প্রধানমন্ত্রীর উপহারের কোটি টাকার বাস পরিত্যক্ত!
প্রকাশ : ১২ জুলাই ২০১৯, ১৪:৫৯
প্রধানমন্ত্রীর উপহারের কোটি টাকার বাস পরিত্যক্ত!
জবি প্রতিনিধি
প্রিন্ট অ-অ+

পরিত্যক্ত অবস্থায় নষ্ট হচ্ছে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের দুটি বাস। প্রধানমন্ত্রীর দপ্তর থেকে শিক্ষার্থীদের জন্য উপহার দেয়া একতলা বাস দুটি কিনতে ব্যয় হয়েছে প্রায় এক কোটি টাকা। দুই বছর আগে ইঞ্জিনের হাওয়া নেয়ার সমস্যার কারণে ফেলে রাখা হয় বাস দুটি। তবে এখন বাস দুটিকে চলাচলের উপযোগী করতে হলে ইঞ্জিনসহ সিংহভাগ যন্ত্রাংশই পরিবর্তন করতে হবে।


এদিকে বাসের মেরামত মূল্যও আগের তুলনায় দ্বিগুণের চেয়ে বেড়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবহন দপ্তরের দাবি- চীনা কোম্পানির বাস দুটির যন্ত্রাংশ দেশে সচরাচর পাওয়া যায় না বলেই মেরামতে এই দীর্ঘসূত্রতা। বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবহন দফতরের বর্তমান পরিচালকের দাবি, আগে যিনি পরিচালকের দায়িত্বে ছিলেন তিনি মেরামতের উদ্যোগ না নেয়ায় এ অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে।


জানা যায়, ২০১২ সালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রাজধানীর তিনটি বিশ্ববিদ্যালয় ও ইডেন কলেজকে দুটি করে বিআরটিসি বাস উপহার দেন। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীরা দুটি বাস উপহার পান। ওই বাস দুটি চীন থেকে নরডিক ডেভেলপমেন্ট ফান্ডের আওতায় আমদানি করা। বাসগুলোর ক্রয়মূল্য প্রায় ৪৫ লাখ টাকা করে।


২০১৬ সালের দিকে বাসের ইঞ্জিনের হাওয়া লোড নেয়ার সমস্যার কারণে ব্রেক ও গিয়ারে সমস্যা দেখা দেয়। ২০১৭ সালে বাস দুটি বিআরটিসির ওয়ার্কশপে নিয়ে পরীক্ষা করলে বিআরটিসি কর্তৃপক্ষ প্রায় সাত লাখ টাকা বাস প্রতি মেরামত মূল্য নির্ধারণ করে। কিন্তু বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ ওই সময় বাস মেরামত না করে যন্ত্রাংশ না পাওয়ার অজুহাতে বিশ্ববিদ্যালয়ে এনে ফেলে রাখে। এ বছরের শুরুর দিকে বাস দুটি মেরামত করার উদ্যোগ নেয়া হয়।



বিআরটিসি, নিটল-টাটা, অশোক লেল্যান্ড কোম্পানিসহ কয়েকটি কোম্পানিকে বাস দুটি মেরামতের জন্য প্রস্তাব দেয়া হয়েছে। গত মার্চে তারা বাস দুটি পর্যবেক্ষণ করে যায়। তাদের মধ্যে নিটল-টাটা কোম্পানি বাস দুটি মেরামত করতে অস্বীকৃতি জানায়। বিআরটিসি কর্তৃপক্ষ বাস দুটি মেরামত করতে সাড়ে ১৩ লাখ টাকা এবং ব্যাটারি ও টায়ার বাবদ প্রায় দুই লাখ টাকা বাজেট দেয়। আর অশোক লেল্যান্ড ১৬ লাখ টাকার বিনিময়ে বাস দুটি মেরামতের প্রস্তাব দেয়।


সরেজমিনে দেখা যায়, বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনের পেছনে এবং কাঁঠালতলার পাশে (ঢাকা মেট্রো স ১৪০০৭৩ ও ঢাকা মেট্রো স ১৪০০৭৪) বাস দুটি দু'বছর ধরে পরিত্যক্ত অবস্থায় পড়ে রয়েছে। নষ্ট ইঞ্জিনের অনেক যন্ত্রাংশ চুরিও হয়ে গেছে। বাসের দরজা, জানালা, বসার সিট ও টায়ার নষ্ট হয়ে গেছে। বাসের ভেতরে জন্ম নিয়েছে লতাপাতা-ঘাস।


বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবহন দপ্তরের সহকারী প্রকৌশলী আজিজুর রহমান জানান, বাস দুটি প্রায় দুই বছর ধরে নষ্ট হয়ে পড়ে আছে। বাস দুটি নষ্ট হওয়ার প্রাক্কালে ইঞ্জিনের হাওয়া লোড নেয়ার সমস্যা ছিল। এখন বাসের দরজা জানালাসহ অধিকাংশই নষ্ট হয়ে গেছে। বিআরটিসি কর্তৃপক্ষসহ কয়েকটি কোম্পানিকে বাস দুটি মেরামতের জন্য প্রস্তাব দেয়া হয়েছে। তাদের মধ্যে থেকে একটি কোম্পানিকে বাস মেরামতের কাজ দেয়া হবে।


বিশ্ববিদ্যালয় পরিবহন দপ্তরের পরিচালক আবদুল্লাহ আল মাসুদ বলেন, বাস দুটি মেরামত করতে আমাকে আহ্বায়ক করে একটি কমিটি করা হয়েছে। আসলে বাস দুটি মেরামত নয় বরং পুনর্নির্মাণ করা হবে। বাস দুটির অধিকাংশ যন্ত্রাংশই নষ্ট হয়ে গেছে। বাসের ইঞ্জিন, গিয়ারবক্স, ইলেকট্রিক সিস্টেমসহ সিংহভাগই পরিবর্তন করা হবে।



মেরামতে দীর্ঘসূত্রতার বিষয়ে প্রশ্ন করলে তিনি বলেন, আমি বছর দেড়েক আগে দায়িত্ব নিয়েছি। তার অনেক আগে থেকেই বাস দুটি নষ্ট হয়ে পড়ে আছে। আগের প্রশাসক কেন এ উদ্যোগ নেয়নি তা জানি না। তখন মেরামত করলে হয়তো শুধু ইঞ্জিন পরিবর্তন করলেই হতো। মেরামত খরচ পাঁচ লাখ টাকার মধ্যেই হয়ে যেত। এখন বাস দুটি ঠিক করতে একটি বাসের ক্রয়মূল্যের সমান খরচ হচ্ছে।


আবদুল্লাহ আল মাসুদ বলেন, বাস দুটি প্রধানমন্ত্রীর দেয়া উপহার। প্রশাসনিক ঝামেলার কারণে বিক্রি করেও দিতে পারি না। আর বিক্রি করলেও সর্বোচ্চ দুই লাখ টাকা পাওয়া যাবে।


বিবার্তা/আদনান/জহির

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

বি-৮, ইউরেকা হোমস, ২/এফ/১, 

ময়মনসিংহ রোড, শাহবাগ, ঢাকা-১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com