


মামলার আসামিরা হলেন- জাবালে নূরের মালিক শাহাদাত হোসেন আকন্দ, চালক মাসুম বিল্লাহ, হেলপার এনায়েত হোসেন, চালক জোবায়ের সুমন, অপর বাসমালিক জাহাঙ্গীর আলম ও হেলপার আসাদ কাজী। এদের মধ্যে জাহাঙ্গীর ও আসাদ পলাতক। তাদের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা রয়েছে।


সংশ্লিষ্ট আদালতের রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী তাপস কুমার পাল বলেন, আদালতে চারজন আসামি হাজির ছিল। তাদের বিরুদ্ধে চার্জগঠনের অভিযোগ পড়ে শুনানো হলে তারা নিজেদের নির্দোষ দাবি করেন। পরবর্তীতে তাদের বিরুদ্ধে বিচার শুরুর আদেশ দেয় আদালত।



এর আগে গত ২২ অক্টোবর আদালত এ আসামিদের বিরুদ্ধে চার্জশিট গ্রহণ করে এবং ২৫ অক্টোবর চার্জগঠনের দিন ধার্য করে।


আসামিদের পক্ষ থেকে অব্যাহতির আবেদন করা হলেও বিচারক তা নাকচ করে দণ্ডবিধির ৩০৪, ২৭৯ ও ৩৪ ধারায় অভিযোগ গঠন করেন।


এর মধ্যে ৩০৪ ধারায় প্রাণনাশের অভিযোগ প্রমাণিত হলে আসামিদের সর্বোচ্চ যাবজ্জীবন কারাদণ্ড হতে পারে। আর ২৭৯ ধারায় বেপরোয়া চালনার জন্য তাদের ৩ বছরের সাজা হতে পারে।


গত ৬ সেপ্টেম্বর গোয়েন্দা পুলিশের পরিদর্শক কাজী শরীফুল ইসলাম এ মামলায় ছয়জনের বিরুদ্ধে ঢাকা মুখ্য মহানগর আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন। চার্জশিটে আসামিদের বিরুদ্ধে দণ্ডবিধির ২৭৯, ৩২৩, ৩২৫, ৩০৪ ও ৩৪ ধারায় অভিযোগ আনা হয়। চার্জশিটে ৪১ জনকে সাক্ষী এবং ছয় ধরনের আলামত জব্দ দেখানো হয়, যার মধ্যে রয়েছে তিনটি বাস এবং তিনটি ড্রাইভিং লাইসেন্স।


গত ২৯ জুলাই দুপুরে কালশী ফ্লাইওভার থেকে নামার মুখে এমইএস বাসস্ট্যান্ডে ১৫/২০ জন শিক্ষার্থী দাঁড়িয়ে ছিলেন। এ সময় জাবালে নূর পরিবহনের একটি বাস ফ্লাইওভার থেকে নামার সময় মুখেই দাঁড়িয়ে যায়। এ সময় পেছন থেকে আরেকটি দ্রুতগতি সম্পন্ন জাবালে নূরের বাস ওভারটেক করে সামনে আসতেই নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেল। এতে পিষ্ট হয়ে ঘটনাস্থলেই মারা যায় দুই শিক্ষার্থী দিয়া খানম মিম ও আবদুল করিম এবং বেশ কয়েকজন আহত হন।


ওই ঘটনায় ক্যান্টনমেন্ট থানায় নিহতে মিমের বাবা জাহাঙ্গীর আলম এ মামলা দায়ের করেন।


বিবার্তা/জাকিয়া

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

ময়মনসিংহ রোড, শাহবাগ, ঢাকা-১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com