একজন বৃক্ষপ্রেমী মানুষের কথা
প্রকাশ : ১২ মার্চ ২০১৮, ১৯:৩৩
একজন বৃক্ষপ্রেমী মানুষের কথা
বিবার্তা ডেস্ক
প্রিন্ট অ-অ+

গত শুক্রবার পরিচয় হলো বৃক্ষপ্রেমী একজন অসাধারণ মানুষের সঙ্গে। পঞ্চাশ পেরোনো এই ভদ্রলোকের নাম প্রফেসর এ কে এম ফজলুল করিম চৌধুরী। কক্সবাজার সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ।


তবে ‘অধ্যক্ষ’ - এটাই তাঁর একমাত্র পরিচয় নয়। যে গভীর আন্তরিকতা নিয়ে তিনি মানুষ গড়ার কাজ করেন, তেমনই পরম মমতায় তিনি গাছ লাগান, গাছের যত্ন নেন, ফুলের বাগান করেন।


কলেজ ক্যাম্পাসটি ২০ একরের বিশাল জায়গা। এর বেশিরভাগই ছেয়ে আছে সবুজে। পাঁচ বছর আগে দু'টি কাঠবাদাম (এলমন্ড) গাছ লাগিয়েছিলেন। এখন তা বেশ বড় হয়ে শাখা-প্রশাখা ছড়িয়ে এখন ছাতার মতো হয়েছে। গরমে অনেককেই এর ছায়াতলে আশ্রয় নিতে দেখা যায়। গাছের ছায়া উপভোগ করার জন্য টাইলসের বৃত্তাকার স্থাপনা করে দিয়েছেন প্রফেসর চৌধুরী।


দূরে একটি চমৎকার ফুলের বাগান দেখিয়ে বললেন, চলেন ওখানে। কাছে যেতেই বললেন, এটি ডালিয়া। দেখেন এর কত রং,কত রূপ। ওটি জিনিয়া। তারপর রয়েছে,কসমস, রজনীগন্ধা ও গোলাপ।


ডালিয়ার একটি পাঁপড়ি ছুঁতেই বললেন, জানেন গাছটি এখন কি বলছে? গাছটি বলছে, Touch me Not. আমাকে ছুঁয়ো না।


আমি বললাম, গবেষণা করার সময় গাছরা বিজ্ঞানী জগদীশ চন্দ্র বসুকেও এ কথা বলেছিল।


তিনি হাসলেন।


এভাবে এই বৃক্ষপ্রেমীর কথামালায় আটকে থাকলাম প্রায় ছয় ঘণ্টা। লাঞ্চ করালেন। বিকেলে পরম ভালবাসায় বিদায় জানালেন।


গত ছয় বছর তিনি কক্সবাজার সরকারী কলেজের অধ্যক্ষের দায়িত্ব পালন করছেন। কলেজক্যাম্পাসে একটি কক্ষে থাকেন। উদ্ভিদবিজ্ঞানের কৃতি এই শিক্ষাবিদ কলেজের ২০ একর জায়গাকে বৃক্ষশোভায় শোভিত করেছেন।


কাজের ফাঁকে একটু অবসর পেলেই গাছের সঙ্গে মিতালী করেন, আনমনে কথা বলেন। এই বৃক্ষপ্রেমী মানুষটি খাদ্য হিসেবে শুধু বৃক্ষের ওপরই নির্ভর করেন। মাছ বা মাংস একদমই খান না। তাঁর জীবন শুধুই বৃক্ষময়।


বৃক্ষপ্রেমী মানুষ, সালাম আপনাকে।


বদরুল হায়দার চৌধুরীর ফেসবুক থেকে


বিবার্তা/হুমায়ুন/কাফী

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com