ধর্ষকদের জনসম্মুখে ফাঁসিতে ঝোলানোর দাবি ঢাবি শিক্ষার্থীদের
প্রকাশ : ১০ জুলাই ২০১৯, ১৩:৪৩
ধর্ষকদের জনসম্মুখে ফাঁসিতে ঝোলানোর দাবি ঢাবি শিক্ষার্থীদের
বিবার্তা প্রতিবেদক
প্রিন্ট অ-অ+

ধর্ষণের সর্বোচ্চ শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ও বর্তমান শিক্ষার্থীরা। এ সময় শিক্ষার্থীরা ব্যানার ও ফেস্টুন নিয়ে লাইনে দাঁড়িয়ে প্রতিবাদ জানায়। শুধু তাই নয়, ধর্ষণকারীদের জনসম্মুখে ফাঁসিতে ঝোলানোর দাবি জানানো হয়।


মঙ্গলবার বেলা১১টা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজু ভাস্কর্যের সামনে শিক্ষার্থীরা এ দাবি জানান।


মানববন্ধনে ব্যানার-ফেস্টুনে বিভিন্ন প্রতিবাদী লেখা ছিল।‘ধর্ষকের জেল নয় মৃত্যুদণ্ড চাই’,‘আমার শিশু কন্যার ফ্রকে রক্ত কেন’, ‘শাস্তির মাধ্যমে ধর্ষকের সংশোধন নয় বিনাশ চাই’, ‘নারীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা এখন সময়ের দাবি’, ইত্যাদি৷


বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের সঙ্গে সংহতিজানাতে মানববন্ধনে অংশগ্রহণ করেন পরিবেশবিজ্ঞানী ড. কানিজ আকলিমা সুলতানা, দেশের জনপ্রিয় নিউজ পোর্টাল বিবার্তা২৪ডটনেটর সম্পাদক বাণী ইয়াসমিন হাসি, গৌরব ৭১’এর সাধারণ সম্পাদক এফ এম শাহীন প্রমুখ।



এছাড়াও মানববন্ধনেবক্তব্য রাখেন- ডাকসুর সাংস্কৃতিক সম্পাদক আসিফ তালুকদার, ডাকসুর কমনরুম ও ক্যাফেটরিয়া বিষয়ক সম্পাদক লিপি আক্তার প্রমুখ।


ডাকসুর সাংস্কৃতিক সম্পাদক আসিফ তালুকদারবলেন, ধর্ষণ কারো একক সমস্যা নয়। এটা দেশ, সমাজ তথা সারা বিশ্বের বিবেকবান মানুষের কাছে একটা আতঙ্ক। যারা ধর্ষণ করে তারা মানুষরূপী পশু। তাই ঐক্যবদ্ধভাবে সবাই মিলে তাদের প্রতিরোধ করতে হবে। শুধু তাই নয়, ইতোমধ্যে যারা এ ধরনের অপরাধ করেছে তাদের বিচার জনসম্মুখে দ্রুত কার্যকর করত হবে।


ডাকসুর কমনরুম ও ক্যাফেটরিয়া বিষয়ক সম্পাদক লিপি আক্তার বলেন, ধর্ষকদের আমরা সর্বোচ্চ শাস্তি কামনা করি। তাদের প্রকাশ্যে মৃত্যুদণ্ড দেয়া হোক। ধর্ষণের শাস্তি যদি মৃত্যুদণ্ড হয় তাহলে স্বাভাবিকভাবে ধর্ষকরা ভয় পাবে।


তিনি বলেন, আমাদের প্রধানমন্ত্রী যেমন বলেছেন, নারীদের পাশাপাশি পুরুষদের এগিয়ে আসতে হবে। এটি যদি করা যায় তাহলে সমাজ থেকে এ ধরনের অপরাধ কমানো যাবে বলে মনে করি। তাই নারীর পাশাপাশি পুরুষদেরও সোচ্চার হওয়ার আহবান জানাচ্ছি।



পরিবেশবিজ্ঞানী ড. কানিজ আকলিমা সুলতানা বলেন, ধর্ষণ এদেশে মহামারী আকারে দেখা দিয়েছে৷এসিড নিক্ষেপও যখন মহামারী আকার ধারণ করেছিল, তখন সেটির বিষয়ে রাষ্ট্র যখন কঠোর অবস্থানে গিয়েছে তখন কেবল এসিড নিক্ষেপ বন্ধ হয়েছে। এখন যৌন নির্যাতনের বিরুদ্ধে যদি রাষ্ট্র সোচ্চার হয় তাহলে কেবল এটি রোধ করা সম্ভব।


বিবার্তা/খলিল/জাকিয়া

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

বি-৮, ইউরেকা হোমস, ২/এফ/১, 

ময়মনসিংহ রোড, শাহবাগ, ঢাকা-১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com