ইবির জিয়া পরিষদ থেকে ২ নেতা বহিষ্কার
প্রকাশ : ১৭ অক্টোবর ২০২০, ১৯:৪০
ইবির জিয়া পরিষদ থেকে ২ নেতা বহিষ্কার
ইবি প্রতিনিধি
প্রিন্ট অ-অ+

সংগঠন বিরোধী কার্যকলাপের দায়ে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) বিএনপিপন্থী শিক্ষকদের সংগঠন ‘জিয়া পরিষদের দুই নেতাকে বহিষ্কার করা হয়েছে। বহিষ্কৃত শিক্ষকরা হলেন বিশ্ববিদ্যালয় জিয়া পরিষদের সাবেক সভাপতি অধ্যাপক ড. একেএম মতিনুর রহমান ও সহ-সভাপতি অধ্যাপক ড. এএসএম শরফরাজ নেওয়াজ।


শনিবার (১৬ অক্টোবর) পরিষদের ভার্চুয়াল সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।


জানা যায়, এবছর শিক্ষক সমিতির নির্বাচনে পরিষদের সিদ্ধান্তকে উপেক্ষা করে স্বতন্ত্র প্যানেলে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করে এ দুই শিক্ষক। এতে ড. মতিনুর সভাপতি ও ড. শরফরাজ সাধারণ সম্পাদক পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে। নির্বাচনে বিএনপি-জামায়াত সমর্থিত শিক্ষকরা পূর্ণ প্যানেলে অংশগ্রহণ করে সাধারণ সম্পাদকসহ পাঁচ জন শিক্ষক জয়লাভ করে। জিয়া পরিষদ নেতাদের অভিযোগ দলীয় সিদ্ধান্তকে তোয়াক্কা না করে স্বতন্ত্রভাবে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করায় তারা পূর্ণ প্যানেলে জয়লাভ করতে পারেনি।


গত ৩০ সেপ্টেম্বর ড. মতিনুর ও ড. শরফরাজের কর্মকান্ড সংগঠন ও আদর্শ বিরোধী উল্লেখ করে তাদের করণ দর্শানোর নোটিশ দেয়া হয়। এতে ১৫ দিনের মধ্যে কারণ দর্শাতে বলা হলেও এ বিষয়ে কোনো সদুত্তর দেয়নি তারা। এছাড়া তাদের বিরুদ্ধে দলীয়ভাবে পদক্ষেপ নেয়া হবে আঁচ করতে পেরে ১১ সেপ্টেম্বর তারা পরিষদ থেকে পদত্যাগ করে। পদত্যাগ পত্রে তারা ১৭ জন শিক্ষকের নাম উল্লেখ করলেও ছিলোনা কারো স্মাক্ষর।


এদিকে তাদের অভিযোগ, তাদেরকে না জানিয়েই পদত্যাগপত্রে নাম দেয়া হয়েছে।


এ বিষয়ে ফলিত রসায়ন ও কেমিকৌষল বিভাগের অধ্যাপক ড. মিনহাজ উল হক বলেন, “জিয়া পরিষদ থেকে আমি পদত্যাগ করব কেন? এখানে আমার নাম উল্লেখ করা হয়েছে, এটা আমি জানিই না।”


বাংলা বিভাগের অধ্যাপক ড. মনজুর রহমান বলেন, “এখানে আমার কোনো সম্মতি নেয়া হয়নি। যারা এ কাজটি করেছে তারা হয়তো বিশেষ কোনো উদ্দেশ্য নিয়েই একাজ করেছে।”এছাড়া পদত্যাগপত্রে নাম থাকা আরো কয়েকজন শিক্ষক জানিয়েছেন বিষয়টি তারা জানেননা।


এর আগে গত ২৬ সেপ্টম্বর ২৬ জন শিক্ষক নিয়ে সাদা দল গঠন করেন ড. মতিনুর ও ড. শরফরাজ। এতে ড. মতিনুরকে আহবায়ক ও ড. শরফরাজকে সদস্য সচিব করা হয়। এ কমিটিতেও সম্মতি ছাড়াই নাম দেয়া হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন কয়েকজন শিক্ষক।


এ বিষয়ে অধ্যাপক ড. শরফরাজ নেওয়াজ বলেন, “আমি যে সংগঠন থেকে পদত্যাগ করেছি সেখান থেকে বহিষ্কার করবে কিভাবে? সম্মতি ছাড়া শিক্ষকের নাম দেয়ার ব্যাপারে তিনি বলেন, এ বিষয়ে সকলের সম্মতি আছে। কারো সম্মতি নেই আমার সামনে একথা বলতে পারলে আমি শিক্ষকতা ছেড়ে দেব।”


বিবার্তা/জায়িম/জাই


সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

ময়মনসিংহ রোড, শাহবাগ, ঢাকা-১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: [email protected], [email protected]

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com