বসন্তে চোখ উঠার লক্ষণ ও করণীয়
প্রকাশ : ১৩ মার্চ ২০২৩, ১৯:২২
বসন্তে চোখ উঠার লক্ষণ ও করণীয়
বিবার্তা ডেস্ক
প্রিন্ট অ-অ+

চোখ উঠা রোগের উপর ঋতুগত প্রভাব আছে। ডিসেম্বর থেকে এপ্রিলের মধ্যে ব্যাকটেরিয়াজনিত, গ্রীষ্মের মাসগুলোতে ভাইরাসজনিত এবং অ্যালার্জিজনিত চোখ উঠা পুরো বসন্ত ও গ্রীষ্ম জুড়ে দেখা যায়।


চোখ উঠা হলো কনজাংটিভা বা চোখের স্বচ্ছ ঝিল্লির প্রদাহ বা সংক্রমণ, যা চোখের পাতাকে একসাথে করে চোখের সাদা অংশ বা শ্বেতমন্ডলকে ঢেকে রাখে। যখন কনজাংটিভায় ছোট রক্তনালীগুলো স্ফীত হয়, তখন সেগুলো আরও দৃশ্যমান হয়। এই কারণেই চোখের সাদা অংশ লাল বা গোলাপী দেখায়। চোখ উঠা খুব বিরক্তিকর হলেও দৃষ্টিশক্তির উপর তেমন নেতিবাচক প্রভাব ফেলে না। কিন্তু এক চোখে হলে সেটা আরেক চোখেও সংক্রমিত হতে পারে। সাধারণত এই অস্বস্তিকর অবস্থা এক কিংবা দুই সপ্তাহের মধ্যেই ঠিক হয়ে যায়। তবে এক সপ্তাহের পরেও অবস্থার উন্নতি না হলে বিশেষজ্ঞের শরণাপন্ন হওয়া উচিত। চলুন, চোখ উঠা রোগের লক্ষণ এবং কিভাবে এই রোগ থেকে দূরে থাকবেন।


লক্ষণ সমূহ:
১. চোখ লাল হওয়া ও পানি পড়া
২. চোখে প্রচণ্ড চুলকানি হওয়া
৩. আলো সহ্য করতে না পারা
৪. ঘন ঘন চোখের পলক ফেলা
৫. চোখ খচখচ করা।


অ্যালার্জির কারণে কনজাংটিভাইটিস চিকিৎসার আগে এটি বোঝা অপরিহার্য যে অ্যালার্জির সম্পূর্ণ নিরাময় সম্ভব নয়। তবে ওষুধের সাহায্যে অ্যালার্জির লক্ষণগুলো দমন করা যেতে পারে। চুলকানির কারণে চোখ ঘষলে অ্যালার্জির চেয়ে চোখের বেশি সমস্যা হয়। তাই তীব্রভাবে চোখ ঘষা এড়িয়ে চলতে হবে। অ্যালার্জেন এড়িয়ে চলা হলো আদর্শ চিকিৎসা। কিন্তু এটি বলা সহজ হলেও করা কঠিন। কারণ, এটি জীবনযাত্রা ও জীবনযাত্রার মানকে ভীষণ ব্যাহত করে। অ্যালার্জিক কনজাংটিভাইটিস কতক্ষণ স্থায়ী হবে, তা নির্ভর করে এর ধরন, তীব্রতা এবং চিকিৎসার ওপর। চোখে ড্রপের আকারে ওষুধ,


যেমন মাস্ট সেল স্টেবিলাইজার, অ্যান্টিহিস্টামিন, স্টেরয়েড অ্যালার্জিজনিত কনজাংটিভাইটিস চিকিৎসার জন্য দরকারি। এর পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া এড়াতে চক্ষুবিশেষজ্ঞের মতামত ছাড়া চোখের ড্রপ শুরু করা উচিত নয়।


প্রতিকার-
১. যেকোনো ধরনের অ্যালার্জি জাতীয় জিনিস পরিহার করা।
২. বাইরে বের হলে চশমা বা সানগ্লাস ব্যবহার করা।
৩. হাত না ধুয়ে চোখে স্পর্শ না করা।


যারা কন্টাক্ট লেন্স পরেন তাদেরকে এ রোগের ক্ষেত্রে সাবধান থাকতে হবে। লক্ষণ শুরু হওয়ার সাথে সাথে কন্টাক্ট লেন্স পরিহার করাই উত্তম। দৃষ্টি ঝাপসা হলে, চোখ খুব বেশি লাল হলে, খুব বেশি চুলকালে বা অতিরিক্ত ফুলে গেলে দ্রুত ডাক্তারের পরামর্শ নিতে হবে।


বিবার্তা/সজল/জবা

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

পদ্মা লাইফ টাওয়ার (লেভেল -১১)

১১৫, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ,

বাংলামোটর, ঢাকা- ১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2021 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com