ওয়াসার কর্ণফুলী প্রকল্প উদ্বোধন নভেম্বরে
প্রকাশ : ১৮ অক্টোবর ২০১৬, ১৪:২৩
ওয়াসার কর্ণফুলী প্রকল্প উদ্বোধন নভেম্বরে
চট্টগ্রাম ব্যুরো
প্রিন্ট অ-অ+

পানীয় জলের বিদ্যমান সংকট মোকাবিলায় বন্দরনগরী চট্টগ্রামে ওয়াসার তিন মেগা প্রকল্পের কাজ একযোগে বাস্তবায়নের পথে রয়েছে। তবে কর্ণফুলী পানি সরবরাহ প্রকল্পের কাজ ইতোমধ্যেই শেষ হয়েছে। এই প্রকল্প থেকে আগামী নভেম্বরে দৈনিক ১৪ কোটি লিটার পানি পাবে নগরবাসী। এখন উৎপাদিত পানির ‘টেস্টিং’ চলছে। নভেম্বরে এই প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। 

 

সূত্রমতে, বাকি দুই মেগা প্রকল্প- ‘চিটাগাং ওয়াটার সাপ্লাই ইমপ্রুভমেন্ট অ্যান্ড স্যানিটেশন প্রকল্পের অধীনে রাঙ্গুনিয়ায় মদুনাঘাট ও কর্ণফুলী পানি সরবরাহ প্রকল্পের দ্বিতীয় পর্যায়ের কাজ চলছে। জানা গেছে, কর্ণফুলী পানি সরবরাহ প্রকল্প-১’র টেস্টিংকৃত পানি সোমবার বায়েজিদ রিজার্ভার পর্যন্ত এসেছে। এর আগের দিন মদুনাঘাট পর্যন্ত এসেছিল।  

 

চট্টগ্রাম ওয়াসার সচিব মো. শামসুদ্দোহা জানান, কর্ণফুলী পানি সরবরাহ প্রকল্প থেকে দৈনিক ১৪ কোটি লিটার পানি পাওয়ার আশা করছি আমরা। তখন নগরীর পানির সংকট অনেকটা লাঘব হবে। অন্যদিকে ‘চিটাগাং ওয়াটার সাপ্লাই ইমপ্রুভমেন্ট অ্যান্ড স্যানিটেশন’ প্রকল্পের অধীনে মদুনাঘাট পানি প্রকল্পটি থেকে ২০১৮ সাল নাগাদ দৈনিক আরো ৯ কোটি লিটার পানি পাওয়া যাবে। তখন পানির সংকট আরো কমে যাবে। যেসব এলাকায় পাইপলাইন আছে, কিন্তু পানি পাওয়া যায় না- সেসব এলাকায়ও তখন পানি পাওয়া যাবে। এরপর কর্ণফুলী পানি সরবরাহ প্রকল্প-২’র কাজ শেষ হবে ২০২২ সালে। এই প্রকল্প থেকেও দৈনিক ১৪ কোটি লিটার পানি পাওয়া যাবে।

 

শামসুদ্দোহা জানান, কর্ণফুলী পানি সরবরাহ প্রকল্প ফেজ-২ মোট ৫টি প্যাকেজে বাস্তবায়ন হচ্ছে। ঠিকাদারের সাথে চুক্তির পর এখন কাজ শুরু হয়েছে। এ পর্যন্ত ১৬ শতাংশ কাজ হয়েছে। প্রকল্পের অধীনে রাঙ্গুনিয়া থেকে ট্রিটমেন্ট প্ল্যান্টের মাধ্যমে পাইপলাইন দিয়ে নগরীর নাসিরাবাদ এবং হালিশহর বি ব্লকে রিজার্ভারে পানি মজুদ করা হবে। তারপর সেখান থেকে পাইপ লাইনের মাধ্যমে নগরীতে সরবরাহ করা হবে। এই প্রকল্পের ট্রিটমেন্ট প্ল্যান্ট হচ্ছে রাঙ্গুনিয়ায় আগের প্রকল্পের কাছে। প্রকল্পের কাজ শেষ হবে ২০২২ সালে।

 

চট্টগ্রাম ওয়াসার তৃতীয় মেগা প্রকল্প হলো ‘চিটাগাং ওয়াটার সাপ্লাই ইমপ্রুভমেন্ট অ্যান্ড স্যানিটেশন প্রকল্পটি’। এই প্রকল্পের মাধ্যমে মদুনাঘাট থেকে পানি পরিশোধন করে দৈনিক ৯ কোটি লিটার পানি নগরীতে সরবরাহ করা হবে। এই প্রকল্পের কাজ অনেক দূর এগিয়েছে। ২০১৮ সালের শেষের দিকে প্রকল্পের কাজ শেষ হবে। মোট এক হাজার ৭৮ কোটি টাকার এই প্রকল্পের মধ্যে বিশ্বব্যাংক দিচ্ছে ৯৭২ কোটি টাকা। বাংলাদেশ সরকার দিচ্ছে ৮৪ কোটি টাকা এবং চট্টগ্রাম ওয়াসা দিচ্ছে ২১ কোটি টাকা।

 

বিবার্তা/জিয়া/নিশি

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com