‘এ বছরের মধ্যে দেশকে নিরক্ষরমুক্ত করতে কাজ করবে ছাত্রলীগ’
প্রকাশ : ০৩ জানুয়ারি ২০১৭, ১৬:৪৭
‘এ বছরের মধ্যে দেশকে নিরক্ষরমুক্ত  করতে কাজ করবে ছাত্রলীগ’
তৌফিক ওরিন
প্রিন্ট অ-অ+

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের হাতে গড়া বাংলাদেশ ছাত্রলীগের ৬৯তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী ৪ জানুয়ারি। প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে গ্রহণ করা হয়েছে ব্যাপক প্রস্তুতি। এ নিয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর ক্যান্টিনে বিবার্তা২৪ডটনেটের সঙ্গে কথা বলেছেন বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ। তার সাক্ষাতকার নিয়েছেন বিবার্তার নিজস্ব প্রতিবেদক তৌফিক ওরিন ।


বিবার্তা : ছাত্রলীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িয়ে গেলেন কীভাবে? সংগঠনের বর্তমান অবস্থান পর্যন্ত আসার গল্পটাই বা কেমন?


সাইফুর রহমান সোহাগ : আমি নবম শ্রেণীতে পড়ার সময় থেকে ছাত্রলীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িয়ে যাই। তখন আমার স্কুল ছিল মাদারীপুর সদরের ইউনাইটেড সরকারি ইসলামিয়া উচ্চ বিদ্যালয়। এই স্কুলে একসময় বঙ্গবন্ধুও পড়াশোনা করেছেন। এ কারণে আমি ছাত্রলীগের সঙ্গে জড়িয়ে যাওয়ার জন্য অনুপ্রাণিত হই। এরপর পুরোপুরি রাজনীতির সঙ্গে জড়িয়ে যাই সরকারি নাজিমউদ্দিন বিশ্ববিদ্যালয় কলেজে পড়ার সময়। কলেজ ছাত্রলীগের সদস্য ছিলাম। এরপর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সঙ্গে জড়িয়ে যাওয়া।



বিবার্তা : দক্ষিণ এশিয়ার সর্ববৃহৎ ছাত্রসংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সভাপতি আপনি। এই দায়িত্ব কেমন উপভোগ করছেন?


সাইফুর রহমান সোহাগ : এ দায়িত্ব আমার কাছে সত্যিই অনেক উপভোগ্য। কারণ, ছোটবেলা থেকে নীতি-আদর্শের যে জায়গাটা আমি লালন করেছি, সেটা জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শ। সেই আদর্শেই নিজেকে গড়ে তোলার চেষ্টা করেছি। জাতির জনকের নিজের হাতে গড়া ছাত্রসংগঠনের এই গুরুত্বপূর্ণ পদের দায়িত্ব আমার কাছে সর্বদা সুমহান ও কর্তব্যপূর্ণ বলে বিবেচিত।


বিবার্তা : ৪ জানুয়ারী ছাত্রলীগের ৬৯তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী। এ উপলক্ষে আপনার সংগঠনের প্রস্তুতি কেমন?


সাইফুর রহমান সোহাগ : প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীসংশ্লিষ্ট বিভিন্ন কার্যক্রম পুরোদমে পরিচালিত হচ্ছে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অপরাজেয় বাংলার পাদদেশে ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর সমাবেশ অনুষ্ঠিত হবে। দিনটিকে উৎসবমুখর করতে নয়টি উপ-কমিটি করা হয়েছে এবং ইতোমধ্যে প্রায় সকল প্রস্তুতি শেষ হয়েছে। যেমন, মঞ্চ তৈরির কাজ প্রায় সম্পন্ন। বিভিন্ন ক্যাম্পাসে সাজসজ্জার ব্যবস্থা করা হয়েছে।


এই সংগঠন শুধু ছাত্রসমাজের নয়, দেশের ১৬ কোটি মানুষের প্রিয় সংগঠন। সংগঠনের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠানের সঙ্গে দেশের সকল মানুষকে সংযুক্ত করে আনন্দ ভাগাভাগি করতে চাই।



বিবার্তা : এ বছরে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা নতুন কী দেখতে পাবে?


সাইফুর রহমান সোহাগ : নতুন বছরের অন্যতম আকর্ষণ হচ্ছে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের অনলাইন নাম রেজিষ্ট্রেশন। তাছাড়া শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে ডিজিটাল বাংলাদেশের প্রতিচ্ছবি ফুটে উঠবে এবারের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে।


বিবার্তা : আওয়ামী লীগ সরকারের লক্ষ্য বাস্তবায়নে দেশের অন্যতম ছাত্রসংগঠন হিসেবে ছাত্রলীগের ভূমিকা কি?


সাইফুর রহমান সোহাগ : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভিশন-২০২১ ও ২০৪১ ঘোষণা করেছেন। ২০২১ সালের মধ্যে মধ্যম আয়ের দেশ এবং ২০৪১ সালের মধ্যে একটি উন্নত দেশ হিসেবে বাংলাদেশকে গড়ে তুলতে হবে। সে ভিশন বাস্তবায়নের জন্য ছাত্রলীগ দেশের শিক্ষার্থীদের নিয়ে একসাথে কাজ করবে। তাছাড়া বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের অসমাপ্ত কাজকে সমাপ্ত করতে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভিশন মধ্যম আয়ের দেশ গড়ার লক্ষকে সামনে রেখে বঙ্গবন্ধুর হাতে গড়া প্রিয় সংগঠন ছাত্রলীগ কাজ করে যাবে। যেমন, মুক্তিযুদ্ধে এ সংগঠনের ১৭ হাজার নেতাকর্মী আত্নাহুতি দিয়েছিল, তেমনি এখনও ছাত্রলীগ সকল অপশক্তি বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াবে।



বিবার্তা : ছাত্রলীগের বর্তমান পরিকল্পনা কি?


সাইফুর রহমান সোহাগ : বাংলাদেশ ছাত্রলীগ একটি নতুন পরিকল্পনা হাতে নিয়েছে। সেটি হচ্ছে ২০১৭ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে নিরক্ষরমুক্ত করা। বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়তে শিক্ষার বিকল্প নেই। এ বছরের মধ্যে দেশকে নিরক্ষরমুক্ত করতে কাজ করবে ছাত্রলীগের সকল নেতাকর্মী।


বিবার্তা : ইদানিং অনেক ছাত্র জঙ্গিবাদে জড়িয়ে পড়ছে। ছাত্রলীগের সভাপতি হিসেবে আপনি এটাকে কিভাবে দেখছেন?


সাইফুর রহমান সোহাগ : একসময় বলা হতো, মাদ্রাসার ছাত্ররা জঙ্গি হয়ে থাকে। কিন্তু সম্প্রতি তার ব্যতিক্রম দেখতে পাচ্ছি। উচ্চবিত্ত পরিবারের উচ্চশিক্ষিত ছেলেরাই জঙ্গিবাদে জড়িয়ে পড়ছে। অছাত্রদের সংগঠন ছাত্রদল ও যুদ্ধাপরাধীদের ছাত্রসংগঠন ছাত্রশিবিরের নোংরা রাজনীতি এবং তাদের বিশেষ কৌশলে কিছু কিছু বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে জঙ্গিবাদ মাথাচাড়া দিয়ে উঠছে। ছাত্রলীগ তাদের এই অপচেষ্টা সফল হতে দেবে না। তাই দেশের প্রতিটি কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্ররাজনীতি চালু করা উচিত বলে আমি মনে করি।


বিবার্তা : আমাদের সময় দেয়ার জন্য ধন্যবাদ।


সাইফুর রহমান সোহাগ : বিবার্তাকেও ধন্যবাদ।


বিবার্তা/মৌসুমী/হুমায়ুন

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com