রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় সম্পন্ন হলো বাজপেয়ীর শেষকৃত্য
প্রকাশ : ১৭ আগস্ট ২০১৮, ২১:২৭
রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় সম্পন্ন হলো বাজপেয়ীর শেষকৃত্য
কলকাতা প্রতিনিধি
প্রিন্ট অ-অ+

পূর্ণ রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় শেষকৃত্য সম্পন্ন হলো ভারতের সাবেক প্রধানমন্ত্রী অটল বিহারী বাজপেয়ীন (৯৩)। শুক্রবার বিকালে দিল্লির রাষ্ট্রীয় স্মৃতি স্থলে তাঁর অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া সম্পন্ন হয়।


সেখানে সেনাবাহিনীর পক্ষে তাঁকে গান স্যালুট দেয়া হয়। পরে হিন্দু রীতি মেনেই তাঁকে দাহ করা হয়। বাজপেয়ীর মুখাগ্নি করেন তাঁর পালিতা কন্যা নমিতা কাউল ভট্টাচার্য।


তাঁকে শ্রদ্ধা জানাতে নিয়ম ভেঙে এই স্মৃতি স্থলেই বাজপেয়ীর নামে একটি স্মারক তৈরি করা হবে বলে জানা গেছে।


এর আগে স্মৃতি স্থলে শায়িত তাঁর মরদেহের প্রতি শ্রদ্ধা জানান ভারতের রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ, উপরাষ্ট্রপতি ভেঙ্কাইয়া নাইডু, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, লোকসভার স্পিকার সুমিত্রা মহাজন, প্রতিরক্ষামন্ত্রী নির্মলা সীতারামণ, বাজপেয়ীর নিকটতম বন্ধু ও বিজেপি নেতা লালকৃষ্ণ আডবানী, দলটির সভাপতি অমিত শাহ, দেশটির সাবেক প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং। প্রয়াত শ্রদ্ধা জানান ভারতের স্থল, নৌ ও বিমানবাহিনীর প্রধানগণ।


বাজপেয়ীকে শেষ শ্রদ্ধা জানাতে এদিন রাষ্ট্রীয় স্মৃতিস্থলে উপস্থিত ছিলেন ভুটানের রাজা জিগমে কেশর নামগিয়াল ওয়াঙচুক, শ্রীলঙ্কার কার্যকরী পররাষ্ট্রমন্ত্রী লক্ষণ কিরিয়েলা, আফগানিস্তানের সাবেক প্রেসিডেন্ট হামিদ কারজাই, পাকিস্তানের আইনমন্ত্রী সৈয়দ আলি জাফর, নেপালের সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী প্রদীপ কুমার গওয়ালি, বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলি প্রমুখ।


ভারতের সাবেক প্রধানমন্ত্রীকে শ্রদ্ধা জানাতে গিয়ে বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধের সময় বাজপেয়ীর অবদান ও বাংলাদেশের মানুষের পাশে দাঁড়ানোর কথা আজও স্মরণ করি। বাংলা সঙ্গীতের প্রতি তাঁর খুব ভালবাসা ছিল। তিনি যখন ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ছিলেন তখন আমি দিল্লিতে কূটনৈতিকের দায়িত্ব পালন করার সুযোগ হয়েছিল।’


রাষ্ট্রীয় স্মৃতি স্থলে ভারতের সাবেক প্রধানমন্ত্রীর শেষকৃত্য অনুষ্ঠানে এদিন উপস্থিত ছিলেন ভারতের কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার সদস্যবৃন্দ, কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী, দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়ালসহ আসাম, মনিপুর, গুজরাট, মহারাষ্ট্র, মধ্যপ্রদেশ, ছত্তিশগড়, উত্তরপ্রদেশসহ একাধিক রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীরা, দেশটির শীর্ষ রাজনীতিবিদ, আরএসএস প্রধান মোহন ভাগবত, ভারতে নিযুক্ত বিভিন্ন রাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূতরা। শেষকৃত্যে উপস্থিত ছিলেন বাজপেয়ীর পালিতা কন্যা নমিতা কাউল ভট্টাচার্য, তাঁর স্বামী রঞ্জন ভট্টাচার্য, তাদের কন্যা নিহারীকা সহ পরিবারের সদস্যরাও।


এর আগে এদিন সকালে দিল্লির ৬ নম্বর কৃষ্ণ মেনন মার্গে তাঁর বসভবনে প্রয়াত বাজপেয়ীকে শেষ শ্রদ্ধা জানান ভারতের তিন বাহিনীর প্রধান, কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী, অন্ধ্রপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী এন.চন্দ্রবাবু নাইডুসহ একাধিক নেতা।


কৃষ্ণ মেনন মার্গ থেকে সকাল নয়টায় তিরঙ্গা পতাকায় মোড়ানো বাজপেয়ীর নিথর দেহ নিয়ে আসা হয় দিল্লির দীন দয়াল উপাধ্যায় মার্গে দিল্লির বিজেপির সদর কার্যালয়ে। সেখানেও তাঁকে শ্রদ্ধা জানান ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি থেকে শুরু করে কেন্দ্রের মন্ত্রীরা, বিভিন্ন অঙ্গরাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী, রাজ্যপাল, শীর্ষ রাজনীতিবিদরা।


দুপুর দুইটা নাগাদ বিজেপির সদর কার্যালয় থেকে শুরু হয় অটল বিহারী বাজপেয়ীর অন্তিম যাত্রা। দিল্লির বাহাদুরশরহ জাফর মার্গ, দিল্লি গেট- নেতাজী সুভাষ মার্গ-রিং রোড-রাজঘাট হয়ে অটল বিহারী বাজপেয়ীর সেই নিঃশ্বর দেহ বহনকারী সেনাবাহিনীর গাড়ি পৌঁছয় রাষ্ট্রীয় স্মৃতি স্থলে। প্রায় চার কিলোমিটার দীর্ঘ সেই যাত্রাপথে সামিল হন নরেন্দ্র মোদি, রাজনাথ সিং, অমিত শাহ, মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী দেবেন্দ্র ফড়নবিস সহ হাজার হাজার সাধারণ মানুষ। রাস্তার দুই ধারে দাঁড়িয়ে শিশু-কিশোর-বৃদ্ধ থেকে তখন আরও প্রায় কয়েক লাখ মানুষ অপেক্ষা করেন প্রিয় নেতাকে শেষ শ্রদ্ধা জানাতে।


উল্লেখ্য, দীর্ঘ রোগ ভোগের পর বৃহস্পতিবার বিকাল ৫.০৫ মিনিটে দিল্লির অল ইন্ডিয়া মেডিকেল সায়েন্সেস (এইমস) হাসপাতালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন ‘ভারতরত্ন’ ‘পদ্ম-বিভূষণ,’ ও ‘বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধ সম্মাননা’ পদকপ্রাপ্ত অটল বিহারী বাজপেয়ী।


তাঁর মৃত্যুতে ভারতের প্রধানমন্ত্রীসহ অন্য কেন্দ্রীয় মন্ত্রী, দেশটির বিভিন্ন অঙ্গরাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী, শীর্ষ রাজনীতিবিদরা শোক জ্ঞাপন করেন। বাজপেয়ীর মৃত্যুতে শোকজ্ঞাপন করে ট্যুইট করেছেন অমিতাভ বচ্চন, শাহরুখ খান, অনুষ্কা শর্মা, প্রিয়াঙ্কা চোপড়া, জন আব্রাহাম, মহেশ ভাট, মধুর ভান্ডারকর সহ বলিউড অভিনেতা, অভিনেত্রী ও পরিচালকরাও।



ভারতের সাবেক প্রধানমন্ত্রীর প্রয়াণে শোকবার্তা পাঠান বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও পাকিস্তানের নব নির্বাচিত প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানও। ফ্রান্স, রাশিয়া, যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য এবং জাতিসংঘের তরফেও ট্যুইট করে বাজপেয়ীর মৃত্যুতে শোকজ্ঞাপন করা হয়। স্পেনের সরকারি ফুটবল লিগ ‘লা লিগার তরফেও ফেসবুকে বাজপেয়ীর প্রতি শোকজ্ঞাপন করা হয়। প্রয়াত বাজপেয়ীকে শ্রদ্ধা জানাতেই দিল্লিতে যুক্তরাজ্য হাইকমিশনের তরফেও তাদের জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত রাখা হয়েছে।


এক শোক বার্তায় শেখ হাসিনা বলেন, ‘ভারতের অন্যতম প্রখ্যাত পুত্র দেশটির সাবেক প্রধানমন্ত্রী অটল বিহারী বাজপেয়ীর মৃত্যুতে আমরা গভীর ভাবে শোকাহত। সুশাসন এবং ভারতের সাধারণ মানুষের বিভিন্ন ইস্যুগুলিকে তুলে ধরার পাশাপাশি আঞ্চলিক শান্তি ও সমৃদ্ধির জন্য তিনি চিরদিন স্মরণীয় হয়ে থাকবেন।


'ভারতের সাধারণ মানুষের কল্যাণে তাঁর অক্লান্ত পরিশ্রম আগামী প্রজন্মকে উৎসাহিত করবে। ভারতের ব্যাপক অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির লক্ষ্যে শ্রী বাজপেয়ীর মতো একজন চমৎকার বক্তা ও কবি তাৎপর্যপূণ পদক্ষেপ নিয়েছিলেন।
অটল বিহারী বাজপেয়ী ছিলেন আমাদের মহান বন্ধু, তিনি বাংলাদেশেও অত্যন্ত শ্রদ্ধাশীল ছিলেন। ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধে তাঁর অসামান্য অবদানের স্বীকৃতি হিসাবে বাংলাদেশ সরকার বাজপেয়ীকে মুক্তিযুদ্ধ সম্মাননা প্রদান করে। নিশ্চিতভাবে আজ বাংলাদেশের সকলের কাছে একটা দুঃখের দিন।'


'বাংলাদেশ সরকার, দেশের সাধারণ মানুষ ও আমার ব্যক্তিগত তরফ থেকে ভারত সরকার, সেদেশের শোকার্ত মানুষ ও প্রয়াত বাজপেয়ীর পরিবারের সদস্যদের আমি সমবেদনা ও শোকজ্ঞাপন জানাচ্ছি।'


সাবেক প্রধানমন্ত্রীর মৃত্যুতে ভারতে সাত দিনের রাষ্ট্রীয় শোক পালন করা হচ্ছে। এই সাত দিন অর্ধনমিত থাকবে দেশটির জাতীয় পতাকা।


বিবার্তা/ডিডি/কামরুল

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com