বঙ্গবন্ধুর বিরোধীতাকারীর নামে ট্রাস্ট ফান্ড, সমালোচনায় পড়ে বাতিল
প্রকাশ : ১৪ মে ২০২২, ১৫:৪০
বঙ্গবন্ধুর বিরোধীতাকারীর নামে ট্রাস্ট ফান্ড, সমালোচনায় পড়ে বাতিল
বিবার্তা প্রতিবেদক
প্রিন্ট অ-অ+

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের বিরোধীতাসহ মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাসের নানা বিভ্রান্তি ছড়ানোর দায়ে অভিযুক্ত প্রয়াত সাংবাদিক এ.জেড.এম. এনায়েতুল্লাহ খানের নামে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ট্রাস্ট ফান্ড গঠন করা হয়েছিলো। বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগে গঠিত এই ফান্ডের নাম ছিলো 'এনায়েতুল্লাহ খান স্মৃতি ট্রাস্ট ফান্ড'। এদিকে এই ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয়ের সংশ্লিষ্ট মহলে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া শুরু হয়েছিলো। এই প্রেক্ষিতে বিবার্তা২৪ডটনেটে তথ্য প্রমাণের ভিত্তিতে প্রতিবেদনও প্রকাশিত হয়। অবশেষে সমালোচনার মুখে পড়ে এই ট্রাস্ট ফান্ড বাতিল করা হয়েছে।


শনিবার (১৪ মে) বিতর্কিত এনায়েতুল্লাহ ট্রাস্ট ফান্ড বাতিল করা হয়েছে কি-না জানতে চাইলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ড. মো. আখতারুজ্জামান বিবার্তাকে বলেন, তোমরা উদ্দেশ্য প্রণোদিত হয়ে বিভিন্ন ধরনের নিউজ করো। এই সময় বিতর্কিত এনায়েতুল্লাহ ট্রাস্ট ফান্ড বাতিল করা হয়েছে কি-না এমন সম্পূরক প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, এ বিষয়ে আর কোনো আলোচনা নাই।


এরআগে ১০ মে (মঙ্গলবার) ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য লাউঞ্জে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে এই ট্রাস্ট ফান্ড প্রতিষ্ঠার জন্য প্রয়াত এ.জেড.এম. এনায়েতুল্লাহ্ খানের মেয়ে নাসরীন জামান ২৫ লাখ টাকার একটি চেক হস্তান্তর করেন। অনুষ্ঠানে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন।


এছাড়াও, এই অনুষ্ঠানে রাশেদ খান মেনন এমপি, বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার প্রবীর কুমার সরকার, সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. জিয়া রহমান, গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. আবুল মনসুর আহাম্মদ এবং দাতা পরিবারের সদস্য আবু সালেহ মোহাম্মদ শহীদুল্লাহ খান উপস্থিত ছিলেন।


এ সময় উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান ট্রাস্ট ফান্ড প্রতিষ্ঠার জন্য দাতা নাসরীন জামানকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানান। এই ট্রাস্ট ফান্ডের মাধ্যমে গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষার্থীরা অনুপ্রাণিত ও উপকৃত হবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।


ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন শিক্ষার্থী এ.জেড.এম. এনায়েতুল্লাহ্ খানের নামে এই ট্রাস্ট ফান্ড গঠন করা হয়েছিলো। তিনি পেশায় সাংবাদিক হলেও তার বিভিন্ন ভূমিকা নিয়ে রয়েছে প্রশ্ন। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শাসনামলসহ বিভিন্ন বিষয়ে তিনি নানাভাবে বিভ্রান্তি ছড়িয়েছেন। এমনকি তার সম্পাদিত পত্রিকা সাপ্তাহিক হলিডেও মুক্তিযুদ্ধ ও বঙ্গবন্ধুর ইতিহাস বিকৃত করেছে। পরবর্তীতে এ পত্রিকা বন্ধ করে দেয়া হয়।


উল্লেখ্য, গত ১২ মে "বঙ্গবন্ধুর বিরোধীতাকারীর নামে ঢাবিতে ট্রাস্ট ফান্ড!" শিরোনামে সর্বপ্রথম প্রতিবেদন প্রকাশ করে বিবার্তা২৪ডটনেট। যার ফ‌লে সামা‌জিক যোগা‌যোগ মাধ‌্যমে সামা‌লোচনার ঝড় ওঠে। এরই প্রেক্ষিতে জা‌তির পিতা বঙ্গবন্ধুর অনুসারী‌দের প্রতিবাদ ও ক্ষো‌ভের মু‌খে ঢা‌বি কর্তৃপক্ষ এই ট্রাষ্ট বা‌তিল ক‌রেন।


বিবার্তা/রাসেল/বিএম

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

পদ্মা লাইফ টাওয়ার (লেভেল -১১)

১১৫, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ,

বাংলামোটর, ঢাকা- ১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2021 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com