বাংলাদেশ সফরের সময় রোহিঙ্গা শিবিরে যেতে চান প্রণব
প্রকাশ : ১৮ নভেম্বর ২০১৭, ১২:৩১
বাংলাদেশ সফরের সময় রোহিঙ্গা শিবিরে যেতে চান প্রণব
আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রিন্ট অ-অ+

ভারতের প্রেসিডেন্ট হিসেবে মেয়াদ পূর্ণ হওয়ার পরে মূলত পড়াশুনা আর ডায়েরি লিখেই দিন কাটাচ্ছেন প্রণব মুখার্জী। কদাচিৎ ১০ রাজাজি মার্গের বাসস্থান থেকে গিয়েছেন কোনো অনুষ্ঠানে। দেশের বাইরে সফরের প্রশ্নে প্রথমেই বাংলাদেশকে বেছে নিতে চলেছেন তিনি।


সূত্রের খবর, জানুয়ারি মাসে বাংলাদেশের একটি বিশ্ববিদ্যালয়ের আমন্ত্রণে ঢাকা যাওয়ার কথা রয়েছে তার। ওই সফরেই সে দেশের রোহিঙ্গা শরণার্থী শিবিরেও যেতে ইচ্ছুক তিনি। রোহিঙ্গা সমস্যা নিয়ে এই মুহূর্তে চাপের মধ্যে আছে বাংলাদেশ। পাশাপাশি জাতিসংঘ, যুক্তরাষ্ট্রসহ আন্তর্জাতিক মহলেরও চাপ বাড়ছে উৎখাত হওয়া রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারে ফেরত পাঠানোর। ভারতও ৪০ হাজার শরণার্থীকে ফেরত পাঠাতে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।


এই পরিস্থিতিতে প্রণবের মতো বর্ষীয়ান ও রাষ্ট্রনীতিতে অভিজ্ঞ এক নেতার রোহিঙ্গা শিবির দেখতে চাওয়া কূটনৈতিকভাবে যথেষ্ট তাৎপর্যপূর্ণ বলেই মনে করা হচ্ছে। কংগ্রেস ক্ষমতায় থাকাকালীন বরাবরই ভারত-বাংলাদেশ সম্পর্কে তিনি ছিলেন প্রধান সূত্রধর।


সূত্রের খবর, প্রণবের আসন্ন সফরের বিষয়টি নিয়ে ভারত ও বাংলাদেশ সরকারের সঙ্গে কথা বলা হবে। নিরাপত্তার খুঁটিনাটি বিবেচনা করা হবে। বাংলাদেশেও নির্বাচন ঘনিয়ে আসছে। ফলে এই সফর নিয়ে কোনও জটিলতা তৈরি হোক, সেটা প্রণব নিজেও চান না। ঘনিষ্ঠ মহলে তিনি জানিয়েছেন, শিবিরের ভিতরে যদি যাওয়ার সুযোগ না হয়, তবে এলাকাটি অন্তত ঘুরে আসতে চান তিনি।


কিছু দিন আগেই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী দেখা করেছেন প্রণবের সঙ্গে। জানা গেছে, সাম্প্রতিক আলাপচারিতায় মোদী তার সঙ্গে প্রতিবেশী দেশগুলোর সাথে কূটনৈতিক সমস্যার নানা দিক নিয়ে কথা বলেছেন। বিশেষ করে তার উদ্বেগের জায়গা রোহিঙ্গা সমস্যা।


প্রণব মুখার্জীর পরামর্শ, বিষয়টি নিয়ে মিয়ানমারের উপরে কূটনৈতিকভাবে যতটা সম্ভব চাপ তৈরি করা হোক। কিন্তু শরণার্থীরা যত দিন ভারতে আছেন, জীবনধারণের ন্যূনতম সুযোগ-সুবিধাগুলো যেন তাদের দেয়া হয়। তবে রোহিঙ্গাদের শেষ পর্যন্ত মিয়ানমার আদৌ ফেরত নেবে কি না, তা নিয়ে সন্দিহাণ প্রণব।


ভারতে আসা ৪০ হাজার রোহিঙ্গা শরণার্থী সংখ্যার দিক থেকে ভারতের কাছে এমন কিছু বড় চাপ নয়। কিন্তু বাংলাদেশের রোহিঙ্গা শরণার্থীর সংখ্যাটি বিপুল এবং সেটাই ভারতের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের (সাউথ ব্লক) মাথাব্যথা।


নয়াদিল্লির আশঙ্কা, বাংলাদেশ ও মিয়ানমার দ্বিপাক্ষিক আলোচনায় যদি কাজ হয়, আউং সান সুচির দেশ যদি শেষ পর্যন্ত বাংলাদেশ থেকে রোহিঙ্গাদের কিছু অংশকে ফেরত নিতে রাজিও হয়, তাহলেও তারা সে দেশে ফিরবেন কি না সন্দেহ রয়েছে।


স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের আশঙ্কা, রোহিঙ্গারা রওনা হয়তো দেবেন বাংলাদেশ থেকে মিয়ানমারের উদ্দেশে। কিন্তু শেষ পর্যন্ত ভারতের বিভিন্ন প্রান্তে বাড়তি অনুপ্রবেশ ঘটতে থাকবে।


রোহিঙ্গা প্রশ্নে তাই বাংলাদেশকে পাশে রেখেই এগোনোরই পক্ষপাতী এ দেশের কূটনীতিকদের বড় অংশ। প্রণবের মতো বিদেশনীতিতে অভিজ্ঞ ব্যক্তি বাংলাদেশ সফর এই ক্ষেত্রে নতুন কী মাত্রা যোগ করতে পারে, সেটাও মাথায় রাখতে হচ্ছে সাউথ ব্লককে। সূত্র: আনন্দবাজার পত্রিকা


বিবার্তা/জাকিয়া

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: bbartanational@gmail.com, info@bbarta24.net

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com