অবশেষে অধ্যাপক ফারুকের পাশে ঢাবি শিক্ষক সমিতি
প্রকাশ : ২৩ জুলাই ২০১৯, ২০:০৪
অবশেষে অধ্যাপক ফারুকের পাশে ঢাবি শিক্ষক সমিতি
ঢাবি প্রতিনিধি
প্রিন্ট অ-অ+

পাস্তুরিত দুধের মান নিয়ে গবেষণা করায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) অধ্যাপক ড. আ ব ম ফারুককে হুমকি দেয়াসহ অবমাননার বিরুদ্ধে দেশের বিভিন্ন প্রান্তে নিন্দা ও প্রতিবাদের ঝড় উঠেছে। তবে এ বিষয়ে তার নিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সমিতি আনুষ্ঠানিক বিবৃতি বা বক্তব্য দিতে দেরি করায় চারদিকে সমালোচনার ঝড় ওঠে। অবশেষে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতিও এ অধ্যাপকের পাশে থাকার ঘোষণা দিয়েছে।


মঙ্গলবার বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. এ. এস. এম. মাকসুদ কামাল এবং সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াতুল ইসলামের স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এই ঘোষণা দেয়া হয়।


বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, সম্প্রতি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সদ্য অবসরপ্রাপ্ত অধ্যাপক আ ব ম ফারুকের পাস্তুরিত তরল দুধ নিয়ে একটি গবেষণা প্রকাশ করেন। আর এ গবেষণায় অ্যান্টিবায়োটিকসহ মানবদেহের জন্য ক্ষতিকর রাসায়নিক উপাদানসমূহের উপস্থিতি পাওয়া যায়। এ গবেষণার ফলাফল গণমাধ্যমে প্রকাশিত হওয়ার পর মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের একজন অতিরিক্ত সচিব গবেষণা-বিশ্লেষণকে ভুল এবং অধ্যাপক আ ব ম ফারুকের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের হুমকি দিয়েছেন। এরই ধারাবাহিকতায় সম্প্রতি ৭১ টেলিভিশনের একটি টক-শােতে অধ্যাপক আ ব ম ফারুকের সাথে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব যে রূঢ় ও অসৌজন্যমূলক আচরণ করেছেন, তা অনাকাঙ্ক্ষিত ও শিষ্টাচার বহির্ভূত। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি এমন আচরণের তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন।



গবেষণা সমালোচনাকারীদের উদ্দেশে বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, কোনো গবেষণার ফলাফল ভুল অথবা শুদ্ধ, তা পাল্টা গবেষণার মাধ্যমে প্রমাণ করতে হয়। মন্ত্রণালয় এ ধরনের কোনাে পদক্ষেপ না নিয়ে গবেষকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার যে হুমকি দিয়েছে, তা যেকোনো গবেষকের গবেষণার স্বাধীনতার ওপর হস্তক্ষেপ। এ ধরনের ভয়ভীতি প্রদর্শন গবেষকদের গবেষণায় নিরুৎসাহিত করবে এবং তাতে জাতির প্রভূত ক্ষতি হবে বলে শিক্ষক সমিতি মনে করে।


শিক্ষক সমিতি মনে করে, সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়/ব্যক্তিবর্গ এরই মধ্যে তাদের ভুল বুঝতে পেরেছেন। সরকারি সংশ্লিষ্ট সংস্থা এবং বিশ্ববিদ্যালয়সমূহ জনস্বার্থ সম্পর্কিত যে কোনাে বিষয়ে নিয়মিত গবেষণা পর্যালোচনা করবে এটাই স্বাভাবিক। জ্ঞান অন্বেষণ ও বিশ্লেষণের ফলাফল জনস্বার্থে প্রকাশ করা যেকোনো গবেষকের দায়িত্বের অংশ এবং মৌলিক অধিকার।


গবেষণাটি জার্নালে প্রকাশ না করার ব্যাপারে বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, অধ্যাপক আ ব ম ফারুক জনস্বার্থে তার গবেষণার ফলাফল উপস্থাপন করেছেন। Peer reviewed জার্নালে প্রকাশিত হওয়ার আগে কোনাে গবেষণার ফলাফল সভা, সেমিনার ও সম্মেলনে প্রকাশ করা যাবে না- এ ধারণাটিও সঠিক নয়।



বিজ্ঞপ্তিতে আরো বলা হয়, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি শুরু থেকেই এ সংক্রান্ত সকল তৎপরতা পর্যবেক্ষণ করে আসছে। গত ১৮ জুলাই শিক্ষক সমিতির কার্যকরী পরিষদের এক সভায় অধ্যাপক আ ব ম ফারুককে হেনস্থাসহ এ ধরনের অপচেষ্টার তীব্র নিন্দা করা হয়। বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সমিতি এবং বিশিষ্ট ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানসহ সচেতন মহল বিবৃতি, মানববন্ধন, পত্র-পত্রিকায় লেখনী, টক-শাের মাধ্যমে অধ্যাপক আ ব ম ফারুকের গবেষণাকে স্বাগত জানিয়েছেন এবং তার পাশে দাঁড়িয়েছেন।


বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির পক্ষ থেকে সবাইকে ধন্যবাদ জানাই। সংশ্লিষ্ট সব প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে আলোচনা সাপেক্ষে দুধসহ অন্যান্য খাদ্য পণ্যে ক্ষতিকর উপাদানসমূহ দ্রুত নিয়ন্ত্রণ করার জন্যও আমরা সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়সমূহকে আহ্বান জানাই। জ্ঞানভিত্তিক সমাজ বিনির্মাণ ও মানবকল্যাণে শিক্ষকরা সর্বদা ইতিবাচক ভূমিকা পালন করে এসেছে এবং তা অব্যাহত থাকবে।


উল্লেখ্য, ২৫ জুন এক সংবাদ সম্মেলনে ঢাবি বায়োমেডিকেল রিসার্চ সেন্টারের পরিচালক আ ব ম ফারুকসহ ফার্মেসি অনুষদের কয়েকজন শিক্ষক দুধে অ্যান্টিবায়োটিক পাওয়ার গবেষণার ফলাফল প্রকাশ করেন। এ গবেষণা প্রকাশের এক দিন পর সংসদে দাঁড়িয়ে স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় প্রতিমন্ত্রী স্বপন ভট্টাচার্য এ গবেষণার রিপোর্টকে মিথ্যা বলে দাবি করেন। পরে ৯ জুলাই গবেষকদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার হুমকি দিয়েছেন অতিরিক্ত সচিব কাজী ওয়াছি উদ্দিন। যা নিয়ে সারা দেশে তোলপাড় সৃষ্টি হয়। গবেষককে হুমকি দেয়াসহ অবমাননার বিরুদ্ধে দেশের বিভিন্ন প্রান্তে নিন্দা ও প্রতিবাদের ঝড় উঠে। দেশের অধিকাংশ বিশ্ববিদ্যালয় এ ঘটনার নিন্দা জানিয়ে বিবৃতি দেয়। গৌরব ৭১ সহ দেশের বিভিন্ন সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠনগুলোও অধ্যাপক ফারুকের জন্য রাজপথে দাঁড়ায়। তবে এ বিষয়ে তার নিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সমিতি আনুষ্ঠানিক বিবৃতি বা বক্তব্য দিতে দেরি করায় বিবার্তা২৪ ডটনেট, সেই গবেষকের পক্ষে সরব দেশ, নীরব ঢাবি শিক্ষক সমিতি! এ শিরোনামে নিউজ করে। পরে বিষয়টি আলোচিত হয়। অবশেষে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতিও বিবৃতি দিয়ে অধ্যাপক ফারুকের পাশে থাকার ঘোষণা দেয়।


বিবার্তা/রাসেল/জহির


>>সেই গবেষকের পক্ষে সরব দেশ, নীরব ঢাবি শিক্ষক সমিতি!


>>ভুল হলে গবেষণা করে প্রমাণ করুন: আ ব ম ফারুক


>>অধ্যাপক ফারুককে হুমকির প্রতিবাদে বিশ্ববিদ্যালয়ের ৬৬ শিক্ষকের নিন্দা


>>দুধ নিয়ে গবেষণা করায় হুমকি: সচিবের বহিষ্কার দাবি

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

ময়মনসিংহ রোড, শাহবাগ, ঢাকা-১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com