লোকসভার সাবেক স্পিকার সোমনাথ চ্যাটার্জি প্রয়াত
প্রকাশ : ১৩ আগস্ট ২০১৮, ১১:১৭
লোকসভার সাবেক স্পিকার সোমনাথ চ্যাটার্জি প্রয়াত
কলকাতা প্রতিনিধি
প্রিন্ট অ-অ+

প্রয়াত হলেন ভারতের সিপিআইএম দলের সাবেক নেতা ও লোকসভার সাবেক স্পিকার সোমনাথ চ্যাটার্জি। সোমবার সকাল সোয়া ৮টার দিকে কলকাতার বেসরকারি হাসপাতাল (বেলভিউ নার্সিং) শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।


হাসপাতাল সূত্রে খবর মাল্টিঅর্গান ফেইলিওরের কারণেই তার মৃত্যু হয়েছে। তার বয়স হয়েছিল ৮৯ বছর।


শারীরিক অসুস্থতার কারণে গত বৃহস্পতিবার হাসপাতালে ভর্তি করানো হয় সোমনাথকে। সেই থেকে ক্রমশ তার অবস্থার অবনতি হতে থাকে। তাকে রাখা হয়েছিল ভেন্টিলেশনে, কিডনির সমস্যার কারণে ডায়ালিসিসও চলছিল। ভেন্টিলেশনে থাকাকালীন অবস্থাতেই রবিবার সকালে হৃদরোগে আক্রান্ত হন তিনি। এরপর আজ সকালে তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।


সোমনাথের মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়তেই শোকের ছায়া নেমে আসে রাজনৈতিক মহলে। শোক প্রকাশ করেন ভারতের রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং, কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী, দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল, তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রী মমতা ব্যানার্জিসহ বহু রাজনীতিবিদ।


১৯২৯ সালের ২৫ জুলাই আসামের তেজপুরে জন্মগ্রহণ করেন সোমনাথ চ্যাটার্জি। তার পিতা নির্মল চন্দ্র চ্যাটার্জিও ছিলেন একজন প্রতিথজশা আইনজীবী ও বুদ্ধিজীবী। কলকাতার মিত্র ইন্সিটিউশনে স্কুল জীবন শেষের পর উচ্চশিক্ষার লাভের জন্য প্রেসিডেন্সি কলেজ এবং পরে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হন সোমনাথ। এর পাশাপাশি কেমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীন জেসাস কলেজ থেকে আইন বিভাগে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর ডিগ্রি লাভ করেন। পরে কলকাতা হাইকোর্টে প্র্যাকটিস শুরু করেন তিনি।


১৯৬৮ সালে সিপিআইএম দলে যোগ দেন সোমনাথ। সেই থেকে প্রায় নয় দশক ধরে কমিউনিষ্ট পার্টি অব ইন্ডিয়া (সিপিআইএম)-এর সদস্য ছিলেন। ১৯৭১ সালে প্রথম এমপি নির্বাচিত হন। মোট ১০ বার এমপি নির্বাচিত হন তিনি। শেষবার ২০০৪ সালে পশ্চিমবঙ্গের বোলপুর কেন্দ্র থেকে লোকসভারিএমপি হন তিনি।


যদিও ১৯৮৪ সালের লোকসভা ভোটে যাদবপুর কেন্দ্র থেকে তৎকালীন কংগ্রেস নেত্রী মমতা ব্যানার্জির কাছে পরাজিত হন সোমনাথ চ্যাটার্জি।


২০০৪ থেকে ২০০৯ পর্যন্ত দেশটির লোকসভার স্পিকারের দায়িত্ব পালন করেন সোমনাথ। কিন্তু ২০০৮ সালে ভারত-মার্কিন পরমাণু চুক্তির বিরোধিতা করে ভারতের তৎকালীন মনমোহন সিংয়ের নেতৃত্বাধীন ইউনাইটেড প্রগেসিভ অ্যালায়েন্স (ইউপিএ) সরকারের ওপর থেকে সিপিআইএম সমর্থন তুলে নিলেও নৈতিকতার কারণ দেখিয়ে স্পিকারের পদ থেকে ইস্তফা দেননি সিনিয়র এই বাম নেতা।


এরপরই দলবিরোধী কাজের অভিযোগে ওই বছরই দল থেকে সাসপেন্ড করা হয় সোমনাথকে। এরপরই দলের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করেন তিনি।


বিবার্তা/ডিডি/জাকিয়া

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: bbartanational@gmail.com, info@bbarta24.net

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com