যে কারণে খুন করা হয় আ.লীগ নেতা ফরহাদকে
প্রকাশ : ১৪ জুলাই ২০১৮, ১৪:৫০
যে কারণে খুন করা হয় আ.লীগ নেতা ফরহাদকে
বিবার্তা প্রতিবেদক
প্রিন্ট অ-অ+

রাজধানীর বাড্ডায় আওয়ামী লীগ নেতা ফরহাদ হত্যাকাণ্ডে জড়িত সন্দেহে পাঁচজনকে গ্রেফতার করেছে ঢাকা মহানগর (উত্তর) গোয়েন্দা পুলিশ। পরে তাদের দফায় দফায় জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়।


এ সময় তারা জানায়, এলাকায় আধিপত্য বিস্তার, অটোরিক্সাস্ট্যান্ড ও ডিস ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে চাঁদা আদায়ের ভাগবাটোয়ারা নিয়ে বিরোধে ফরহাদ আলী খুন হয়।


শনিবার দুপুরে ডিএমপির মিডিয়া সেন্টারে সংবাদ সম্মেলন করে এমন তথ্যই জানিয়েছেন অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার মোঃ আবদুল বাতেন।


তিনি বলেন, শুক্রবার রাজধানীর গুলশান ও মিরপুর শাহআলী এলাকায় অভিযান চালিয়ে মোঃ জাকির হোসেন, মোঃ আরিফ মিয়া, মোঃ আবুল কালাম আজাদ ওরফে অনির, মোঃ বদরুল হুদা ওরফে সৌরভ ও মোঃ বিল্লাল হোসেন ওরফে রনিকে গ্রেফতার করা হয়। এ সময় তাদের কাছ থেকে চারটি বিদেশি আগ্নেয়াস্ত্র, চারটি ম্যাগাজিনসহ ১২ রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয়েছে।


তিনি আরো বলেন, গত ১৫ জুন বাড্ডা থানাধীন আলীর মোড় এলাকায় বাড্ডা থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ ফরহাদ আলীকে মসজিদের সামনে অজ্ঞাতনামা অস্ত্রধারী সন্ত্রাসীরা নৃশংশভাবে উপর্যপুরি গুলি করে হত্যা করে। এ ঘটনায় বাড্ডা থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করা হয়। এই ঘটনার পরে থানা পুলিশের পাশাপাশি ঢাকা মহানগর পুলিশ এর গোয়েন্দা উত্তর বিভাগ ছায়া তদন্ত শুরু করে।


আবদুল বলেন, এক পর্যায়ে গত ১০ জুলাই এই হত্যা মামলার আসামি জহিরুল ইসলাম ওরফে সুজনকে গ্রেফতার করা হয়। পরে তাকে আদালতে প্রেরণ করলে সে আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি প্রদান করে। তার জবানবন্দির ভিত্তিতে শুক্রবার সন্ধ্যার দিকে ডিবি উত্তর বিভাগের একটি টিম গুলশান থানা এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে জাকির ও আরিফকে গ্রেফতার করে। এ সময় জাকিরের কাছে থেকে একটি অত্যাধুনিক বিদেশি পিস্তল, ২ রাউন্ড গুলি এবং আরিফের কাছে থেকে ৪ রাউন্ড গুলি উদ্ধার করে।



পরে তাদের কাছ থেকে প্রাপ্ত তথ্যের ভিত্তিতে তাৎক্ষণিক মহানগরের শাহআলী থানা এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে অনির, সৌরভ ও রনিকে গ্রেফতার করা হয়। এ সময় তাদের প্রত্যেকের কাছে থেকে একটি করে মোট তিনটি অত্যাধুনিক বিদেশি পিস্তল ও ৬ রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয়।


পরে তাদের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে জানিয়ে আবদুল বাতেন আরো বলেন, এলাকায় আধিপত্য বিস্তার, অটোরিক্সা স্ট্যান্ড ও ডিস ব্যবসায়ীদের নিকট হতে চাঁদা আদায়ের ভাগবাটোয়ারা নিয়ে বিরোধে ফরহাদ আলী খুন হয়। শীর্ষ সন্ত্রাসী রমজান, মেহেদী ওরফে কলিন্স ও আশিক (প্রত্যেকে বিদেশে পলাতক) হত্যার পরিকল্পনা করে। হত্যাকাণ্ডের কয়েকদিন আগে রমজান ভারতে চলে যায়, রমজান তার আপন ছোট ভাই সুজন এবং অপর দুইজন সহযোগী জাকির ও আরিফের উপর হত্যার দায়িত্ব দেয়।


অপরদিকে শীর্ষ সন্ত্রাসী মেহেদীর বাংলাদেশে সামরিক কমান্ডার অমিত তাদের ভাড়াটে শ্যুটার নুর ইসলাম, অনির, সৌরভ, সাদকে দায়িত্ব দেয়। সিদ্ধান্ত মোতাবেক ১৫ জুন সকালের দিকেই অমিতসহ শ্যুটাররা উত্তর বাড্ডার সুবাস্তু টাওয়ারের সামনে সমবেত হয়। অমিতের নির্দেশনা মাফিক সিদ্ধান্ত হয় নুর, অনির ও সৌরভ মূল কিলিং মিশনে অংশ নেবে। আর অমিতের সঙ্গে ব্যাকআপ হিসাবে থাকবে সাদ ওরফে সাদমান। পরে আনুমানিক দুপুর ১২টার দিকে রমজানের ছোট ভাই সুজন কিলিং মিশনে অংশগ্রহনকারী তিনজন শ্যুটার ও ব্যাকআপ সাদকে জাকিরের সঙ্গে একটা রিক্সা গ্যারেজে পাঠায় অস্ত্রের জন্য। চারজনকেই অস্ত্র বুঝিয়ে দেয় শীর্ষ সন্ত্রাসী মেহেদীর অন্যতম আস্থাভাজন পুলক ওরফে পলক।


এরপর জাকির তাদেরকে নিয়ে আরিফের কাছে পৌঁছে দেয়। পরিকল্পনা মাফিক আরিফ শ্যুটারদেরকে মসজিদের কাছে নিয়ে গিয়ে বাইরে থেকে টার্গেট ফরহাদকে চিনিয়ে দেয়। নামাজ শেষে ফরহাদ মসজিদ থেকে বের হওয়ার সাথে সাথেই শ্যুটাররা জনসম্মুখে উপর্যপুরি গুলি করে পালিয়ে যায়। পরবর্তীতে শ্যুটাররা তাদের অস্ত্রগুলো অমিতের কাছে বুঝিয়ে দেয়ার জন্য পল্লবী এলাকায় যায়। সেখানে অমিত তার অপর সহযোগী সুজনের মাধ্যমে অস্ত্রগুলো গ্রহণ করে।


এ হত্যাকাণ্ডে অমিত তাৎক্ষণিকভাবে এক লাখ টাকা শ্যুটারদের মাঝে বন্টন করে দেয়। হত্যাকাণ্ডের পর পরেই দেশ ত্যাগ করে রমজানের ছোট ভাই সুজন।


উল্লেখ্য গত ৪ জুলাইল দিবাগত রাতে গোয়েন্দা পুলিশের সাথে বন্দুকযুদ্ধে অজ্ঞাতনামা দুইজন সন্ত্রাসী নিহত হয়। পরবর্তীতে যাদের পরিচয় জানা যায় ফরহাদ হত্যাকাণ্ডের অন্যতম শ্যুটার, ভিডিও ফুটেজে লাল গেঞ্জি পরিহিত নুর ইসলাম ও শীর্ষ সন্ত্রাসী মেহেদীর সামরিক কমান্ডার অমিত। তারা দু’জনই ওই হত্যাকাণ্ডের সাথে জড়িত।


বিবার্তা/খলিল/জাকিয়া


>>আ.লীগ নেতা ফরহাদ হত্যায় জড়িত সন্দেহে আটক ৫

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: bbartanational@gmail.com, info@bbarta24.net

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com