আ.লীগ সম্পাদককে সাবেক ছাত্রলীগকর্মীর খোলা চিঠি
প্রকাশ : ১১ জুন ২০১৭, ২১:৩৬
আ.লীগ সম্পাদককে সাবেক ছাত্রলীগকর্মীর খোলা চিঠি
বিবার্তা ডেস্ক
প্রিন্ট অ-অ+

মাননীয় সাধারণ সম্পাদক
বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ
কেন্দ্রিয় কমিটি


বিষয় : চাকরির জন্য আবেদন


জনাব


যথাবিহিত সম্মান প্রদর্শন পূর্বক নিবেদন এই যে, আমি বাংলাদেশ ছাত্রলীগ, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সাবেক একজন কর্মী । ২০০৬ সালে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগে ভর্তি হবার পর বাংলাদেশ ছাত্রলীগ রাবি শাখার একজন কর্মী হিসেবে সক্রিয় ছিলাম।


২০১০ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি জামায়াত শিবিরের অতর্কিত হামলায় আমার সহযোদ্ধা গণিত বিভাগের মেধাবী ছাত্র ফারুক হোসেন নিহত হন। আমার এবং ফিরোজ মোহাম্মদ আরিফুজ্জামানের হাত-পায়ের রগ কেটে দেয় শিবির ক্যাডাররা। সেই সাথে বিভিন্নভাবে কুপিয়ে আহত করে আরো ১৫-২০ জন ছাত্রলীগ নেতাকর্মীকে। আমরা দীর্ঘ দিন মৃত্যুরর সাথে পাঞ্জা লড়ে কোনো মতে বেঁচে যাই। মানে পঙ্গু হয়ে যাই।



রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ এবং ঢাকার পঙ্গু হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থাকার সময় সেই সময়ে সাবেক মন্ত্রী সাহারা খাতুন, আফম রুহুল হক, শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ, প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রী মোস্তাফিজার রহমান ফিজার, সাবেক প্রতিমন্ত্রী শামসুল হক টুকু, প্রয়াত মুজিবুর রহমান ফকির, বর্তমান প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলমসহ শতাধিক সংসদ সদস্য হাসপাতালে আমাদের দেখতে এসে সুচিকিৎসার পাশাপাশি কর্মসংস্থানের এর আশ্বাস দেন।
তারপর কেটে গেছে সাড়ে সাত বছর। গত ২৪ মে সরকারি চাকরিতে আবেদনের বয়সও শেষ হয়ে গেছে।


রিটেনে টেকার পরও কেউ একটা চাকরি দিতে পারেননি, দেননি। আমার একটা চাকরি পাওনা ছিলো আওয়ামী লীগের কাছে।


আজ বিভিন্ন পত্রপত্রিকায় আপনার বক্তব্যে আশাবাদী হলাম। আপনি বলেছেন চাকরির বয়স শেষ হয়ে গেলেও আপনি ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের চাকরি দেবেন।


শুনতে পান কি মাননীয় সাধারণ সম্পাদক। আমি বাংলা বিভাগে স্নাতক (সম্মান) সহ স্নাতকোত্তর পাশ। চাকরি না পেয়ে, বয়স শেষ হয়ে যাওয়ায় আমি এখন অন্যের জমিতে বর্গা চাষ করি। যা দিয়ে আমার স্ত্রী-পুত্র, বয়স্ক বাবা-মায়ের খরচ বহন করা দুঃসাধ্য হয়ে পড়েছে।


অতএব জনাব সাধারণ সম্পাদকের কাছে পিয়ন/এমএলএসএস- এর একটি চাকরি চাচ্ছি। যা দিয়ে আমি আমার পরিবার পরিজনসহ খেয়ে পড়ে বেঁচে থাকার নিশ্চয়তা পাই।



আমার আশা এবং বিশ্বাস, মাননীয় সাধারণ সম্পাদক দলের জন্য আমার ত্যাগ, নির্যাতিত হওয়া, পঙ্গু হওয়া, অবদান সবকিছু বিবেচনায় নিয়ে আমার একটা সরকারি চাকরির ব্যবস্থা করবেন, নয়তো একবোতল বিষ উপহার দেবেন।


নিবেদক
মো. সাইফুর রহমান বাদশা
সাবেক ছাত্রলীগ কর্মী
রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় শাখা।


মো. সাইফুর রহমান বাদশার ফেসবুক থেকে


বিবার্তা/কাফী

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com