ঝাড়খণ্ডে ১৮ ঘণ্টা ধরে পিটিয়ে হত্যা মুসলিম যুবককে
প্রকাশ : ২৪ জুন ২০১৯, ১৫:৩২
ঝাড়খণ্ডে ১৮ ঘণ্টা ধরে পিটিয়ে হত্যা মুসলিম যুবককে
আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রিন্ট অ-অ+

ভারতের ঝাড়খণ্ড রাজ্যে গণপিটুনিতে তাবরেজ আনসারি (২৪) নামে এক মুসলিম যুবক নিহত হয়েছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নির্মমভাবে পেটানোর কয়েকটি ভিডিও ভাইরাল হয়ে ওঠায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।


একটি বৈদ্যুতিক খুঁটিতে বেঁধে তাকে মারধরসহ নির্যাতন চালানো হয়। তাবরেজের পরিবার জানিয়েছে, পুণেতে ঝালাই মিস্ত্রির কাজ করতেন ২৪ বছরের ওই যুবক। ঈদ উপলক্ষে তিনি বাড়ি এসেছিলেন।


১৮ তারিখে আরো দু’জনের সঙ্গে জামশেদপুর যাবেন বলে বেরিয়েছিলেন তিনি। ভিডিওতে শোনা যায়, তাবরেজ বলছেন, ওই দু’জন তাকে একটি মোটরবাইকের সামনে অপেক্ষা করতে বলেছিল। পরে দু’জনই পালিয়ে যায়।


ইন্টারনেটে ছড়িয়ে পড়া এক ভিডিওতে দেখা যায়, তাবরেজকে পেটাতে পেটাতে একজনের লাঠি ভেঙে যাচ্ছে। তাবরেজ এ সময় বুকফাটা আর্তনাদ করলেও ওই ঘাতকরা তাতে কান দেয়নি।


অনেক পরে পুলিশ এসে তাকে উদ্ধার করে চুরির অভিযোগে কোর্টে তোলে। সেখান থেকে জেল হেফাজতে পাঠানো হয়। তার অবস্থা খারাপ হলে তাকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। শনিবার মারা যায় ওই যুবক।


যদিও সমাজকর্মীদের অভিযোগ, হাজতে মৃত্যুর পরেই তাকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল।


পুলিশ ওই ঘটনায় পাপ্পু মণ্ডল নামে এক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করেছে। অজ্ঞাতপরিচয় আরো ১০০ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ করা হয়েছে এফআইআরে। পাপ্পুর সাথে হিন্দুত্ববাদী সংগঠনের যোগ পাওয়া যায়নি বলে পুলিশ দাবি করেছে।


১৭ জুন রাতে চোর সন্দেহে গ্রামের কিছু মানুষ ওই যুবককে জোর করে ‘জয় শ্রীরাম’ ও ‘জয় হনুমান’ ধ্বনি দিতে বললে ওই যুবক সেই ধ্বনি দিলেও তাকে নির্মমভাবে লাঠিপেটা থেকে রেহাই দেয়া হয়নি। তাকে কমপক্ষে ১৮ ঘণ্টা ধরে মারধর করা হয়।


এ ব্যাপারে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের সাবেক এমপি ও কলকাতা হাইকোর্টের সিনিয়র আইনজীবী সরদার আমজাদ আলী বলেছেন, বিশেষ ধর্মোন্মাদনা নিয়ে কিছু মানুষের উপরে যে নির্যাতন অন্য ধর্মের মানুষের উপরে, এখানে একটা-দুটো-তিনটে যা কিছুই ঘটনা ঘটুক না কেন বহির্বিশ্বে এর খারাপ প্রভাব পড়তে বাধ্য। সেই ধরণের অবস্থান থেকে বিরত রাখার দায়িত্ব কিন্তু সরকারের। সরকারের তীক্ষ্ণ নজরদারি ও প্রশাসনিক তৎপরতার প্রয়োজন।


তাবরেজ আনসারির স্ত্রী শায়েস্তা পারভীন গণমাধ্যমকে বলেন, আমি পুলিশে লিখিত অভিযোগ করেছি। আমি সুবিচার চাই। তাবরেজের বয়স মাত্র ২৪, তাকে হত্যা করা হয়েছে। ওই ঘটনায় পুলিশ ও কারাগার কর্তৃপক্ষের গাফিলতি রয়েছে। এর উচ্চপর্যায়ে তদন্ত হওয়া উচিত।


পুলিশের এক কর্মকর্তা গাফিলতির অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, গ্রামবাসীরা চুরির অভিযোগে ওকে আমাদের কাছে হস্তান্তর করেছিল। তার বিরুদ্ধে চুরির অভিযোগ করা হয়। তাকে চিকিৎসা করার পরে কোর্টে পাঠানো হলে আদালত তাকে সরাইকেলা কারাগারে পাঠায়।


ঝাড়খণ্ড জনঅধিকার মোর্চার এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, রাজ্যটিতে বর্তমান বিজেপি সরকারের আমলে কমপক্ষে ১২ জন লোক গণপিটুনিতে মারা গেছে। এদের মধ্যে ১০ জনই মুসলিম। অন্য দু’জন আদিবাসী। অভিযুক্তদের মধ্যে অধিকাংশই হল বিজেপি, বিশ্ব হিন্দু পরিষদ ও তাদের সহায়ক সংগঠনের সদস্য।


এদিকে যুক্তরাষ্ট্র সরকারের রিপোর্ট খারিজ করে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির পররাষ্ট্রমন্ত্রণালয় দাবি করেছে, ভারতে সংখ্যালঘুদের অধিকার সুরক্ষিত! সূত্র: পার্সটুডে ও আনন্দবাজার পত্রিকা


বিবার্তা/জাকিয়া


সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

ময়মনসিংহ রোড, শাহবাগ, ঢাকা-১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com