রোহিঙ্গা ইস্যুতে যুক্তরাষ্ট্রের মন্তব্যের কড়া প্রতিবাদ চীনের
প্রকাশ : ২৪ অক্টোবর ২০২০, ১৯:১৩
রোহিঙ্গা ইস্যুতে যুক্তরাষ্ট্রের মন্তব্যের কড়া প্রতিবাদ চীনের
বিবার্তা ডেস্ক
প্রিন্ট অ-অ+

রোহিঙ্গা সঙ্কট সমাধানে চীন খুব সামান্য অবদান রাখছে বলে যুক্তরাষ্ট্রের উপ-পররাষ্ট্রমন্ত্রী স্টিফেন ই বিগান যে মন্তব্য করেছেন তার কড়া প্রতিবাদ জানিয়েছে ঢাকাস্থ চীনা দূতাবাস।


শনিবার (২৪ অক্টোবর) চীনা দূতাবাসের ফেসবুক পেজে শেয়ার করা এক পোস্টে বলা হয়, সম্প্রতি ভারত ও বাংলাদেশ সফর শেষে মার্কিন উপ-পররাষ্ট্রমন্ত্রী স্টিফেন ই বিগান ওয়াশিংটন ডিসিতে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে বলেছেন- দুর্ভাগ্যক্রমে চীন রোহিঙ্গা ইস্যু সমাধানে সহায়তা করার জন্য খুব কম কাজ করেছে।সবার প্রত্যাশা বিগানের এ সফর বাংলাদেশ-মার্কিন সম্পর্কের দিকে নজর দেবে।


দূতাবাস আরো বলছে, চীন-ভারত সীমান্ত সংঘাত, তাইওয়ান প্রণালীতে উত্তেজনা, দক্ষিণ চীন সাগরের সমস্যা এবং হংকংয়ের জাতীয় সুরক্ষা আইন প্রসঙ্গে ১৫ অক্টোবর বিগান বাংলাদেশ ছাড়ার আগেই চীনের বিরুদ্ধে ভিত্তিহীন অভিযোগ শুরু করেছিলেন। এসব ইস্যুর সঙ্গে বাংলাদেশের কোনো সম্পর্ক নেই।


দূতাবাসের পোস্টে বলা হয়, এ ধরনের আচরণ কেবল কূটনৈতিক নীতিমালার মারাত্মক লঙ্ঘন নয়, সফরটির আয়োজক দেশের প্রতিও অশ্রদ্ধা। বাংলাদেশ একটি শান্তিপ্রেমী দেশ, যাদের নীতি-সবার সঙ্গে বন্ধুত্ব এবং কারও সঙ্গে শত্রুতা নয়।


চীনা দূতাবাস বলছে, বিগানের ২০ অক্টোবরের মন্তব্য কেবল এ রকম আচরণের ধারাবাহিকতা, যেখানে বাংলাদেশের গুরুতর উদ্বেগের বিষয় রোহিঙ্গা ইস্যুকে ব্যবহার করা হয়েছে চীনের সমালোচনা এবং নিজের পক্ষপাতিত্ব প্রচার করতে।


দূতাবাস বলেছে, যেহেতু চীন এবং যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যকার সমস্যাগুলো সমাধানে আমাদের প্রচুর দ্বিপক্ষীয় চ্যানেল রয়েছে, তাই সম্মতি ছাড়াই বিগানের কোনো তৃতীয় পক্ষকে টেনে আনা উচিত হয়নি।


দূতাবাস জানায়, ২০১৭ সাল থেকে চীন রোহিঙ্গা ইস্যুতে তিন দফায় মন্ত্রী পর্যায়ের বৈঠক এবং কর্মপর্যায়ে বহু দ্বিপক্ষীয় ও ত্রিপক্ষীয় পরামর্শ সভা করেছে।
আমাদের রাজনৈতিক এবং মানবিক প্রচেষ্টা শুরুতেই আরম্ভ হয়েছে এবং সমাধান না পাওয়া পর্যন্ত অব্যাহত থাকবে।


প্রসঙ্গত, গত ২০ অক্টোবর যুক্তরাষ্ট্রের উপ-পররাষ্ট্রমন্ত্রী স্টিফেন ই বিগান বলেছেন,রোহিঙ্গাদের সংকট নিরসনে চীনের ভূমিকা খুবই নগন্য।


বিগান বলেন, এটা অত্যন্ত দুর্ভাগ্যজনক যে চীন রোহিঙ্গা ইস্যু সমাধানে খুবই সামান্য অবদান রেখেছে। পিপলস রিপাবলিক অব চায়না রোহিঙ্গাদের এই বিপর্যয়ে সৃষ্ট সংকট সমাধানে আরো বড় ধরনের ভূমিকা রাখা উচিৎ ছিল। তারা এ সংকট নিরসনে আরো বেশি কিছু করবে বলে আশা করা হয়েছিল।


তিনি বলেন, যুক্তরাষ্ট্র রোহিঙ্গা সংকট নিরসনে মিয়ানমারকে বার্তা দিতে ইন্দো-প্যাসিফিক অঞ্চলের অন্যান্য দেশ বিশেষত চীনের পক্ষ থেকে একই ধরনের উদারতা ও স্পষ্টতা আশা করে।সংকটটি নিরসনের একটি উপায় বের করতে এ অঞ্চলের সকল দেশকে এগিয়ে আসতে হবে।এই সংকট নিরসনে যুক্তরাষ্ট্র বাংলাদেশ সরকারের সাথে নিবিড়ভাবে কাজ করে যাচ্ছে।


মার্কিন উপ-পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আমরা এই শরণার্থী জনগোষ্ঠীর মানবিক প্রয়োজন মেটাতে সমান গুরুত্ব সহকারে কাজ করে যাচ্ছি। কিন্তু আমাদের একটি টেকসই সমাধানের উপায় বের করতে হবে।
বিবার্তা/আবদাল

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

ময়মনসিংহ রোড, শাহবাগ, ঢাকা-১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com