ফিলিস্তিনে ১৫ বছর পর নির্বাচন আয়োজনে সম্মত হামাস ও ফাতাহ
প্রকাশ : ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১৩:২৪
ফিলিস্তিনে ১৫ বছর পর নির্বাচন আয়োজনে সম্মত হামাস ও ফাতাহ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রিন্ট অ-অ+

প্রায় ১৫ বছর পর ফিলিস্তিনে নির্বাচন আয়োজনে সম্মত হয়েছে ফিলিস্তিনিদের সবচেয়ে বড় দুই দল ফাতাহ ও হামাস। ফাতাহ নেতা মাহমুদ আব্বাস ও হামাসের প্রধান রাজনীতিবিদ ইসমাইল হানিয়া বৃহস্পতিবার নির্বাচন আয়োজনে চুক্তি করার ঘোষণা দিয়েছেন।


চুক্তি অনুসারে, ছয় মাসের মধ্যে নির্বাচনের সময় নির্ধারণ করা হবে। হামাস জানিয়েছে, তুরস্কে আয়োজিত এক বৈঠকে এ চুক্তিতে সম্মত হয়েছে দুই পক্ষ। এ খবর দিয়েছে আল জাজিরা।


খবরে বলা হয়, সর্বশেষ ফিলিস্তিনি পার্লামেন্টারি নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছিল ২০০৬ সালে। ওই নির্বাচনে নিরঙ্কুশ জয় পেয়েছিল হামাস। নির্বাচন শেষে দুই পক্ষ মিলে একটি জোট সরকার গঠন করেছিল দুই পক্ষ। তবে বেশ দ্রুতই ভেঙে পড়ে ও দুই পক্ষের মধ্যে সহিংস সংঘাত সৃষ্টি হয়। এরপর প্রায় ১৫ বছর ধরে আর কোনো নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়নি।


বৃহস্পতিবার নতুন নির্বাচনের ঘোষণা প্রসঙ্গে জ্যেষ্ঠ ফাতাহ কর্মকর্তা জিবরিল রাজৌব বলেন, আমরা একটি বিধানিক নির্বাচন, পরে ফিলিস্তিনি কর্তৃপক্ষের প্রেসিডেন্ট নির্বাচন ও সবশেষে ফিলিস্তিন মুক্তি সংগঠন (পিএলও)-এর কেন্দ্রীয় পরিষদের একটি নির্বাচন আয়োজনের বিষয়ে সম্মত হয়েছি।


এদিকে, শীর্ষ হামাস কর্মকর্তা সালেহ আল-আরৌরি বার্তা সংস্থা এএফপিকে জানিয়েছে, তুরস্কে আয়োজিত এক বৈঠকে নির্বাচনের ব্যাপারে সম্মত হয়েছে দুই পক্ষ। তিনি বলেন, এবার আমরা একটি সত্যিকার ঐক্যমত্যে পৌঁছাতে পেরেছি। বিভাজন ইতিমধ্যে আমাদের জাতীয় লক্ষ্যকে ক্ষতিগ্রস্থ করেছে। আমরা বিভাজনের অবসান ঘটাতে কাজ করছি।


বৃহস্পতিবার ফাতাহ’র কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য হুসেইন আল শেখ হামাসের সঙ্গে আলোচনাকে ইতিবাচক ও ফলপ্রসূ বলে বর্ণনা করেন। এক টুইটে তিনি লিখেন, পুনর্মিলন ও অংশীদারিত্বের দিকে এই আলোচনা এক গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ। একইসঙ্গে ফিলিস্তিনি লক্ষ্যকে ধ্বংস করতে চলমান সকল প্রকল্পকে অস্বীকৃতি দিয়ে ঐক্যমত্যের আলোতে ফিলিস্তিনি অবস্থানকে এক করার দিকেও বড় পদক্ষেপ এটি।


খুব শিগগিরই দুই পক্ষের অন্যান্য কর্মকর্তারা বৃহস্পতিবারের চুক্তি বিষয়ে বিস্তারিত ঘোষণা দেওয়ার কথা রয়েছে। এছাড়া, নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার আগ পর্যন্ত দুই পক্ষের মধ্যে সমন্বয়ের ব্যাপারেও কাজ করা হবে বলে জানানো হয়েছে।


একে একে আরব দেশগুলো যখন ইসরাইলের সঙ্গে আনুষ্ঠানিকভাবে সম্পর্ক স্বাভাবিক করার ঘোষণা দিচ্ছে, তখনই নির্বাচনের বিষয়ে ঐক্যমত্যে পৌঁছেছে হামাস ও ফাতাহ। চলতি মাসে ফিলিস্তিনের অন্যতম দুই মিত্র- সংযুক্ত আরব আমিরাত ও বাহরাইন ইসরাইলকে স্বীকৃতি দিয়েছে। আরো কয়েকটি আরব দেশ এমনটা করতে যাচ্ছে বলে গুঞ্জন রয়েছে। এমতাবস্থায় তুর্কি প্রেসিডেন্ট রিসেপ তায়্যিপ এরদোগানের কাছে হামাসের সঙ্গে বিবাদ মিটমাট করতে সহায়তা চেয়েছেন মাহমুদ আব্বাস। এরপরই ইস্তাম্বুলে দুই পক্ষের মধ্যে বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।


বিবার্তা/এসএ

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

ময়মনসিংহ রোড, শাহবাগ, ঢাকা-১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com