যারা অন্যের সমালোচনা করে, তারা কখনো এগুতে পারবে না
প্রকাশ : ১৪ মার্চ ২০১৮, ১৮:৩৪
যারা অন্যের সমালোচনা করে, তারা কখনো এগুতে পারবে না
বিবার্তা ডেস্ক
প্রিন্ট অ-অ+

স্টিফেন হকিংয়ের কিন্তু মটর নিউরন ডিজিজ ছিলো। এটা মস্তিষ্কের এমন এক ধরনের রোগ, যেটা মানুষকে আস্তে আস্তে প্যারালাইজ করে ফেলে।


১৯৬৩ সালে স্টিফেন হকিংয়ের যখন এই রোগ ধরা পড়ে, ডাক্তাররা তাকে দুই বছরের সময় বেঁধে দিয়েছিলো।


স্টিফেন হকিং তার মানসিক শক্তি দিয়ে এই রোগ সঙ্গে নিয়েই তার জীবন চালিয়ে গেছেন। যেখানে ডাক্তাররা দুই বছর সময় বেঁধে দিয়েছিলো, সেখানে তিনি আরও ৫৫ বছর এই পৃথিবীতে কাটিয়ে গিয়েছেন।


বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকতা করে গিয়েছেন পৃথিবীর সেরা ক্যামব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ে। করে গিয়েছেন নিজের গবেষণা।


লিখেছেন পৃথিবীর সর্ব কালের সব চাইতে বেশি বিক্রি হওয়া বই গুলোর একটি, যার নাম হচ্ছে- আ ব্রিফ হিস্ট্রি অব টাইম


প্যারালাইজ হয়ে যাবার পর তার সমাজ কিংবা রাষ্ট্র তাকে পরিত্যাগ করেনি। এমনকি যেই বিশ্ববিদ্যালয়ে তিনি কাজ করতেন, সেই ক্যামব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ে তিনি বহাল তবিয়তে কাজ করে গিয়েছেন।


কারণ সেই দেশ, সেই রাষ্ট্র জানে কীভাবে জ্ঞানী-গুণীদের সমাদর করতে হয়।


আর আমরা আমাদের সুস্থ-সবল, জ্ঞানী-গুণী মানুষদের হত্যার তালিকা করে, তাদের ধরে ধরে হত্যা করে বেড়াই। ৪৭ বছর আগে যেই ধারা চালু ছিলো, এই ২০১৮ সালে এসেও জাফর ইকবাল স্যারকে হত্যা চেষ্টার মাঝে সেই ধারা এখনো চালু আছে।


স্টিফেন হকিংয়ের একটা বাক্য অবশ্য এখানে বলা যেতে পারে। তিনি বলে গিয়েছেন, “ যেই জাতি কিংবা সমাজ নিজের ভুল না খুঁজে, অন্যের ভুল আর সমালোচনা করে বেড়ায়, তারা কখনো এগুতে পারবে না।”


আমিনুল ইসলামের ফেসবুক থেকে


বিবার্তা/মৌসুমী

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com