ভারতের সংসদে মোদিকে তীব্র আক্রমণ রাহুলের
প্রকাশ : ২০ জুলাই ২০১৮, ২১:৫৪
ভারতের সংসদে মোদিকে তীব্র আক্রমণ রাহুলের
কলকাতা প্রতিনিধি
প্রিন্ট অ-অ+

ভারতের লোকসভায় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে তীব্র আক্রমণ করলেন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী। শুক্রবার লোকসভার অধিবেশন চলাকালে প্রধানমন্ত্রীকে উদ্দেশ্য করে রাহুল বলেন, তার দিকে তাকিয়ে মোদি কথা বলতে পারছেন না কারণ তিনি সত্যবাদী নন।


রাহুল জানান, ‘পুরো দেশ দেখছে যে আমি প্রধানমন্ত্রী সম্পর্কে আমি স্পষ্ট কথা বলেছি কিন্তু উনি আমার চোখের দিকে তাকিয়ে কথা বলতে পারছেন না। এটাই সত্যি। আমি লক্ষ্য করছিলাম যে উনি কখনও এদিকে তাকাচ্ছেন, আবার কখনও ওদিকে তাকাচ্ছেন। তাঁর বক্তব্য দেশ বুঝে গেছে যে- আমাদের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি আসলে পাহারাদার নয়, উনি হলেন ভাগীদার (দুর্নীতিগ্রস্থ ব্যবসায়ীদের সঙ্গী)।’


লোকসভায় অনাস্থা ভোটের আগে এদিন প্রধানমন্ত্রীকে ‘অল আউট অ্যাটাক’এ যান কংগ্রেস সভাপতি। গণপিটুনি থেকে শুরু করে বেকারত্ব, নোট বাতিল, নারী-দলিতদের সুরক্ষা, কৃষকদের সমস্যা, রাফায়েল বিমান চুক্তি-সব ইস্যুতেই মোদি ও তার নেতৃত্বাধীন বিজেপি সরকারকে তীব্র নিশানা করতে থাকেন রাহুল। রাহুলের বক্তব্যের মধ্যেই চরম হট্টগোল শুরু হলে লোকসভার অধিবেশন কিছুক্ষণের জন্য মুলতবি থাকে।


দেশের পররাষ্ট্রনীতি নিয়ে প্রধানমন্ত্রীকে তোপ দেগে রাহুল বলেন, ‘চীনের প্রেসিডেন্টের সাথে গুজরাটে মোদি যখন দোলনায় চড়ছিলেন তখনই চায়না সেনা ভারতে প্রবেশ করে। এরপর চীনের প্রেসিডেন্ট নিজ দেশে ফিরে যান। কিন্তু চীনের সেনাকে ডোকলামে রেখে যায় এবং সেখানে দাপিয়ে বেড়ায়। যদিও ভারতীয় সেনা ডোকালামে চিনকে জবাব দিয়েছে। এর কয়েকদিন পর মোদিজি চীন সফরে গেলে ডোকালাম ইস্যুতে একটি কথাও বলেননি। আমাদের সেনারা যে কাজ করছে, প্রধানমন্ত্রী তা করতে পারেননি।’


রাহুলের অভিযোগ, ‘প্রধানমন্ত্রী দেশের কৃষক, শ্রমিকদের মনের কথা শুনতে পান না। তিনি কেবল বিত্তবানেদের নিয়েই ব্যস্ত থাকেন। কৃষকদের ঋণ মওকুফ হবে না কিন্তু বিত্তবানেদের আড়াই লাখ কোটি রুপির ঋণ মওকুফ করেছেন।’


রাহুলের দাব, দেশের নারী, সংখ্যালঘু, দলিত, আদিবাসী কেউই সুরক্ষিত নয়। দেশের নারীদের রক্ষা করতে পারছে না ভারত। অথচ এব্যাপারে প্রধানমন্ত্রী নীরব রয়েছেন।’


ফ্রান্সের সাথে ভারতের রাফায়েল চুক্তি নিয়েও দেশটির প্রতিরক্ষামন্ত্রী নির্মলা সীতারমণকে তোপ দাগেন রাহুল। তাঁর অভিযোগ, ‘এক ব্যবসায়ীকে বিশেষ সুবিধা পাইয়ের দেওয়ার জন্য ফ্রান্সের সাথে এই চুক্তি হয়েছে। যার কারণেই রাফায়েল’এর দাম বলতে পারছেন না। দুর্নীতি লুকোতেই দাম বলা হচ্ছে না।’


বক্তব্যের শেষ পর্যায়ে সহিষ্ণুতার বার্তা দিয়ে রাহুল বলেন, ‘আপনাদের মধ্যে আমার প্রতি ঘৃণা থাকতে পারে, আপনারা আমাকে পাপ্পু বলতে পারেন, খারাপ কথা বলতে পারেন কিন্তু আপনার বিরুদ্ধে আমার কোন ঘৃণা নেই। আমি আপনার কাছ থেকে এই ঘৃণা সরিয়ে একে ভালবাসায় পরিণত করবো।’



বক্তব্য শেষেই প্রধানমন্ত্রীকে সৌজন্য দেখাতে নিজের বিরোধী আসন থেকে উঠে গিয়ে প্রধানমন্ত্রীকে বুকে জড়িয়ে ধরেন রাহুল গান্ধী। রাহুলের এই আচরণে প্রাথমিক ভাবে কিছুটা স্তম্ভিত হয়ে যান মোদি, পরে রাহুলকে কাছে ডেকে নিয়ে ফের তাঁর সাথে হাত মেলান মোদি।


বিবার্তা/ডিডি/কামরুল

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com