চিঠি পাওয়ার ২ ঘণ্টা আগে বেনাপোল দিয়ে পালান পি কে হালদার
প্রকাশ : ০১ মার্চ ২০২১, ২০:৩১
চিঠি পাওয়ার ২ ঘণ্টা আগে বেনাপোল দিয়ে পালান পি কে হালদার
বিবার্তা ডেস্ক
প্রিন্ট অ-অ+

প্রশান্ত কুমার (পি কে) হালদার যাতে দেশত্যাগ করতে না পারে সে নির্দেশনাসহ দুদকের চিঠি হাতে পাবার দু’ঘন্টা ৯ মিনিট আগেই ২০১৯ সালের ২৩ অক্টোবর বিকেল ৩টা ৩৮ মিনিটে বেনাপোল স্থলবন্দর দিয়ে বাংলাদেশ থেকে ভারতে পালিয়ে যান।


সোমবার (১ মার্চ) পুলিশের বিশেষ শাখার(এসবি) ইমিগ্রেশন ইউনিটের পক্ষ থেকে সুপ্রিম কোর্টে দায়িত্বরত রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবীকে মৌখিকভাবে এ তথ্য জানানো হয়েছে।


পিকে হালদারকে গ্রেফতার ও তার পাসপোর্ট জব্দ করার নির্দেশ দেওয়ার পরও কিভাবে তিনি দেশত্যাগ করলেন তা নিয়ে গত ১৫ ফেব্রুয়ারি অসন্তোষ প্রকাশ করেন হাইকোর্ট। ওইদিন আদালত পি কে হালদার যেদিন দেশত্যাগ করেন সেদিন হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ইমিগ্রেশনের কারা দায়িত্বরত ছিলেন তাদের নামের তালিকা দাখিল করতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ও পুলিশের আইজিপিকে নির্দেশ দেন। আগামী ১৫ মার্চের মধ্যে এ প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ রয়েছে। এ পরিস্থিতিতে পি কে হালদারের পালানোর বিষয়ে রাষ্ট্রপক্ষকে মৌখিকভাবে তথ্য জানিয়েছে এসবি’র ইমিগ্রেশন ইউনিট।


এসবির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে যে, দুদকের চিঠি পাবার কয়েক ঘন্টা আগেই বেনাপোল স্থলবন্দর দিয়ে ভারতে যান পিকে হালদার।


জানা যায়, পি কে হালদার যাতে দেশত্যাগ করতে না পারে সেজন্য এসবি পুলিশকে ২০১৯ সালের ২২ অক্টোবর চিঠি দেয় দুর্নীতি দমন কমিশন(দুদক)। ইমিগ্রেশন পুলিশকে সতর্ক করতেই এই চিঠি দেওয়া হয়। দুদকের এই চিঠি ডাকযোগে পাঠানো হয়। এর পরদিন ২৩ অক্টোবর বিকেল সাড়ে ৪টায় এই চিঠি পায় এসবি’র সদর দপ্তর। এরপর সদর দপ্তর থেকে এসবি’র সকল ইমিগ্রেশন ইউনিটকে ওইদিন বিকেল ৫টা ৪৭ মিনিটে ইমেইলযোগে এই চিঠি পাঠানো হয়। এই চিঠি পাবার দুইঘন্টা ৯ মিনিট আগেই বাংলাদেশ থেকে পালিয়ে যান পি কে হালদার।


দুদকের আইনজীবী অ্যাডভোকেট খুরশীদ আলম খান বলেন, অনুসন্ধানের স্বার্থেই দুদক আগে থেকেই পদক্ষেপ নিয়েছিল। এরই অংশ হিসেবে পি কে হালদার যাতে দেশত্যাগ করতে না পারে সেজন্য দুদক এসবি’র মাধ্যমে ইমিগ্রেশনকে চিঠি দেয়।


ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল একেএম আমিন উদ্দিন মানিক বলেন, এসবির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে যে, দুদকের চিঠি পাবার কয়েক ঘন্টা আগেই বেনাপোল স্থলবন্দর দিয়ে ভারতে যান পিকে হালদার।


পি কে হালদারের বিরুদ্ধে সাড়ে তিনহাজার কোটি টাকা আত্মসাত ও পাচারের অভিযোগ এখন তদন্তাধীন।বিচারপতি মুহাম্মদ খুরশীদ আলম সরকারের একক হাইকোর্ট বেঞ্চ গতবছর ২১ অক্টোবর এক আদেশে দেশের বিমানবন্দরে পা রাখা মাত্রই পিকে হালদারকে গ্রেপ্তার করতে নির্দেশ দেন। এরপর পি কে হালদারকে ধরতে ইন্টারপোলের সহায়তা চাওয়া হয়।


বিবার্তা/আবদাল

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

ময়মনসিংহ রোড, শাহবাগ, ঢাকা-১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2021 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com