লেকহেড স্কুল খুলে দেয়ার নির্দেশ
প্রকাশ : ১৪ নভেম্বর ২০১৭, ১৩:৫৫
লেকহেড স্কুল খুলে দেয়ার নির্দেশ
বিবার্তা প্রতিবেদক
প্রিন্ট অ-অ+

২৪ ঘণ্টার মধ্যে বন্ধ হওয়া লেকহেড গ্রামার স্কুল খুলে দেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। হাইকোর্ট একইসঙ্গে শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে দেওয়া স্কুলটি বন্ধের নোটিশকে অবৈধ ঘোষণা করেছেন।


বিচারপতি সৈয়দ মোহাম্মদ দস্তগীর হোসেন ও বিচারপতি মো. আতাউর রহমান খান সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ মঙ্গলবার এ আদেশ দেন। এর আগে স্কুল বন্ধে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের আদেশের বৈধতাকে চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টের দেওয়া রুলের শুনানি সোমবার শেষ হয়।


আদালত বলেছেন, স্কুল কর্তৃপক্ষ অনুমতি ছাড়া স্কুল পরিচালনা করছে এবং জঙ্গিবাদের সঙ্গে যুক্ত মর্মে যে অভিযোগ করা হয়েছে, তা মিথ্যা প্রমাণিত হয়েছে। তবে ভবিষ্যতে জঙ্গিবাদ বা ধর্মীয় উগ্রবাদের বিষয়ে সতর্ক থেকে কোনো তদন্ত করলে স্কুল কর্তৃপক্ষকে সে বিষয়ে সহযোগিতা করতেও নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।


রিট আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন জ্যেষ্ঠ আইনজীবী এ এফ হাসান আরিফ, ব্যারিস্টার আখতার ইমাম ও রাশনা ইমাম। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম ও ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল অমিত তালুকদার।


রায়ের পর ব্যারিস্টার রাশনা ইমাম বলেন, ২৪ ঘণ্টার মধ্যে লেকহেড স্কুলের ধানমন্ডি ও গুলশান শাখা খুলে দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন হাই কোর্ট। একই সঙ্গে ভবিষ্যতে ওই স্কুলের বিষয়ে জঙ্গিবাদসহ সরকারের যে কোনো তদন্তে স্কুল কর্তৃপক্ষকে সহযোগিতা করার নির্দেশ দিয়েছেন।


গত ৯ নভেম্বর রাজধানীর ধানমণ্ডি ও গুলশানের দুটি শাখাসহ লেকহেড গ্রামার স্কুলের সব শিক্ষা কার্যক্রম বন্ধ করা কেন অবৈধ হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেন হাইকোর্ট।


ওই দিন সকালে লেকহেড গ্রামার স্কুলের নতুন মালিক খালেদ হাসান মতিন ও ১২ শিক্ষার্থীর অভিভাবকের পক্ষে ব্যারিস্টার রাশনা ইমাম রিট দায়ের করেন।


গত ৬ নভেম্বর ধানমণ্ডি ও গুলশানের দুটি শাখাসহ লেকহেড স্কুলের সব শিক্ষা কার্যক্রম বন্ধ করার নির্দেশ দেয় শিক্ষা মন্ত্রণালয়। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব সালমা জাহানের সই করা চিঠিতে ঢাকা জেলা প্রশাসককে এ নির্দেশ দেওয়া হয়।


চিঠিতে বলা হয়, এই প্রতিষ্ঠানটি সরকারের অনুমোদন নেয়নি। এ ছাড়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটি ধর্মীয় উগ্রবাদ, উগ্রবাদী সংগঠন সৃষ্টি, জঙ্গি কার্যক্রমে পৃষ্ঠপোষকতাসহ স্বাধীনতার চেতনাবিরোধী কর্মকাণ্ডে যুক্ত বলে চিঠিতে উল্লেখ করা হয়।


জানা গেছে, এই প্রতিষ্ঠানটির মূল উদ্যোক্তা ও পৃষ্ঠপোষক রেজোয়ান হারুন সম্প্রতি লন্ডন থেকে ঢাকায় এসে লাপাত্তা হয়ে যান। এখন পর্যন্ত তাঁকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ। রেজোয়ান হারুনের বিরুদ্ধে জঙ্গিবাদে অর্থায়ন ও মদদের অভিযোগ রয়েছে। চলতি বছরের ২৩ জানুয়ারি শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের একটি প্রতিবেদনে রেজোয়ান হারুনকে আইনের আওতায় আনার নির্দেশনা দেওয়া হয়।



বিবার্তা/ইমদাদ

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com