স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেললেন আঙ্গেলা ম্যার্কেল
প্রকাশ : ০৬ জুলাই ২০১৮, ১৬:৫৯
স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেললেন আঙ্গেলা ম্যার্কেল
বিবার্তা ডেস্ক
প্রিন্ট অ-অ+

বার্লিনের ক্ষমতাকেন্দ্রে গত কয়েক সপ্তাহের নাটকের অবসান হলো। জার্মানির সরকারি জোটের তিন শরিক দল অবশেষে শরণার্থী ও অভিবাসন সংক্রান্ত সার্বিক নীতি নিয়ে ঐকমত্যে পৌঁছলো।


শরণার্থী নীতি নিয়ে জার্মানির রক্ষণশীল ইউনিয়ন শিবিরের দুই দলের মধ্যে বিবাদ এমন সর্বনাশা রূপ নিয়েছিল, যার ফলে চ্যান্সেলর আঙ্গেলা ম্যার্কেল, বর্তমান জোট সরকার এবং ইউনিয়ন শিবিরের অস্তিত্বই প্রশ্নের মুখে পড়েছিল। তবে বৃহস্পতিবার জোট সরকারের তিন শরিক দল আলোচনার মাধ্যমে সব অনিশ্চয়তা দূর করে ফেলেছে। আর এর ফলে অবশেষে স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলতে পারছেন আঙ্গেলা ম্যার্কেল।


সমঝোতা অনুযায়ী শুধু বাভেরিয়া নয়, জার্মানির সীমান্ত বরাবর বেআইনি অভিবাসন রুখতে একাধিক পদক্ষেপ নিতে চলেছে জার্মানির সরকার, বিশেষ করে যেসব শরণার্থীর জার্মানিতে আশ্রয় পাবার কোনো সম্ভাবনা নেই, তাঁদের দ্রুত বহিষ্কার করতে আরও দ্রুত পদক্ষেপ নেয়া হবে। সেইসঙ্গে এসপিডি দল অভিবাসন সংক্রান্ত একটি আইন প্রণয়নের ব্যাপারে বাকি দুই শরিকের সম্মতি আদায় করতে পেরেছে। এর আওতায় জার্মানির চাহিদা অনুযায়ী কিছু ক্ষেত্রে দক্ষ বিদেশি কর্মীদের অভিবাসন ত্বরান্বিত করা হবে।


তবে জার্মানির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও বাভেরিয়ার সিএসইউ দলের নেতা হর্স্ট সেহোফার বাভেরিয়া সীমান্ত থেকে অবৈধ শরণার্থীদের বিদায় করতে যে ‘ট্রানজিট সেন্টার' গড়ে তোলার দাবি করেছিলেন, সেই প্রক্রিয়ায় কিছু কাটছাঁট করা হয়েছে। প্রথমত, ইউরোপীয় ইউনিয়নের অন্য কোনো দেশে রাজনৈতিক আশ্রয়ের আবেদন করলে তবেই কোনো শরণার্থীকে সীমান্ত থেকে বিদায় করার চেষ্টা করা হবে। সেক্ষেত্রে জার্মানির সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক চুক্তির আওতায় তাকে ফেরত পাঠানো হবে। আলাদা করে ‘ট্রানজিট সেন্টার' না গড়ে সীমান্তের কাছে জার্মান ফেডারেল পুলিশ বাহিনীর কেন্দ্রগুলিতেই বর্তমান আইনমতে ধৃত ব্যক্তিদের ৪৮ ঘণ্টা পর্যন্ত আটক রাখা যেতে পারে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী হিসেবে সেহোফারকেই ইটালি ও গ্রিসের সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক চুক্তি স্বাক্ষরের প্রচেষ্টা চালাতে হবে। কেননা, এই দুই দেশ হয়েই বেশিরভাগ শরণার্থী বাভেরিয়া সীমান্তে আসে।


নিজের দাবি পুরোপুরি পূরণ না হওয়া সত্ত্বেও সরকারি জোটের এমন সিদ্ধান্তের ফলে অভিভূত সেহোফার। তিনি বলেন, দায়িত্বপ্রাপ্ত মন্ত্রী হিসেবে এর থেকে বেশি কিছু চাওয়ার থাকতে পারে না। সূত্র : ডয়চে ভেলে


বিবার্তা/হুমায়ুন/সোহান

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

ময়মনসিংহ রোড, শাহবাগ, ঢাকা-১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com