‘কোহিনূর’ ব্রিটিশদের দিতে বাধ্য হয়েছিলেন মহারাজা দিলীপ
প্রকাশ : ১৭ অক্টোবর ২০১৮, ১২:৩৬
‘কোহিনূর’ ব্রিটিশদের দিতে বাধ্য হয়েছিলেন মহারাজা দিলীপ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রিন্ট অ-অ+

কোহিনূর, এখন যা ইংরেজদের সম্পত্তি, সেই মহামূল্যবান রত্নটি নিয়ে গল্পের শেষ নেই। কোথা থেকে এর উৎপত্তি, এর আসল মালিক কে? এসব নিয়ে বিস্তর বিতর্ক আছে।


কেউ দাবি করেন, ভারতীয় রাজারা স্বেচ্ছায় কোহিনূর ব্রিটিশ মহারানির হাতে তুলে দিয়েছিলেন, আবার অনেকে দাবি করেন কোহিনূর জোর করে ছিনিয়ে নিয়েছিল ব্রিটিশরা। এমন হাজারো জনশ্রুতির মধ্য আসল তথ্য দিল আর্কিওলজিক্যাল সার্ভে অব ইন্ডিয়া (এএসআই)। আর এই সরকারি সংস্থার দেয়া তথ্যে আরো বেড়েছে বিতর্ক।


কোহিনূরের বর্তমান ওজন ১০৫.৬ ক্যারেট। এক সময় এর ওজন ছিল ১৮৬ ক্যারেট, যা কিনা বিশ্বের বৃহত্তম হীরের টুকরো। এর কাটাইয়ের ধরন দেখলেই বোঝা যায় এটি মোঘল আমলে তৈরি। অবিভক্ত ভারতবর্ষে বহুবার হাত বদলের পর ১৮৪৯ সালে মহারাজা দিলীপ সিংয়ের কাছ থেকে এই হীরাটি চলে যায় ব্রিটেনের মহারানি ভিক্টোরিয়ার কাছে। তারপর থেকেই এটি ইংরেজদের সংগ্রহশালার শোভা বাড়াচ্ছে।


কিন্তু প্রশ্ন হল কীভাবে কোহিনূর গেল ইংরেজদের হাতে। তা জানতে চেয়ে তথ্য অধিকার আইনে (আরটিআই) ভারতের প্রধানমন্ত্রীর দফতরে আবেদন করেন অধিকারকর্মী রোহিত শোভ্রাওয়াল। প্রশ্নটি আর্কিওলজিক্যাল সার্ভে অব ইন্ডিয়ার কাছে পাঠায় প্রধানমন্ত্রীর দফতর। এএসআই জানিয়েছে, কোহিনূর স্বেচ্ছায় ব্রিটিশ সরকারের হাতে তুলে দেয়নি ভারত। বরং তা এক প্রকার ছলনা করে নেয়া হয়েছিল।


একটি সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত খবর অনুযায়ী, ওই হীরাটি মহারাজা দিলীপ সিংয়ের কাছে থেকে ছিনিয়ে নিয়েছিল ইংরেজরা। ১৮৪৯ সালে ইঙ্গ-শিখ যুদ্ধের পর মহারাজা দিলীপ সিং এবং লর্ড ডালহৌসির মধ্যে লাহোর চুক্তি হয়। সেই চুক্তিতেই কোহিনূর ব্রিটেনকে দিয়ে দেয়ার শর্ত দেয়া হয়।


পরে যুদ্ধের ক্ষতিপূরণ বাবদ কোহিনূর দাবি করে ব্রিটিশরা। সেই চুক্তির অন্যতম শর্ত হিসেবেই রানি ভিক্টোরিয়াকে কোহিনুর হিরে দিতে বাধ্য হয়েছিলেন লাহোরের মহারাজা দিলীপ সিং। কিন্তু সে সময় তার বয়স ছিল মাত্র ৯ বছর।


তাই তিনি ওই হীরার গুরুত্ব বুঝতে পারেননি বলে জানিয়েছে এএসআই। তাকে ফাঁকি দিয়েই হীরার কথা চুক্তিতে লেখা হয়েছিল বলে দাবি করেছেন, মহারাজা দিলীপ সিং মেমোরিয়াল ট্রাস্টের চেয়ারম্যানও। তার দাবি, কোহিনূর হাতিয়ে নিতে ছলনার আশ্রয় নিয়েছে ব্রিটেন, তাই ওই হীরাতে ভারতেরই প্রথম অধিকার।


এএসআই আবার জানিয়েছে, ভারত এখনো ইংল্যান্ডের কাছ থেকে হীরাটি ফিরিয়ে আনার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। সূত্র: সংবাদ প্রতিদিন


বিবার্তা/জাকিয়া

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: bbartanational@gmail.com, info@bbarta24.net

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com