লাল মাংস খাওয়ার সময় সচেতনতা
প্রকাশ : ১০ জানুয়ারি ২০১৮, ১৫:১৭
লাল মাংস খাওয়ার সময় সচেতনতা
বিবার্তা ডেস্ক
প্রিন্ট অ-অ+

আমাদের মাঝে অনেকেই আছেন যারা মাংস অন্তপ্রাণ। যেনো মাংস না খেলে তারা মারাই যাবেন। কিন্তু তারা এটা জানেন না যে মাংস খেয়েই তারা নিজেকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন মারাত্মক স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে। আমাদের সকলেরই জানা যে, গরু, খাসি, মহিষ, ভেড়ার মাংসকে লাল মাংস বা রেড মিট বলা হয়।


এ মাংসে উচ্চ মাত্রার চর্বি ও কোলেস্টেরল থাকায় খাওয়ার ক্ষেত্রে কিছুটা ঝুঁকি থেকে যায়। তাই রোগীদের ক্ষেত্রে খুব সতর্ক হয়ে রেড মিট বা লাল মাংস খাওয়া প্রয়োজন। অতিরিক্ত লাল মাংস খাওয়া স্বাস্থ্যের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর, এই বিষয়টি মাংস খাওয়ার আনন্দের সাথে ভুলে গেলে চলবে না একেবারেই। কারণ অতিরিক্ত মাংস খাওয়ার যে স্বাস্থ্য ঝুঁকি রয়েছে তা আপনার সব আনন্দকে মাটি করে দিতে পারে মুহূর্তেই।


যারা ডায়েট করেন বা জিম করেন, তারা অনেকেই খাদ্যতালিকায় প্রোটিন বেশি রাখতে চান। মাসল বিল্ড করার জন্য এর প্রয়োজনও আছে। তাই অনেকেই মাংসের উপর ভরসা করেন। আবার কোরবানি ঈদের মৌসুমেও লাল মাংস খাওয়া হয় বেশি।


কিন্তু আমরা কি জানি তা শরীরের উপর কি প্রভাব ফেলছে?


লাল মাংস কি?
প্রথমে জানতে হবে লাল মাংস ও সাদা মাংসের পার্থক্য কি, কোনটি কোথা থেকে পাওয়া যায়। রেড মিট বা লাল মাংসের মধ্যে মায়োগ্লোবিন নামক উপাদান বেশি থাকার কারণে মাংস লাল হয়।


লাল মাংস সাধারণত গরু, ছাগল, ভেড়া, মহিষ, উট ইত্যাদি। আর পোল্ট্রি এবং পাখি মাছের থেকে পাওয়া মাংসকে বলা হয় সাদা মাংস। সাদা মাংসের তুলনায় লাল মাংস স্বাস্থ্যের উপর বেশি নেতিবাচক প্রভাব ফেলে।


লাল মাংসের স্বাস্থ্য ঝুঁকি


লাল মাংস খাওয়ার সাথে হার্টের রোগ, কোলোরক্টাল ক্যান্সার এবং টাইপ ২ ডায়াবেটিস হওয়ার সরাসরি সম্পর্ক আছে বলে গবেষকরা দাবি করেন। প্রক্রিয়াজাত (প্রসেসেড) লাল মাংস যেমন- সসেজ, পেপারোনি, বার্গার প্যাটি ইত্যাদি গ্রহণের ফলে ঝুঁকি আরো কয়েকগুন বেড়ে যায়। বেশি লাল মাংস খাবার ফলে ব্লাড ভেসেলস নমনীয়তা হারায় যা রক্ত চলাচলে বাধা সৃষ্টি করে।


এছাড়াও এই ৮টি রোগের কারণে মৃত্যুহার বাড়ার পিছনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে অধিক হারে লাল মাংস খাওয়া :


ক্যান্সার, হৃদরোগ, শ্বাসযন্ত্রের রোগ, স্ট্রোক, ডায়াবেটিস, অভ্যন্তরীণ ইনফেকশন্স, কিডনি রোগ এবং লিভার রোগ।


লাল মাংসের পুষ্টিগুণ
লাল মাংস যে শুধু ক্ষতি-ই করে তা নয়। লাল মাংসে প্রচুর প্রোটিন থাকে। এছাড়াও স্যাচুটেড ফ্যাট, আয়রন, জিংক এবং ভিটামিন বি-এর উৎকৃষ্ট উৎস। যাদের বয়স কম, শারীরিক কোনো সমস্যা নেই এবং হজমেরও কোনো সমস্যা হয় না তাদের জন্য লাল মাংস খাওয়ায় কোনো বাধা নেই। তবে ভবিষ্যতে যেন বিভিন্ন অসুখ বিসুখ এড়িয়ে চলতে পারে তাই শুরু থেকেই সচেতন হয়ে পরিমিত পরিমাণে মাংস খেতে হবে।


কতটুকু লাল মাংস খাওয়া নিরাপদ


পুষ্টিবিদগণ দিনে ৮৫ গ্রাম বা কম লাল মাংস খাওয়ার পরামর্শ দেয়। খাসি, ভেড়া বা গরুর মাংসের একটি পাতলা অংশে (আধা টুকরা পাউরুটির সমান) ৩০ গ্রাম মাংস থাকে।


বিবার্তা/শারমিন

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: bbartanational@gmail.com, info@bbarta24.net

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com