‘২০ মিনিট একা মোদির মুখোমুখি হতে চাই’
প্রকাশ : ০৩ জানুয়ারি ২০১৯, ১০:৪০
‘২০ মিনিট একা মোদির মুখোমুখি হতে চাই’
আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রিন্ট অ-অ+

জ্যাকেটের বাঁ দিকের পকেট থেকে মোবাইলটা বের করলেন ভারতের প্রধান বিরোধীদল কংগ্রেসের সভাপতি রাহুল গান্ধী। স্পিকারকে প্রশ্ন করলেন, ম্যাডাম আমি একটা টেপ চালাতে পারি?


শুনেই রে-রে করে উঠলেন ক্ষমতাসীন দল বিজেপির অরুণ জেটলি, নির্মলা সীতারামনরা। জেটলি বললেন, ম্যাডাম, এই টেপ ভুয়া। উনি আগেও মিথ্যে বলেছেন। এবারেও বলছেন।


এক গাল হেসে রাহুল জবাব দিলেন, জানি আপনারা ভয় পাচ্ছেন।


কী সেই টেপ? বুধবার সকালেই একটি অডিও টেপ প্রকাশ করেছে কংগ্রেস। তাদের দাবি, এটি গোয়ার স্বাস্থ্যমন্ত্রী বিশ্বজিৎ রানে এবং একজন অজ্ঞাত পরিচয় ব্যক্তির টেলিফোন কথোপকথন। যাতে বিশ্বজিৎ বলছেন, মুখ্যমন্ত্রী তথা সাবেক প্রতিরক্ষামন্ত্রী মনোহর পারিকর মন্ত্রিসভার বৈঠকে বলেছেন, তার বেডরুমে রাফালের নথি রাখা আছে। এমন কথোপকথনের কথা অস্বীকার করেছেন পারিকর ও রানে দু’জনেই। কিন্তু তাতে রাফাল-বিতর্কে লোকসভা তপ্ত হওয়া আটকায়নি।


স্পিকারের আপত্তিতে লোকসভায় অডিও টেপ শোনাতে পারেননি রাহুল। তবে তীব্র আক্রমণ করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে। মঙ্গলবার সংবাদমাধ্যমকে দেয়া সাক্ষাৎকারে গান্ধী পরিবারকে যে আক্রমণ করেছিলেন মোদি, রাহুল এ দিন চেষ্টা করেছেন তা ফিরিয়ে দেয়ার।


ওইদিন মোদি দাবি করেছিলেন, রাফাল নিয়ে তার বিরুদ্ধে কোনো অভিযোগ নেই। যা অভিযোগ, সবই তার সরকারের বিরুদ্ধে। তবে রাহুলের দাবি, রাফাল-দুর্নীতি নিয়ে গোটা দেশ প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধেই অভিযোগ করছে।


পরে সন্ধ্যায় দলীয় দফতরে সংবাদ সম্মেলন করে মোদির দিকে আরো বড় চ্যালেঞ্জ ছুড়েছেন কংগ্রেস সভাপতি। তিনি বলেছেন, ২০ মিনিট একা মোদির মুখোমুখি হতে চাই। জিজ্ঞাসা করতে চাই, সেনা নতুন চুক্তির বিরোধ করেছিল কি না? প্রধানমন্ত্রীকে নাক না-গলানোর কথা বলেছিল কি না? বিমান-পিছু ৫৬০ কোটির বদলে ১৬০০ কোটি রুপি দেয়ার সিদ্ধান্ত কার? ১২৬টির বদলে ৩৬টি বিমান কেনার সিদ্ধান্ত কে নিল? যে অনিল আম্বানি একটিও বিমান বানাননি, হ্যালের বদলে তাকে বরাত দেয়ার সিদ্ধান্ত কার?


এদিকে রাহুলকে মোকাবেলায় সরকার পক্ষের হয়ে এ দিন আসরে নেমেছিলেন জেটলি। রাফাল নিয়ে যৌথ সংসদীয় কমিটি তৈরির দাবি খারিজ করে তার পাল্টা অভিযোগ, অতীতে যারা একাধিক প্রতিরক্ষা চুক্তি নিয়ে কেলেঙ্কারি করেছেন, তারাই আজ আঙুল তুলছেন মোদির দিকে।


এরপরেই বফোর্স প্রসঙ্গ টেনে আনেন জেটলি। তিনি বলেন, আপনি ছোটবেলায় ‘কিউ’-এর (কুত্রোচ্চি) কোলে খেলতেন। ডায়েরিতে লেখা ছিল, তাকে যে কোনো মূল্যে বাঁচাতে হবে। হেরাল্ড মামলায় এখন আপনার পরিবার জামিনে রয়েছে। এখন যিনি জেলে (ক্রিশ্চিয়ান মিশেল), তিনি বলছেন ‘মিসেস গান্ধী’, ‘বিগ নেম আর’, ‘ইতালীয়র পুত্রের কথা’।


জেটলির আরো কটাক্ষ, একজন শিশুও জানে যুদ্ধবিমান কাকে বলে। দুর্ভাগ্যের বিষয় হল, এত পুরনো দলের নেতৃত্ব যার হাতে, তিনি যুদ্ধবিমান কী তা-ই জানেন না। কিছু লোক ও তাদের পরিবার শুধু অর্থ চেনে, জাতীয় নিরাপত্তার কিছু বোঝে না।


লোকসভায় জেটলি যখন আক্রমণ করেন গান্ধী পরিবারের দিকে, তখন ওয়েলে নেমে আসেন কংগ্রেস এমপিরা। সোনিয়া গান্ধী ও রাহুল অবশ্য নিজেদের আসনেই ছিলেন। সূত্র: আনন্দবাজার পত্রিকা


বিবার্তা/জাকিয়া

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: bbartanational@gmail.com, info@bbarta24.net

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com