দুই শতাংশের বেশি প্রবৃদ্ধি বাড়াবে পদ্মা সেতু
প্রকাশ : ২৫ জুন ২০২২, ০৮:২০
দুই শতাংশের বেশি প্রবৃদ্ধি বাড়াবে পদ্মা সেতু
বিবার্তা ডেস্ক
প্রিন্ট অ-অ+

দেশের অর্থনীতির মোড় ঘুরিয়ে দেবে পদ্মা সেতু। এ সেতু দক্ষিণাঞ্চলে দারিদ্র্য বিমোচনসহ জিডিপিও বাড়াবে ২ দশমিক ৩ শতাংশ বলছেন, পশ্চিমা বিশ্বের কূটনীতিকরা। পদ্মা সেতুর উদ্বোধন উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রীকে অভিনন্দনও জানিয়েছেন ঢাকায় নিযুক্ত ইউরোপীয় ইউনিয়ন ও ইতালির রাষ্ট্রদূত।


পদ্মা সেতু হওয়ায় উচ্ছ্বসিত পশ্চিমা বিশ্বও। ঢাকায় ইউরোপীয় ইউনিয়ন ও ইতালির মিশন প্রধানেরা বলছেন, এই সেতু হবে বাংলাদেশের অর্থনীতির নতুন করিডোর। এটি শুধু ঢাকার সঙ্গে দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলকেই যুক্ত করবে না, মোংলা ও পায়রা বন্দরের সঙ্গে সরাসরি যোগাযোগও স্থাপন করবে।


ইউরোপীয় ইউনিয়নের রাষ্ট্রদূত চার্লস হোয়াইলি বলছেন, এই অবকাঠামোর মাধ্যমে বাংলাদেশ এশিয়ান হাইওয়েতে যুক্ত হবে, যা অর্থনীতিকে নতুন মাত্রা দেবে।


চার্লস হোয়াইলি আরো বলেন, পদ্মা সেতু উদ্বোধনের মাহেন্দ্রক্ষণে ইউরোপীয় ইউনিয়নের পক্ষ থেকে উষ্ণ অভিনন্দন জানাচ্ছি। বাংলাদেশের জন্য এটি একটি স্মরণীয় মুহূর্ত। এই সেতু দেশের জিডিপি প্রবৃদ্ধি বাড়াবে ২ শতাংশের বেশি । চলাচল সহজ করাসহ বাণিজ্যিক যোগাযোগও বাড়াবে বলে আমরা আশা করছি।


পদ্মা সেতুর কারণে বিনিয়োগ, বিতরণ ও বিপণনে যে সাশ্রয় হবে, তা বাংলাদেশের অর্থনীতিতে ইতিবাচক ভূমিকা রাখবে। সেই কারণেই জিডিপিতে অতিরিক্ত ১০ বিলিয়ন ডলার যোগ হবে, যা সেতুটির ব্যয়ের প্রায় তিনগুণ বেশি বলে জানিয়েছেন ইতালির রাষ্ট্রদূত এনরিকো নুনযিয়াতা।


এনরিকো নুনযিয়াতা আরো বলেন, এদেশে যে বিশাল অবকাঠামো তৈরি হচ্ছে তা বিশ্ব দরবারে আস্থা তৈরি করেছে। আমরা মনে করি, বাংলাদেশ এখন প্রস্তুত। অনেকেই বড় বিনিয়োগের কথা ভাবছেন। ইতালির অনেক বিনিয়োগকারী শিগগিরই বাংলাদেশে বিনিয়োগ করবেন।


এ ছাড়া ঢাকার সাথে পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া রুটে ফেরির বদলে পদ্মা সেতু হয়ে গেলে বেনাপোলের দূরত্বও কমবে ৯৩ কিলোমিটার। ভারতের সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্যের বড় অংশই হয় এ পথে। রাজস্বের পরিমাণ প্রায় ৬ হাজার কোটি টাকা। এ পথে যাতায়াতে সময় বাঁচবে ৩ থেকে ৪ ঘণ্টা। সঙ্গে কমবে পরিবহন খরচ। তাই বাণিজ্য বৃদ্ধির সাথে স্থলবন্দরটির রাজস্ব দেড়গুণ হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।


দেশের যোগাযোগ ব্যবস্থার পাশাপাশি ট্রান্সএশিয়ান হাইওয়ের মাধ্যমে আঞ্চলিক যোগাযোগেও বড় ভূমিকা রাখবে পদ্মা সেতুু। দক্ষিণাঞ্চলের পর্যটনখাত, কৃষি ও ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পেও আসবে নতুনমাত্রা। বিনিয়োগের বিপরীতে পদ্মা সেতুর বার্ষিক রিটার্ন ধরা হচ্ছে ২২ শতাংশ পর্যন্ত।


নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মা সেতু নির্মাণকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বলিষ্ঠ নেতৃত্বের প্রতিফলন হিসেবেই দেখছেন পশ্চিমা দেশগুলোর কূটনীতিকরা।


উন্নত যোগাযোগে ভর করে আঞ্চলিক আয় বৈষম্য কমানোর পাশাপাশি ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত রাষ্ট্রের কাতারে পৌঁছানোর দৌড়ে পদ্মা সেতুর মতো মেগা প্রকল্প হাতে নেয়া সময়োপযোগী সিদ্ধান্ত বলে মানছেন পর্যবেক্ষকরাও।


বিবার্তা/এসবি

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

পদ্মা লাইফ টাওয়ার (লেভেল -১১)

১১৫, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ,

বাংলামোটর, ঢাকা- ১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2021 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com