আমরা ও আপনারা : এক অনন্ত নৃত্যশালায়
প্রকাশ : ২৪ এপ্রিল ২০১৮, ১৬:৩১
আমরা ও আপনারা : এক অনন্ত নৃত্যশালায়
বিবার্তা ডেস্ক
প্রিন্ট অ-অ+

আপনারা সামান্য অসুস্থ হলে ডাক্তার দেখানোর জন্য সিঙ্গাপুর, মালয়েশিয়া কিংবা লন্ডন-নিউইয়র্কে যান। আর আমাদের ছেলে-মেয়েদের জন্মের পরপরই হাসপাতালের লোকজন মৃত ঘোষণা করে, এরপর কবর দিতে গিয়ে দেখা যায় বেঁচে আছে! সেই ঘটনা জানতে গেলে হাসপাতালের কর্তাব্যক্তিরা বলে বসেন, আগে দেখতে হবে, "এই বাচ্চাই কি সেই বাচ্চা কি না!"


আপনাদের ছেলে-মেয়েরা দেশীয় সিস্টেমে পড়াশুনা না করে ইংলিশ মিডিয়ামে পড়ে কিংবা ইউরোপ-আমেরিকায় পড়তে যায়। জীবনের অর্ধেকের বেশি সময় বিদেশে থেকে এরপর দেশে ফিরেই তারা ''দেশপ্রেমিক'' বনে যায়। আর আমাদের ছেলে-মেয়েরা দেশীয় সিস্টেমে পড়াশুনা করে, টিউশন ফি কমানর দাবি করলে কিংবা নিজেদের ন্যায্য অধিকারের জন্য আন্দোলন করলে হয়ে যায় ''রাষ্ট্রবিরোধী'' !


আপনারা নিজেদের গাড়িতে এসির হাওয়া খেতে খেতে উল্টো পথে চলে মনের আনন্দে রাস্তার রাজা সেজে ঘুরে বেড়ান। আর আমরা প্রচণ্ড গরমে ঘামে ভিজে বাসে ঝুলতে ঝুলতে স্কুল, কলেজ, ইউনিভার্সিটি কিংবা অফিসে যাই। এরপর যদি দুই বাসের প্রতিযোগিতায় মাঝখান থেকে প্রাণটাই চলে যায়; আপনারা ঘোষণা দেন, যে মারা গিয়েছে তার দোষ থাকলেও থাকতে পারে!


আপনারা ব্যাংকের টাকা আত্মসাৎ করে, বিদেশীদের দেয়া অনুদানের টাকা নিজেদের ব্যাংকে রেখে কোটি কোটি টাকার মালিক বনে যান। এতো অন্যায় করে ফেলার পর যদি শেষমেশ ধরা খেয়ে যান আর আদালত যদি আপনাদের শাস্তি দিয়েই বসে, তাতেও সমস্যা নেই! আপনারা চিকিৎসার কথা বলে বিদেশ পাড়ি জমান! সেখানে আরাম-আয়েশে জীবন কাটিয়ে দেন। সেই সঙ্গে দেশের নাগরিকত্ব পর্যন্ত ত্যাগ করে বসেন! নিজ দেশের পাসপোর্টটা পর্যন্ত রাখার প্রয়োজন মনে করেন না! এরপরও আপনারাই এই দেশের মানুষের নেতা আর ''দেশপ্রেমিক''।


আমরা দিনে ১২ ঘণ্টার বেশি পোশাক কারখানায় কাজ করে দেশের অর্থনীতি সচল রাখার চেষ্টা করছি। আপনারা যখন ধর্মঘট-হরতাল ডাকেন, তখনও আমাদের কাজে যেতে হয়। কাজে যেতে গিয়ে আপনাদের গ্রেনেড কিংবা পেট্রোল বোমার আঘাতে যদি আমরা মরে যাই; আপনারা বলে বসেন, "আল্লার মাল আল্লাহ নিয়ে গেছেন!" আর যদি আস্ত পোশাক কারখানাটাই হঠাৎ ধপাস করে মাথার ওপর ভেঙ্গে পড়ে, তাহলে আপনারা বলে বসেন, "কেউ হয়ত পিলার ধরে ধাক্কা দিয়েছে!"


এরপরও আপনারাই ''দেশপ্রেমিক'', আপনারাই আমাদের নেতা, আপনারাই জানেন দেশের ভালো-মন্দ কিসে হয়! পালা করে ক্ষমতার হাতবদল হয়; কিন্তু আমরা থেকে যাই আপনাদের হাতের পুতুল। যখন আপনাদের যেভাবে পুতুল নাচ দেখতে ইচ্ছে করে, আমরা সেভাবেই নেচে বেড়াই! এ এক অনন্ত নৃত্যশালা!


আমিনুল ইসলামের ফেসবুক থেকে


বিবার্তা/মৌসুমী/হুমায়ুন

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com